রাজনীতি

বিএনপির মিছিল থেকে ককটেল বিস্ফোরণ ও ৩ ছাত্রলীগ কর্মীকে মারধরের অভিযোগ

মুন্সিগঞ্জের গজারিয়ায় ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে বিএনপির বিক্ষোভ মিছিল থেকে ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।
মুন্সিগঞ্জ
স্টার অনলাইন গ্রাফিক্স

মুন্সিগঞ্জের গজারিয়ায় ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে বিএনপির বিক্ষোভ মিছিল থেকে ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। এ সময় বিএনপি নেতাকর্মীদের মারধরে উপজেলা ছাত্রলীগের ৩ কর্মী আহত হয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। ভাঙচুর করা হয়েছে একটি সিএনজিচালিত অটোরিকশা।

আজ বুধবার রাত ৮টার দিকে মহাসড়কের ভিটিকান্দি এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। 

তবে বিএনপি বলছে, তাদের ওই সময় কোনো কর্মসূচি ছিল না। 

আহতরা হলেন- গজারিয়া উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক কার্যকরী সদস্য সুমন প্রধান (২৪) এবং ছাত্রলীগকর্মী নিঝুম (১৮) ও আরিফ (১৯)। তাদের মধ্যে সুমনকে গজারিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। বাকিরা প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে বাড়ি ফিরে গেছেন।

প্রত্যক্ষদর্শী সিএনজিচালিত অটোরিকশার চালক মোশাররফ হোসেন জানান, আজ রাত ৮টার দিকে ভবেরচর বাসস্ট্যান্ড থেকে আনারপুরে যাওয়ার জন্য তার অটোরিকশায় উঠেন ৩ ছাত্রলীগ কর্মী। তারা ভিটিকান্দি এলাকায় পৌঁছালে দেখতে পান, ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে অন্তত ৪০-৪৫ জন বিএনপি নেতাকর্মী মিছিল করছেন। এ সময় বিক্ষোভ মিছিল থেকে অন্তত ১৫ থেকে ২০টি ককটেলের বিস্ফোরণ ঘটানো হয়। অটোরিকশার যাত্রীরা ছাত্রলীগের কর্মী হওয়ায় তাদের মারধর করে অটোরিকশা ভাঙচুর করেন বিক্ষোভকারীরা।

আহত গজারিয়া উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক কার্যকরী সদস্য এবং ভবেরচর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি প্রার্থী পারভেজ আহমেদ সুমন বলেন, 'কিছু বুঝে ওঠার আগেই বিএনপি নেতাকর্মীরা আমাদের মারধর করতে থাকেন। আমার সঙ্গে থাকা ২ জন দৌঁড়ে পালিয়ে কিছুটা বাঁচতে পারলেও সবচেয়ে বেশি মারধরের শিকার হই আমি।'

অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে গজারিয়া উপজেলা বিএনপির সদস্য সচিব মো. ফরিদ মিয়া বলেন, 'আমাদের এরকম কোনো কর্মসূচি নেই। আমি ঢাকাতে আছি। আমি আপনার কাছ থেকেই বিষয়টি শুনলাম।'

গজারিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোল্লা সোয়েব আলী বলেন, 'স্থানীয়দের মাধ্যমে খবর পেয়ে আমরা দ্রুত ঘটনাস্থলে ছুটে আসি। এ সময় আমরা কয়েকটি বিস্ফোরিত ককটেলের আলামত দেখতে পাই।  ১৫ থেকে ২০টি ককটেল বিস্ফোরণ করেছেন বিএনপির নেতাকর্মীরা।'

তিনি আরও বলেন, 'দেশে অরাজকতা তৈরি করতে ও মুন্সিগঞ্জ জেলা বিএনপির সদস্য সচিব কামরুজ্জামান রতনের মুক্তির দাবিতে এই ঝটিকা মিছিল করে বিএনপি। এ সময় একটি সিএনজিচালিত অটোরিকশা ভাঙচুর করা হয়েছে ও  ৩ জন আহত হয়েছেন। তবে এ ঘটনায় কাউকে আটক করা যায়নি।'

বুধবার লৌহজং, সিরাজদিখান ও  টংগিবাড়ী উপজেলাতেও ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। 

Comments