ফুটবল

ইন্টারকে সহজেই হারাল মেসিহীন বার্সেলোনা

উসমান দেম্বেলে ছিলেন। ছিলেন ম্যালকমও। কিন্তু তাদের রেখে মিডফিল্ডার রাফিনহাকে লিওনেল মেসির জায়গায় খেলালেন কোচ এরনেস্তো ভালভেরদে। আর কেন তাকে খেলিয়েছেন তা কড়ায়গণ্ডায় বুঝিয়ে দিয়েছেন এ ব্রাজিলিয়ান। দারুণ এক গোলে দলকে এগিয়ে দেন তিনি। শেষ দিকে জর্দি আলবার আরেক গোলে ইন্টার মিলানের বিপক্ষে সহজ জয় নিয়েই মাঠ ছেড়েছে বার্সেলোনা।

উসমান দেম্বেলে ছিলেন। ছিলেন ম্যালকমও। কিন্তু তাদের রেখে মিডফিল্ডার রাফিনহাকে লিওনেল মেসির জায়গায় খেলালেন কোচ এরনেস্তো ভালভেরদে। আর কেন তাকে খেলিয়েছেন তা কড়ায়গণ্ডায় বুঝিয়ে দিয়েছেন এ ব্রাজিলিয়ান। দারুণ এক গোলে দলকে এগিয়ে দেন তিনি। শেষ দিকে জর্দি আলবার আরেক গোলে ইন্টার মিলানের বিপক্ষে সহজ জয় নিয়েই মাঠ ছেড়েছে বার্সেলোনা।

চ্যাম্পিয়ন্স লিগে সাফল্যের ধারা ধরে রেখে এদিন ম্যাচের প্রায় পুরোটা সময় আধিপত্য বিস্তার করে খেলে বার্সেলোনা। ন্যু ক্যাম্পে নিয়মিত অধিনায়ক মেসিকে ছাড়াই তাদের জয়টি আসে ২-০ গোলের ব্যবধানে। তবে জয়টি হতে পারতো আরও বড়। লুইস সুয়ারেজ ও ফিলিপ কৌতিনহো বেশ কিছু সহজ সুযোগ মিস করেছেন। ৬৭ শতাংশ বল পায়ে রেখে মোট ২১টি শট নেয় তারা। যার মধ্যে লক্ষ্যে ছিল ১১টি।

ম্যাচের ১৩ মিনিটে কৌতিনহোর দূরপাল্লার শট অল্পের জন্য লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়। ১৬ মিনিটে ইভান পেরিসিচের পাসে পা ছুঁইয়েছিলেন মাউরো ইকার্দি। কিন্তু বারের সামান্য উপর দিয়ে গেলে গোল পায়নি ইন্টার। ১৮ মিনিটে দারুণ সুযোগ পেয়েছিল বার্সেলোনা। কর্নার থেকে ক্লেমোঁ লিংলের নেওয়া হেড দারুণ দক্ষতায় ফিরিয়ে দেন ইন্টার গোলরক্ষক সামির হেন্দানোভিচ।

২৫ মিনিটে ফাঁকায় বল পেয়ে গিয়েছিলেন ইকার্দি। কিন্তু শট নিতে দেরি করায় তালগোল পাকিয়ে ফেলেন তিনি। ৩২ মিনিটে গোল পায় বার্সেলোনা। সুয়ারেজের দারুণ এক ক্রস থেকে আলতো ভলিতে লক্ষ্যভেদ করেন রাফিনহা। ছয় মিনিট পর দূরপাল্লার দারুণ এক শট নিয়েছিলেন ইন্টার মিডফিল্ডার মেতিয়াস ভেসিনো। কিন্তু অল্পের জন্য লক্ষ্যে থাকেনি।

৫০ মিনিটে প্রায় সমতায় ফিরে আসছিল ইন্টার। মাত্তেও পালিতানোর শট ঝাঁপিয়ে পরে দুর্দান্ত দক্ষতায় ঠেকিয়ে দেন গোলরক্ষক মার্ক টের স্টেগান। পরের মিনিটে গোল করার সহজ সুযোগ মিস করে ইন্টার।  ফাঁকায় বল পেয়েও লক্ষ্যে শট নিতে পারেননি পালিতানো। ৫৯ মিনিটে একক প্রচেষ্টায় তিন ডিফেন্ডারকে কাটিয়ে দারুণ এক শট নিয়েছিলেন সুয়ারেজ। তবে দারুণ দক্ষতায় তা ফিরিয়ে দেন ইন্টার গোলরক্ষক।

৬১ মিনিটে দিনের সবচেয়ে সহজ সুযোগটি পেয়েছিলেন লিংলে। গোলরক্ষককে একা পেয়েও সোজাসুজি শট নিয়ে মিস করেন ফরাসি ডিফেন্ডার। ৭০ মিনিটে সুয়ারেজের হেড ঠেকিয়ে দেন ইন্টার গোলরক্ষক। ফিরতি বল থেকে নেওয়া কৌতিনহোর শট ক্রসবারে লেগে ফিরে আসে। ৮২ মিনিটে রাকিতিচের নেওয়া দূরপাল্লার শট অল্পের জন্য লক্ষ্যে থাকেনি। ৮৩ মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ করে বার্সা। রাকিতিচের সঙ্গে বল দেওয়া নেওয়া করে কোনাকুনি শটে লক্ষ্যভেদ করেন এ স্প্যানিশ তারকা।

৯০ মিনিটে সুয়ারেজকে ফাঁকায় দারুণ এক পাস দিয়েছিলেন আলবা। কিন্তু সুয়ারেজের শট ঝাঁপিয়ে পরে ফিরিয়ে দেন গোলরক্ষক। তবে তাতে বার্সার জয়ে বাধা হয়নি। ২-০ গোলের দারুণ জয় নিয়েই মাঠ ছাড়ে স্প্যানিশ চ্যাম্পিয়নরা। তিন ম্যাচে ৯ পয়েন্ট নিয়ে আছে ‘বি’ গ্রুপের শীর্ষে আছে বার্সেলোনা। ৬ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে আছে ইন্টার মিলান।

Comments