জিম্বাবুয়ের কাছেও বিব্রতকর হার বাংলাদেশের

বড় লক্ষ্য তাড়ায় শুরুটা খারাপ হয়নি। তবে লিটনের বিদায়ে ওপেনিং জুটি ভাঙার পর তাসের ঘরের মতো ভেঙে পরে টাইগারদের ব্যাটিং লাইনআপ। কার্যত পরাজয় তো তখনই এক প্রকার নিশ্চিত। শেষ দিকে আরিফুল হক কিছুটা চেষ্টা করলেন। তা কেবল পরাজয়ের ব্যবধান কমাছে। ভাগ্য বদলায়নি। ১৫১ রানের বড় হার মেনেই মাঠ ছেড়েছে বাংলাদেশ।

বড় লক্ষ্য তাড়ায় শুরুটা খারাপ হয়নি। তবে লিটনের বিদায়ে ওপেনিং জুটি ভাঙার পর তাসের ঘরের মতো ভেঙে পরে টাইগারদের ব্যাটিং লাইনআপ। কার্যত পরাজয় তো তখনই এক প্রকার নিশ্চিত। শেষ দিকে আরিফুল হক কিছুটা চেষ্টা করলেন। তা কেবল পরাজয়ের ব্যবধান কমাছে। ভাগ্য বদলায়নি। ১৫১ রানের বড় হার মেনেই মাঠ ছেড়েছে বাংলাদেশ।

অথচ এই জিম্বাবুয়েই কিনা শেষ ১৭ বছর ধরে দেশের বাইরে কোন জয় পায়নি। এমনকি ঘরের মাঠেও জয়টা দেখেছে ৫বছর আগে। বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা উপহার দিলেন তাদের জয়। শেষ ব্যাটসম্যান হিসেবে আরিফুল হক আউট হওয়ার পর তাই উল্লাসে মাতে জিম্বাবুয়ের খেলোয়াড়রা।

হারের ম্যাচে প্রাপ্তি কেবল আরিফুল হকই। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রানটা আসে তার ব্যাট থেকেই। ৩৮ রান করেন তিনি। সতীর্থদের সাহায্য পেলে হয়তো আরও হতে পারতো তার ইনিংস। প্রথম ইনিংসে দলের সর্বোচ্চ রানের ইনিংসটা খেলেছিলেন তিনি।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

জিম্বাবুয়ে প্রথম ইনিংস: ২৮২

দ্বিতীয় ইনিংস: ১৮১

বাংলাদেশ প্রথম ইনিংস: ১৪৩

দ্বিতীয় ইনিংস: ১৬৯ (৬৩.১ ওভার) (লক্ষ্য ৩২১) (লিটন ২৩, ইমরুল ৪৩, মুমিনুল ৯, মাহমুদউল্লাহ ১৬, শান্ত ১৩, মুশফিক ১৩, আরিফুল ৩৮, মিরাজ  ৭, তাইজুল ০, নাজমুল ০,  আবু জায়েদ  ০*; জার্ভিস ১/২৯, চাতারা ০/২৫, রাজা ৩/৪১, উইলিয়ামস ০/১৩, মাভুটা ৪/২১, ওয়েলিংটন ১/৩৩ )।

ফলাফল: জিম্বাবুয়ে ১৫১ রানে জয়ী।

খালি হাতে ফিরলেন অপুও

প্রথম বলেই এলবিডাব্লিউর ফাঁদে পড়েছেন নাজমুল ইসলাম অপু। টেন্ডাই মাভুটার বলটি রক্ষণাত্মক ভঙ্গিতেই খেলতে চেয়েছিলেন তিনি। ব্যাটে না লেগে আঘাত হানে প্যাডে।  যদিও রিভিউর আবেদন করেছিলেন অপু। তবে লাভ হয়নি।

৬১ ওভার শেষে ৯ উইকেট হারিয়ে বাংলাদেশের সংগ্রহ ১৫৫ রান। ২৪ রান নিয়ে ব্যাট করছেন আরিফুল হক। শেষ ব্যাটসম্যান আবু জায়েদ রাহী মাঠে নেমেছেন।

ওয়েলিংটনের প্রথম শিকার

প্রথম ইনিংসে কোন উইকেট পাননি।  দ্বিতীয় ইনিংসেও সতীর্থরা আগেই তুলেছেন সাত উইকেট। অভিষেক ম্যাচে তাই খালি হাতেই ফেরার পথে ছিলেন ওয়েলিংটন মাসাকাদজা। তবে তাইজুল ইসলামকে ফিরিয়ে প্রথম টেস্ট উইকেট পেলেন এ স্পিনার। নেমেই ছক্কা হাঁকাতে গিয়ে ধরা পড়েন ব্রান্ডন টেইলরের হাতে।  ৩ বলে কোন রান করতে পারেননি তাইজুল।

