শীর্ষ খবর

বগিবিল সেতু: চলতে পারবে ট্যাঙ্ক, নামতে পারবে যুদ্ধবিমান

ভারতের উত্তরপূর্ব রাজ্যগুলোতে বা প্রতিবেশী চীনের সঙ্গে বিরোধপূর্ণ সীমান্তে দেশটির সবচেয়ে শক্তিশালী ট্যাঙ্ক পাঠাতে হলে এখন তা স্বল্প সময়ের মধ্যে পাঠানো যাবে। এর জন্যে ব্যবহার করা হবে নবনির্মিত ‘বগিবিল সেতু’।
Narendra Modi
২৫ ডিসেম্বর ২০১৮, আসামের ব্রহ্মপুত্র নদের ওপর নির্মিত বগিবিল সেতু উদ্বোধনের পর এর ওপর দিয়ে হেঁটে যাচ্ছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। ছবি: সংগৃহীত

ভারতের উত্তরপূর্ব রাজ্যগুলোতে বা প্রতিবেশী চীনের সঙ্গে বিরোধপূর্ণ সীমান্তে দেশটির সবচেয়ে শক্তিশালী ট্যাঙ্ক পাঠাতে হলে এখন তা স্বল্প সময়ের মধ্যে পাঠানো যাবে। এর জন্যে ব্যবহার করা হবে নবনির্মিত ‘বগিবিল সেতু’।

ভারতীয় গণমাধ্যম জানায়, ৪.৯ কিলোমিটার এই সেতুর ওপর দিয়ে ৬০ টন ওজনের যুদ্ধ ট্যাঙ্ক চলাচল করতে পারবে। এমনকি, যুদ্ধবিমানও নামতে পারবে সেতুটির ওপর।

১৯৯৭ সালে সেতুটির ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেছিলেন প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী এইচ ডি দেবগৌড়া। এরপর, সম্ভাব্যতা যাচাই করে ২০০২ সালে নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করেছিলেন তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী অটল বিহারী বাজপেয়ি।

Bogibeel Bridge
ভারতের আসাম রাজ্যে ব্রহ্মপুত্র নদের ওপর নির্মিত বগিবিল দ্বিতল সেতু। ছবি: সংগৃহীত

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি গতকাল (২৫ ডিসেম্বর) প্রয়াত বাজপেয়ির জন্মদিনে দেশটির অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ এই সেতুটি উদ্বোধন করেন। দেশটির সবচেয়ে দীর্ঘ এই দ্বিতল সেতু নির্মাণে খরচ হয়েছে ৫ হাজার ৯০০ কোটি রুপি।

সেতুর উপরের তলায় রয়েছে তিন লেনের সড়কপথ। সেই পথে চলছে বাস, ট্রাক, লরিসহ যাবতীয় যানবাহন। আর নীচে ডবল লাইন দিয়ে চলছে ট্রেন। এটি ভারতের দীর্ঘতম দ্বিতল সেতু হিসেবে বিবেচিত হচ্ছে।

Bogibeel Bridge
ভারতের আসাম রাজ্যে ব্রহ্মপুত্র নদের ওপর নির্মিত বগিবিল দ্বিতল সেতু। ছবি: সংগৃহীত

দেশটির আসাম রাজ্যে ব্রহ্মপুত্র নদের ওপর নির্মিত এই দ্বিতল সেতুটি আসামের ডিব্রুগড় জেলা থেকে চীন সীমান্তবর্তী অরুণাচল প্রদেশের রাজধানী ইটানগরের মধ্যে দূরত্ব কমিয়ে দিয়েছে প্রায় ৭৫০ কিলোমিটার।

বগিবিল সেতুর উদ্বোধনের দিনে সাবেক প্রধানমন্ত্রী দেবগৌড়াকে আমন্ত্রণ না জানানোয় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন তিনি। বলেছেন, সেতু প্রকল্পের কাজ তিনি শুরু করলেও আজ তাকে ভুলে গেছে জনগণ।

আরও পড়ুন:

৬ হাজার কোটি রুপিতে ৫ কিলোমিটার দ্বিতল সেতু

Comments

The Daily Star  | English

The taste of Royal Tehari House: A Nilkhet heritage

Nestled among the busy bookshops of Nilkhet, Royal Tehari House is a shop that offers students a delectable treat without burning a hole in their pockets.

25m ago