রাজনীতি

৩ মামলায় বিএনপি নেতা জহির উদ্দিন স্বপনের জামিন নামঞ্জুর

গত ১৬ জানুয়ারি হাইকোর্ট ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেটকে স্বপনের জামিন আবেদন গ্রহণ, শুনানি ও নিষ্পত্তির নির্দেশ দেন।
জহির উদ্দিন স্বপন
বিএনপি নেতা জহির উদ্দিন স্বপন। ছবি: সংগৃহীত

গত ২৮ অক্টোবর ঢাকায় বিএনপির জনসভাকে কেন্দ্র করে সহিংসতার অভিযোগে পল্টন ও রমনা মডেল থানায় করা ৩ মামলায় বিএনপির মিডিয়া সেলের আহ্বায়ক জহির উদ্দিন স্বপনের জামিন আবেদন নামঞ্জুর করেছেন ঢাকার দুটি আদালত।

আজ মঙ্গলবার ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মো. জাকি আল ফারাবী পল্টন থানার ২ মামলায় এবং অতিরিক্ত চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মো. সুলতান সোহাগ উদ্দিন রমনা থানার মামলায় জামিন নামঞ্জুর করেন।

স্বপনের আইনজীবী পৃথক পাঁচটি আবেদন জমা দেওয়ার পর, এসব মামলায় তাকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়।

পল্টন ও রমনা থানায় দায়ের করা অপর দুটি মামলার অন্যান্য আসামিদের জামিন আবেদন শুনানির জন্য ঢাকা মহানগর দায়রা জজ আদালতে থাকায়, এ ২ মামলায় স্বপনের জামিন আবেদন শুনানি হয়নি আজ।

শুনানির জন্য গত ২৪ জানুয়ারি আজকের দিন নির্ধারণ করেছিলেন চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট।

ম্যাজিস্ট্রেট কোর্ট স্বপনের জামিন আবেদন গ্রহণ করতে অস্বীকার করার বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে রিট পিটিশন করার পর গত ১৬ জানুয়ারি হাইকোর্ট ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেটকে স্বপনের জামিন আবেদন গ্রহণ, শুনানি ও নিষ্পত্তির নির্দেশ দেন।

গত ১০ জানুয়ারি স্বপনের জামিন চেয়ে আবেদন করা হয়।

পুলিশ কনস্টেবল হত্যা, বেআইনিভাবে রাস্তায় জড়ো হওয়া, যানবাহন ভাঙচুর, সহিংসতা, পুলিশের অস্ত্র ছিনতাই, সম্পদের ক্ষয়ক্ষতি, পুলিশ সদস্যদের লাঞ্ছিত করা এবং দায়িত্ব পালনে বাধা দেওয়ার অভিযোগে এসব মামলা করা হয়েছে।

গত ৩ নভেম্বর রাজধানীর গুলশান থেকে স্বপনকে আটক করে গোয়েন্দা পুলিশ। পরে, ২৮ অক্টোবর পুলিশ কনস্টেবল নিহতের ঘটনায় করা মামলায় তাকে ছয় দিনের রিমান্ডে নেওয়া হয়। পরে তাকে কারাগারে পাঠানো হয়।

পুলিশের অস্ত্র ছিনতাই ও পুলিশের মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘর ভাঙচুরের অভিযোগে করা মামলায় স্বপনকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে। এ দুটি মামলায় তিনি এখনো জামিন পাননি।

Comments