বর্ণবাদের বিপক্ষে আওয়াজ তুললেন রোনালদো

মাঠে মাঝে মধ্যেই খেলোয়াড়রা নানা ভাবে বর্ণবাদের স্বীকার হন। ফুটবলেও এ ঘটনা খুব বেশি অনিয়মিত নয়। সিরিএ’তে নাপোলির সঙ্গে গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে আগের দিন ইন্টার মিলানের সমর্থকদের বিপক্ষেও এমন অভিযোগ উঠেছে। মাঠে নাপোলির সেনেগাল বংশোদ্ভূত ফরাসী খেলোয়াড় কালিদু কৌলিবালিকে বানর বলে খেপিয়েছেন তারা। আর এ ঘটনায় প্রতিবাদ করেছেন হালের অন্যতম সেরা খেলোয়াড় ক্রিস্তিয়ানো রোনালদো।

মাঠে মাঝে মধ্যেই খেলোয়াড়রা নানা ভাবে বর্ণবাদের স্বীকার হন। ফুটবলেও এ ঘটনা খুব বেশি অনিয়মিত নয়। সিরিএ’তে নাপোলির সঙ্গে গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে আগের দিন ইন্টার মিলানের সমর্থকদের বিপক্ষেও এমন অভিযোগ উঠেছে। মাঠে নাপোলির সেনেগাল বংশোদ্ভূত ফরাসী খেলোয়াড় কালিদু কৌলিবালিকে বানর বলে খেপিয়েছেন তারা। আর এ ঘটনায় প্রতিবাদ করেছেন হালের অন্যতম সেরা খেলোয়াড় ক্রিস্তিয়ানো রোনালদো।

ইতালিয়ান লিগের হেভিওয়েট ম্যাচে শেষ মুহূর্তের গোলে জয় পায় ইন্টার। তার আগে ম্যাচের ৮১ মিনিটে মেজাজ হারিয়ে লাল কার্ড দেখেন কালিদু। প্রথমে পোলিতানোকে ফাউল করে হলুদ কার্ড দেখেন। এরপর রেফারির এমন সিদ্ধান্তে ব্যঙ্গাত্মক হাততালি দিয়ে দেখেন লাল কার্ড। মূলত বর্ণবাদের শিকার হওয়াতেই মেজাজ ধরে রাখতে পারেননি এ ফরাসী।

ম্যাচে শেষে তাই হারের দায় ইন্টার সমর্থকদের বর্ণবাদী আচরণকে  দিয়েছেন নাপোলির কোচ কার্লো আনচেলোত্তি, ‘বাজে মন্তব্য শুনতে শুনতে সে নিজের ধৈর্য আর ধরে রাখতে পারেনি। যা হয়েছে সেটা শুধু আমাদের জন্য না, ইতালিয়ান ফুটবলের জন্যই খারাপ। কৌলিবালির লাল কার্ডের প্রভাব ম্যাচেও পড়েছে, আমরা ১০ জনের দল নিয়ে গোল খেয়ে ম্যাচ হেরেছি।’

আর ঘটনা ইতালির গণ্ডি পার হয়ে ছড়িয়ে পড়েছে সমগ্র বিশ্বে। বিষয়টি পছন্দ হয়নি রোনালদোরও। তাই প্রতিদ্বন্দ্বী খেলোয়াড় হলেও তার পাশে দাঁড়িয়েছেন এ পর্তুগিজ। ইনস্টাগ্রামে কালিদুর সঙ্গে মাঠে নিজের একটি মুহূর্তের ছবি আপলোড দিয়ে ক্যাপশন দিয়েছেন, ‘পৃথিবীতে এবং ফুটবলে আমি সবসময় শিক্ষা এবং শ্রদ্ধা চাই। বর্ণবাদ এবং যে কোন ধরণের বৈষম্যকে না বলুন।’

আনচেলত্তি অবশ্য অভিযোগ তুলেই শান্ত হননি, আগামীতে এমন ঘটনা ঘটলে ম্যাচ বর্জন করবেন বলেও হুমকি দিয়েছেন, ‘যদি এরকম আবার হয়, আমরা খেলা বন্ধ করে মাঠ ছাড়বো। যদি এতে আমাদের হারতেও হয় তাও মেনে নেবো। আমরা কৌলিবালির বিরুদ্ধে বর্ণবাদী মন্তব্যের প্রতিবাদ জানিয়েও কোনো ফল পাইনি। তিনবার খেলা বন্ধ রাখার অনুরোধ করেছিলাম, সেটাও রাখা হয়নি।’

Comments

The Daily Star  | English

Foreign airlines’ $323m stuck in Bangladesh

The amount of foreign airlines’ money stuck in Bangladesh has increased to $323 million from $214 million in less than a year, according to the International Air Transport Association (IATA).

14h ago