কালুরঘাট সেতু নির্মাণে আরও ৪-৫ বছর লাগবে: রেলমন্ত্রী

রেলমন্ত্রী বলেন, ‘আউটসোর্সিংয়ের মাধ্যমে রেলওয়েতে জনবল সংকট কমানোর প্রচেষ্টা কোনো স্থায়ী সমাধান না। তাই, আমরা এখন সরাসরি জনবল নিয়োগের জন্য কাজ করছি।’
রেলমন্ত্রী মো. জিল্লুল হাকিম। ছবি: সংগৃহীত

রেলমন্ত্রী মো. জিল্লুল হাকিম বলেছেন, নতুন কালুরঘাট সেতু নির্মাণে আরও ৪ থেকে ৫ বছর সময় লাগবে। কারণ, এটি একটি বড় প্রকল্প।

আজ বুধবার বাংলাদেশ রেলওয়ের (পূর্বাঞ্চল) কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠকের পর তিনি চট্টগ্রামের সিআরবি এলাকায় সাংবাদিকদের বলেন, 'নতুন সেতুটি দক্ষিণ কোরিয়ার অর্থায়নে নির্মিত হবে। রেলওয়ে ইতোমধ্যে সেতুটি নির্মাণের জন্য একটি জরিপ সম্পন্ন করেছে।'

২০১৪ সালে নতুন কালুরঘাট সেতু নির্মাণের সিদ্ধান্ত নেয় সরকার। এর জন্য সিঙ্গেল রেললাইন এবং ডাবল লেনের সড়ক সেতুর জন্য বিশদ প্রকল্প প্রস্তাব (ডিপিপি) প্রস্তুত করা হয়, যার জন্য ব্যয় ধরা হয় এক হাজার ১৬৩ কোটি ২৭ লাখ টাকা।

কিন্তু এখন সেতুটিতে ডাবল লাইন ডুয়েল গেজ রেললাইন এবং একই ডেকের ওপর একটি ডাবল লেনের সড়ক থাকবে। সেতুটি নির্মাণে ব্যয় হচ্ছে প্রায় ১৪ হাজার কোটি টাকা।

চট্টগ্রাম-কক্সবাজারের মধ্যে কবে থেকে ট্রেন চলাচল শুরু হবে জানতে চাইলে রেলমন্ত্রী জানান, বন্দরনগরী ও কক্সবাজারের মধ্যে ট্রেন সার্ভিস চালুর জন্য তারা ইতোমধ্যে একটি সময়সূচি চূড়ান্ত করেছেন।

তিনি বলেন, 'প্রথমত, আমরা আগামী দুই মাসের মধ্যে এই রুটে একটি কমিউটার ট্রেন চালু করব। তারপর এই রুটে একটি আন্তঃনগর ট্রেন চালু হবে।'

রেল ইঞ্জিন সংকটের বিষয়ে জিল্লুল হাকিম বলেন, 'আমরা লোকোমোটিভ সংকট নিরসনে আরও ইঞ্জিন আমদানি করছি। ইতোমধ্যে আমরা কিছু নতুন ইঞ্জিন পেয়েছি।'

'আউটসোর্সিংয়ের মাধ্যমে রেলওয়েতে জনবল সংকট কমানোর প্রচেষ্টা কোনো স্থায়ী সমাধান না। তাই, আমরা এখন সরাসরি জনবল নিয়োগের জন্য কাজ করছি,' যোগ করেন তিনি।

Comments