বিপদ বাড়িয়ে ফিরে গেলেন মিরাজ

টেন্ডাই মাভুটার দারুণ এক বলে ফিরে গেলেন মেহেদী হাসান মিরাজ।  রক্ষণাত্মক ঢঙেই খেলতে চেয়েছিলেন তিনি। তবে স্পিন করে উইকেটরক্ষক রেগিস চাকাভার হাতে যাওয়ার আগে ব্যাটে হালকা চুমু খেয়ে যায় বল। ফলে সাত উইকেট হারিয়ে হার দেখছে বাংলাদেশ দল। ১৫ বলে ৭ রান করেছেন মিরাজ।

উইকেট বিলিয়ে দিলেন মুশফিকও

১১১ রানে ৫ উইকেট হারানোর পর চাপে পড়া বাংলাদেশ তাকিয়ে ছিল উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান মুশফিকুর রহীমের দিকে। কিন্তু সতীর্থদের দেখানো পথেই হাঁটলেন তিনি। বিলাসী শটে আউট হয়েছেন তিনি। লেগস্পিনার টেন্দাই মাভুটার বলে সুইপ করতে গেলে টপ এজ হয়ে ধরা পড়েন ওয়েলিংটন মাসাকাদজার হাতে। ৪৪ বলে ১৩ রান করেছেন মুশফিক।

৫৫ ওভার শেষে বাংলাদেশের সংগ্রহ ৬ উইকেটে ১৩৪ রান। ৯ রান নিয়ে ব্যাট করছেন আরিফুল হক। নতুন ব্যাটসম্যান হিসেবে মাঠে নেমেছেন মেহেদী হাসান মিরাজ।   

লাঞ্চের আগে উইকেট বিলিয়ে ফিরলেন শান্ত

লাঞ্চের আগে শেষ ওভারের খেলা চলছিল। টেন্দাই মাভুতার করা বলটা প্রায় কাঁধ সমান উঁচু হয়েছিল। কিন্তু কি করলেন শান্ত। আলতো চিপে যেন সিকান্দার রাজাকে ক্যাচিং অনুশীলন করালেন। ফলে লাঞ্চের আগেই পাঁচ উইকেট হারিয়ে বড় বিপদে পড়েছে বাংলাদেশ। পরাজয়টা ক্রমেই কাছে আসছে। ৩২ বলে ১৩ রান করেছেন শান্ত।

৪৭ ওভার শেষে বাংলাদেশের সংগ্রহ ৫ উইকেটে ১১১ রান। ৩ রানে উইকেটে আছেন মুশফিকুর রহীম।

মাহমুদউল্লাহর বিদায়ে বাড়ল বিপদ

বাংলাদেশের বিপদ বাড়িয়ে সাজঘরে ফিরেছেন অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। নিজের উইকেট এক প্রকার উপহারই দিয়েছেন অধিনায়ক। সিকান্দার রাজার বলে সুইপ করতে গেলে ব্যাটের কানায় লেগে হ্যালমেটে লেগে চলে যায় শর্ট লেগে দাঁড়ানো ক্রেইগ আরভিনের হাতে। ফলে বড় বিপদেই পড়েছে বাংলাদেশ। ৪৫ বলে ১৬ রান করেছেন মাহমুদউল্লাহ।

৪৩ ওভার শেষে বাংলাদেশের সংগ্রহ ৪ উইকেটে ১০৩ রান। ১১ রান নিয়ে ব্যাট করছেন তরুণ নাজমুল হোসেন শান্ত। নতুন ব্যাটসম্যান হিসেবে মাঠে নেমেছেন উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান মুশফিকুর রহীম।

ইমরুলকে হারিয়ে বিপদে বাংলাদেশ

ধীরে ধীরে স্পিনারদের স্বর্গরাজ্য হয়ে উঠছে সিলেটের উইকেট। দারুণ টার্ন পাচ্ছেন স্পিনাররা। সে ধারায় দারুণ এক ঘূর্ণিতে ইমরুল কায়েসকে। তবে বিপদটা ডেকে আনেন ইমরুল। প্যাডেল সুইপ করতে গিয়ে লাইন মিস করলে বোল্ড হয়ে যান তিনি।  আউট হওয়ার আগে ১০৩ বলে ৬টি চারের সাহায্যে ৪৩ রান করেন তিনি।

