মধ্যপ্রদেশের এক তৃতীয়াংশ বিধায়ক পেরোতে পারেননি স্কুলের গণ্ডি

ভারতের মধ্যপ্রদেশ বিধানসভার নতুন বিধায়কদের এক তৃতীয়াংশের শিক্ষাগত যোগ্যতার খবর গণমাধ্যমে প্রকাশ হওয়ার পর শুরু হয়েছে বিতর্ক।
ছবি: এএফপি

ভারতের মধ্যপ্রদেশ বিধানসভার নতুন বিধায়কদের এক তৃতীয়াংশের শিক্ষাগত যোগ্যতার খবর গণমাধ্যমে প্রকাশ হওয়ার পর শুরু হয়েছে বিতর্ক।

সংশ্লিষ্ট কয়েকজন বিধায়কের দেওয়া হলফনামার উদ্বৃতি দিয়ে বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমের প্রকাশিত খবর বলছে, ২৩০ আসন বিশিষ্ট মধ্যপ্রদেশ বিধানসভার নবনির্বাচিত বিধায়কদের এক তৃতীয়াংশ পেরোতে পারেনি স্কুলের গণ্ডি।

তথ্য অনুযায়ী, নবনির্বাচিত বিধায়কদের মধ্যে ১২ জন শুধুমাত্র স্বাক্ষরটুকু করতে পারেন বা ক্লাস ফাইভ পর্যন্ত পড়েছেন। সাত জন বিধায়কের শিক্ষাগত যোগ্যতা অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত। ১৩ জন বিধায়ক পাশ করেছেন দশম শ্রেণি আর ৩৭ জন বিধায়ক দ্বাদশ পরীক্ষা দিয়েই থমকে গিয়েছেন। যদিও এই নিয়ে বিধায়কদের মধ্যে কোনও খেদ নেই।

শুধুমাত্র নিজের স্বাক্ষর করতে পারেন মধ্যপ্রদেশের নিওয়ারি কেন্দ্রের বিধায়ক অনিল জৈন। তিনি জানান, আমি এই নিয়ে দ্বিতীয়বার বিধায়ক নির্বাচিত হলাম। মানুষের কাজ করার জন্য আমার কোনও প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষার প্রয়োজন পড়ে না।

তবে মজার বিষয় হলো, শিক্ষায় পিছিয়ে থাকলেও ধন সম্পত্তিতে কিন্তু এগিয়ে রয়েছেন এই বিধায়করা।

শিক্ষাগত যোগ্যতা শুধুমাত্র সই করতে পারা, এমন বিধায়কের মধ্যে সবচেয়ে গরিব বিধায়ক হলেন বহুজন সমাজবাদী পার্টির রামবাই গোবিন্দ। তার সম্পত্তির পরিমাণ মাত্র ৯৬ লক্ষ টাকা।

উল্লেখ্য, গত ২৮ নভেম্বর অনুষ্ঠিত এই নির্বচনের ভোট গণণা হয় ১১ ডিসেম্বর। ঘোষিত ফলাফল বলছে রাজ্যটিতে ১১৪টি আসনে জয় পেয়েছে কংগ্রেস। আর গত তিন বারের ক্ষমতাসীন বিজেপি এবার পেয়েছে ১০৯টি আসন।

Comments

The Daily Star  | English

288 Myanmar security personnel sent back from Bangladesh

Bangladesh this morning repatriated 288 members of Myanmar's security forces, who had crossed the border to flee the conflict between Myanmar's military junta and the Arakan Army

6m ago