ভাবনায় এক পেসারও

সকালে মাঠে ঢুকেই উইকেট দেখতে গেলেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। তার পিছু নেন প্রধান কোচ স্টিভ রোডসও। উইকেট দেখে দুজনের মধ্যে একান্ত আলাপ চলল কিছুক্ষণ। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে প্রথম টেস্টে কেমন একাদশ খেলানো যায়, এই নিয়েই হয়তো পরিকল্পনা। সংবাদ সম্মেলনে অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ যা জানালেন তাতে ইঙ্গিত খুব বেশি পেস বান্ধব হচ্ছে না সিলেটের উইকেট।
খালেদ-মোস্তাফিজ-রাহি-শফিউল
একসঙ্গে স্কোয়াডে থাকা চার পেসার। এদের মধ্যে দুজনের বেশি খেলার সম্ভাবনা নেই সিলেট টেস্টে। ছবি: ফিরোজ আহমেদ

সকালে মাঠে ঢুকেই উইকেট দেখতে গেলেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। তার পিছু নেন প্রধান কোচ স্টিভ রোডসও। উইকেট দেখে দুজনের মধ্যে একান্ত আলাপ চলল কিছুক্ষণ। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে প্রথম টেস্টে কেমন একাদশ খেলানো যায়, এই নিয়েই হয়তো পরিকল্পনা। সংবাদ সম্মেলনে অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ যা জানালেন তাতে ইঙ্গিত খুব বেশি পেস বান্ধব হচ্ছে না সিলেটের উইকেট।

সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে পেসাররা বাড়তি সুবিধা পান বলে ঘরোয়া ক্রিকেটে দেখা গেছে। তবে জাতীয় লিগের চলতি মৌসুমে এই মাঠের উইকেট ছিল পুরোপুরি স্পিন বান্ধব। স্পিনে দুর্বল জিম্বাবুয়ের বিপক্ষেও যে তাই থাকবে তা অনুমিতই।

অধিনায়কের কথাতেও তা পরিষ্কার, ‘আজ সকালে উইকেট দেখেছি। আগামীকাল সকালেও দেখব। কিছুটা শুষ্ক আছে এই মুহূর্তে। মাঝে কিছু ঘাস রয়েছে। তবে এই মুহূর্তে আমরা খুব একটা নিশ্চিত করে কিছু বলতে পারছি না। তবে আমরা দুই পেসার, দুই স্পিনার বা তিন স্পিনার ও এক পেসার নিয়েও খেলতে পারি। এখনও নিশ্চিত না, কাল উইকেট দেখে নিশ্চিত হব।’

সাকিব আল হাসান না থাকায় ওয়ানডের মতো টেস্ট একাদশ করার ক্ষেত্রেও কিছুটা ট্রিকি হতে হচ্ছে বাংলাদেশকে। একজন বাড়তি বোলার নাকি একজন বাড়তি ব্যাটসম্যান। কোনটা খেলিয়ে পুষিয়ে নেওয়া যায় সাকিবের অভাব? অধিনায়ক পরিষ্কার করে দিলেন, যাইহোক দল প্রথম টেস্টে অন্তত পরীক্ষা নিরীক্ষায় যাচ্ছে না দল, ‘প্রথম ম্যাচে হয়তো আমরা তেমন পরীক্ষা নিরীক্ষা নাও করতে পারি। আমরা সেরা একাদশ নিয়েই খেলব। কারণ প্রথম ম্যাচটি অনেক গুরুত্বপূর্ণ। টেস্ট, ওয়ানডে কিংবা টি টুয়েন্টি যে ফরম্যাটই হোক, প্রথম ম্যাচটি সবসময়েই গুরুত্বপূর্ণ।’

‘আমরা সবসময় বিশ্বাস করি যে আমাদের শুরুটা যখন ভাল হয় আমরা আমাদের আত্মবিশ্বাস অনেক দূর পর্যন্ত নিয়ে যেতে পারি। তো সেরা একাদশটিই খেলার সুযোগ পাবে এবং আশা করি সবাই সেই সুযোগের অপেক্ষাতেই আছে।’

 

 

Comments

The Daily Star  | English

How Lucky got so lucky!

Laila Kaniz Lucky is the upazila parishad chairman of Narsingdi’s Raipura and a retired teacher of a government college.

5h ago