‘গায়েবি মামলা’র তালিকা এবার নির্বাচন কমিশনে দিল বিএনপি

গত কয়েক মাসে বিএনপির নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে যেসব মামলা হয়েছে তার একটি তালিকা নির্বাচন কমিশনে জমা দিয়েছে দলটি। বিএনপির দাবি, আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে তাদের নেতাকর্মীদের নামে মিথ্যা মামলা, বাড়িতে বাড়িতে তল্লাশি ও গ্রেপ্তার অভিযান অব্যাহত রেখেছে।

গত কয়েক মাসে বিএনপির নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে যেসব মামলা হয়েছে তার একটি তালিকা নির্বাচন কমিশনে জমা দিয়েছে দলটি। বিএনপির দাবি, আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে তাদের নেতাকর্মীদের নামে মিথ্যা মামলা, বাড়িতে বাড়িতে তল্লাশি ও গ্রেপ্তার অভিযান অব্যাহত রেখেছে।

তফসিল ঘোষণা হয়ে যাওয়ার পর আইন শৃঙ্খলা বাহিনী নির্বাচন কমিশনের অধীন থাকায় প্রতিকার চেয়ে এসব মামলার তালিকা এবার নির্বাচন কমিশনে জমা দিল দলটি।

১ নভেম্বর সংলাপের সময় প্রধানমন্ত্রীকে গায়েবি মামলার ব্যাপারে অভিযোগ জানান বিএনপির নেতারা। তখন গ্রেপ্তার নেতাকর্মীদের তালিকা চেয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, তদন্ত করে তিনি এ ব্যাপারে ব্যবস্থা নেবেন। এর পরই ৬ ও ১৩ নভেম্বর দুই দফায় প্রধানমন্ত্রী বরাবর দুই হাজারের বেশি মামলার তালিকা দিয়েছিল বিএনপি।

কিন্তু দলটির পক্ষ থেকে এখন অভিযোগ করে বলা হচ্ছে, প্রধানমন্ত্রীর প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী মামলার তালিকা তারা দিলেও মামলাগুলি প্রত্যাহারের ব্যাপারে কার্যকর কোনো পদক্ষেপ নেওয়া হয়নি। এমনকি তাদের নেতাকর্মীদের মুক্তি দেওয়ার ব্যাপারে কোনো ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে কি না সেব্যাপারেও বিএনপিকে আনুষ্ঠানিকভাবে কিছু জানায়নি সরকার।

আজ নির্বাচন কমিশনে মামলার তালিকার সঙ্গে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর স্বাক্ষরিত একটি চিঠিও দেওয়া হয়। প্রধান নির্বাচন কমিশনার বরাবর প্রেরিত এই চিঠিতে অভিযোগ করে বলা হয়, তফসিল ঘোষণার পর আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী নির্বাচন কমিশনের অধীন হলেও তারা কমিশনের নির্দেশ উপেক্ষা করে বিএনপির নেতাকর্মীদের গ্রেপ্তার ও বাড়িতে তল্লাশি অভিযান অব্যাহত রেখেছে। তফসিল ঘোষণার পর এখন পর্যন্ত নতুন করে বিএনপির ৭৭৩ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলেও চিঠিটিতে উল্লেখ করা হয়েছে।

Comments

The Daily Star  | English
national election

Human rights issues in Bangladesh: US to keep expressing concerns

The US will continue to express concerns on the fundamental human rights issues in Bangladesh including the freedom of the press and freedom of association and urge the government to uphold those, said a senior US State Department official

6m ago