ইসরায়েল শুধু জিম্মিদের মুক্তি চায়, যুদ্ধের অবসান নয়: হামাস

হামাসের রাজনৈতিক ব্যুরোর কর্মকর্তা বাসেম নাইম জানান, কাতারের রাজধানী দোহায় চলমান যুদ্ধবিরতির আলোচনা নিয়ে গণমাধ্যমে অনেক ‘বিভ্রান্তিকর তথ্য’ প্রকাশ করা হয়েছে।
গাজায় মহড়ায় অংশ নিচ্ছেন হামাস যোদ্ধারা। ছবি: রয়টার্স
গাজায় মহড়ায় অংশ নিচ্ছেন হামাস যোদ্ধারা। ছবি: রয়টার্স

গাজায় চলমান সংঘাত অবসানের কোনো ইচ্ছেই নেই ইসরায়েলের। নানা কৌশলে এই যুদ্ধকে দীর্ঘায়িত করতে চাইছে দেশটি। এমনটাই দাবি করেছে হামাস।

আজ সোমবার এই তথ্য জানিয়েছে কাতারভিত্তিক গণমাধ্যম আল জাজিরা।

হামাসের রাজনৈতিক ব্যুরোর কর্মকর্তা বাসেম নাইম জানান, কাতারের রাজধানী দোহায় চলমান যুদ্ধবিরতির আলোচনা নিয়ে গণমাধ্যমে অনেক 'বিভ্রান্তিকর তথ্য' প্রকাশ করা হয়েছে।

তিনি জানান, ইসরায়েল এই আলোচনায় একমুখী দৃষ্টিভঙ্গি অবলম্বন করছে। তারা শুধু জিম্মিদের মুক্তির বিষয়ে আলোচনা করতে প্রস্তুত। এ ক্ষেত্রে হামাসের তিন দাবীকে পুরোপুরি এড়িয়ে যেতে চাইছে ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহুর প্রতিনিধিরা।

বাসেম জানান, এই তিন দাবী হল—স্থায়ী ভাবে যুদ্ধের অবসান, গাজা থেকে সব ইসরায়েলি সেনা প্রত্যাহার এবং বাস্তুচ্যুত মানুষদের নিজ বাড়িতে ফেরার পথ সুগম করা।

গত ৭ অক্টোবর ইসরায়েলি ভূখণ্ডে অতর্কিত ও নজিরবিহীন হামলা চালায় হামাস। এতে এক হাজার ১৬০ জন নিহত হন এবং হামাসের হাতে জিম্মি হন প্রায় ২৫০ জন মানুষ। জিম্মিদের মধ্যে ১৩০ জন এখনো গাজায় আছেন এবং ৩৩ জন নিহত হয়েছেন বলে জানা গেছে।

এ ঘটনার পর থেকে হামাসকে নির্মূলের লক্ষ্যে গাজায় প্রায় ছয় মাস ধরে সর্বাত্মক ও নিরবচ্ছিন্ন হামলা চালাচ্ছে ইসরায়েল। গাজার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, এই হামলায় নিহত হয়েছেন অন্তত ৩২ হাজার ২২৬ জন মানুষ। নিহতের মধ্যে ১৩ হাজার শিশু রয়েছে বলে জানিয়েছে জাতিসংঘ। বাকিদের মধ্যে নারীর সংখ্যা বেশি।

আহতের সংখ্যা অন্তত ৭৪ হাজার ৫১৮।  

Comments

The Daily Star  | English

Secondary schools, colleges to open from Sunday amid heatwave

The government today decided to reopen secondary schools, colleges, madrasas, and technical education institutions and asked the authorities concerned to resume regular classes and activities in those institutes from Sunday amid the ongoing heatwave

2h ago