‘ঢাকার বাইরে সভা করা যাবে না’—এটা কি মগের মুল্লুক?

ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, ‘এই সরকার অত্যন্ত পরিকল্পিতভাবে দেশটাকে সংঘাতের দিকে নিয়ে যাচ্ছে।’
বক্তব্য রাখছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর | ছবি: টেলিভিশন থেকে নেওয়া

বিএনপির গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার আন্দোলন কর্মসূচিতে বাধা দেওয়ার অভিযোগ তুলে দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, 'এই সরকার অত্যন্ত পরিকল্পিতভাবে দেশটাকে সংঘাতের দিকে নিয়ে যাচ্ছে।'

নওগাঁয় র‍্যাবের হেফাজতে সুলতানা জেসমিনের হত্যার প্রতিবাদে আজ রোববার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে (ডিআরইউ) আয়োজিত তিনি এই কথা বলেন তিনি।

বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী মহিলা দল এই আলোচনা সভার আয়োজন করে।

মির্জা ফখরুল বলেন, 'আমরা প্রত্যেকটি আন্দোলনে ন্যায়সঙ্গতভাবে সাংবিধানিক অধিকার আদায়ে যখন রাস্তায় দাঁড়াই, আমাদের রাস্তায় দাঁড়াতে দেয় না। গতকাল সারা দেশে আমাদের কর্মসূচি ছিল, বেশির ভাগ স্থানে পুলিশ বাধা দিয়েছে, আওয়ামী লীগ সরকার বাধা দিয়েছে। এমনকি তারা আমাদের ভাইস চেয়ারম্যান, যিনি বিমান বাহিনীর প্রধান ছিলেন—আলতাফ হোসেনের গাড়ি ভেঙে দিয়েছে। এভাবে অসংখ্য জায়গায় তারা আক্রমণ করেছে, আহত করেছে।'  

'প্রত্যেকটা জায়গায় তারা নিজেরাই আক্রমণ করছে কোনো উসকানি ছাড়াই,' অভিযোগ তোলেন মির্জা ফখরুল।

তিনি আরও বলেন, 'এই কর্মসূচি আমরা ঘোষণা করেছি অনেক আগেই। সেই অনুযায়ী কর্মসূচি চলছে। ঢাকাতে পুলিশ কমিশনার বললেন ঢাকার বাইরে সভা করা যাবে না। কেন? কোন আইনে আছে যে, আপনি আমাকে বাইরে সভা করতে দেবেন না? এটা মগের মুল্লুক নাকি? আমরা লক্ষ করছি, এই সরকার অত্যন্ত পরিকল্পিতভাবে দেশটাকে সংঘাতের দিকে নিয়ে যাচ্ছে। অত্যন্ত পরিকল্পিতভাবে বিনা উসকানিতে বিরোধী দলের কর্মসূচিতে আক্রমণ করে, আঘাত করে তারা একটা সংঘাতময় পরিস্থিতি সৃষ্টি করতে চায়।'

বিএনপি মহাসচিব বলেন, 'আমরা যেসব কর্মসূচি নিয়েছি সবগুলো শান্তিপূর্ণ ও গণতান্ত্রিক কর্মসূচি। সংবিধান বলছে আমাকে কথা বলার অধিকার দিতে হবে। প্রতিবাদ করার অধিকার দিতে হবে। সরকারের বিরুদ্ধে কথা বলা যাবে না, সরকার কি রাষ্ট্র?'

'আমি যদি গণতন্ত্রে বিশ্বাস করি, আমি অবশ্যই আমার কথা বলব। গণতন্ত্র হচ্ছে, আমি তোমার সঙ্গে একমত না হতে পারি কিন্তু মত প্রকাশের স্বাধীনতাকে আমি আমার জীবন দিয়ে হলেও রক্ষা করব। এদের (আওয়ামী লীগ) কাছে গণতন্ত্র হচ্ছে, কেবল আমিই কথা বলব, আমার কথা মতো সব কিছু চলতে হবে এবং ক্রীতদাস হয়ে থাকতে হবে। বাংলাদেশের মানুষ সেটা হতে দেবে না,' বলেন তিনি।

ফখরুল বলেন, 'আমাদের দেশে এখন গণতন্ত্র নেই। নেই বলেই এখানে কারো অধিকার নেই। এমন একটি সরকার; জোর করে ক্ষমতা দখল করে দীর্ঘ দিন ধরে বসে আছে যারা জনগণের কোনো তোয়াক্কা করে না। জনগণ তাদের কাছে কোনো সমস্যাই না, সুতরাং সেখানে নারী-পুরুষ, হিন্দু-মুসলমান, খ্রিস্টান-ইহুদি কেউ নিরাপদ না।'

তিনি বলেন, 'সুলতানা জেসমিন কোনো রাজনীতির সঙ্গে জড়িত ছিলেন না। তিনি অপরাধী নন কিন্তু একজন যুগ্ম সচিবের কথায় তাকে রাস্তা থেকে তুলে নেওয়া হয়। এটা কোনো সভ্য, গণতান্ত্রিক দেশে হতে পারে না। একজন নাগরিক ও সরকারি অফিসের কর্মচারী, তাকে এভাবে তুলে নিয়ে যাওয়া সংবিধানের লঙ্ঘন এবং সম্পূর্ণ বেআইনি।'

'সুলতানা জেসমিন নিহত হয়েছেন তাকে তুলে নিয়ে নির্যাতন করার কারণে। এ ব্যাপারে অন্তত আমাদের কোনো সন্দেহ নেই,' বলেন বিএনপি মহাসচিব।

Comments