৩৭ ওভার শেষে বাংলাদেশের সংগ্রহ ৩ উইকেটে ৮৪ রান। ৯ রান নিয়ে ব্যাট করছেন অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। নতুন ব্যাটসম্যান হিসেবে মাঠে নেমেছেন নাজমুল হোসেন শান্ত।

ফিরলেন মুমিনুলও

লিটন কুমার দাস আউট হওয়ার পর বেশিক্ষণ টিকতে পারলেন না মুমিনুলও। কাইল জার্ভিসের করা অফ স্টাম্পের বাইরের বল খেলতে গিয়ে ব্যাটের কানায় লেগে বোল্ড হন তিনি। অনেকটা প্রথম ইনিংসে ইমরুল কায়েসের আউটের পুনরাবৃত্তি। ১৩ বলে ২টি চারের সাহায্যে ৯ রান করেছেন মুমিনুল।

২৮ ওভার শেষে বাংলাদেশের সংগ্রহ ২ উইকেটে ৬৮ রান। ৩৫ রান নিয়ে ব্যাট করছেন ইমরুল। নতুন ব্যাটসম্যান হিসেবে মাঠে নেমেছেন অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ।  

রিভিউ নিয়ে লিটনকে ফেরাল জিম্বাবুয়ে

বড় লক্ষ্য তাড়ায় দারুণভাবেই এগিয়ে যাচ্ছিল বাংলাদেশ। ৫৬ রানের দারুণ ওপেনিং জুটিও এসেছিল। কিন্তু সে জুটি ভেঙেছে জিম্বাবুয়ে। রিভিউ নিয়ে লিটন কুমার দাসকে ফিরিয়েছে তারা। সিকান্দার রাজার বলে পুল করতে চেয়েছিলেন লিটন। মিস করলে প্যাডে লাগে বল। রিভিউতে দেখা যায় আউট ছিলেন তিনি। ৭৫ বলে ৩টি চারে ২৩ রান করেছেন লিটন।

২৩ ওভার শেষে বাংলাদেশের সংগ্রহ ১ উইকেটে ৫৬ রান। ৩৩ রান নিয়ে ব্যাট করছেন ইমরুল। নতুন ব্যাটসম্যান হিসেবে মাঠে নেমেছেন মুমিনুল। 

ইমরুল-লিটনের জুটিতে পঞ্চাশ

রেকর্ড লক্ষ্য তাড়ায় দারুণ শুরু করেছে বাংলাদেশ। এর মধ্যেই ওপেনিং জুটিতে এসেছে পঞ্চাশ রান। দারুণ ব্যাট করছেন লিটন কুমার দাস। তবে কিছুটা সেকি আছেন ইমরুল কায়েস। দুই দুইবার জীবন পেয়েছেন। কাইল জার্ভিসের ২০তম ওভারের শেষ বলেই একবার জীবন পান। মিস করায় বল চলে সীমানার বাইরে। তাতেই বাংলাদেশ পায় পঞ্চাশ রানের জুটি। ইমরুল ২৬ ও লিটন ২২ রানে ব্যাট করছেন।

জিততে হলে রেকর্ড গড়তে হবে বাংলাদেশকে

সিলেট টেস্টে জয় পেতে হলে নিজেদের নতুন রেকর্ডই গড়তে হবে বাংলাদেশকে। কারণ ৩২১ রানের বড় লক্ষ্যই ছুড়ে দিয়েছে সফরকারী জিম্বাবুয়ে। এর আগে ২০০৯ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সর্বোচ্চ ২১৫ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে পেরেছিল টাইগাররা। তাই বাংলাদেশের সামনে তাই বড় চ্যালেঞ্জ।

তবে আগের দিন কোন উইকেট না হারিয়ে ২৬ রান করেছে টাইগাররা। জয়ের জন্য আরও প্রয়োজন ২৯৫ রান। সামনে রয়েছে দুটি দিন।

তৃতীয় দিন শেষে সংক্ষিপ্ত স্কোর:

জিম্বাবুয়ে প্রথম ইনিংস:  ২৮২

দ্বিতীয় ইনিংস: ১৮১

বাংলাদেশ প্রথম ইনিংস: ১৪৩

দ্বিতীয় ইনিংস: (লক্ষ্য ৩২১) ১০.১ ওভারে ২৬/০ (লিটন ব্যাটিং ১৩, ইমরুল ব্যাটিং ১২;  জার্ভিস ০/১১, চাতারা ০/১৪)।

Comments

The Daily Star  | English

Small businesses, daily earners scorched by heatwave

After parking his motorcycle and removing his helmet, a young biker opened a red umbrella and stood on the footpath.

1h ago