একই দিনে একই উইকেটের কেন দুই রূপ

মিরপুরের উইকেটে চার-ছক্কার বৃষ্টি হয় না, টি-টোয়েন্টির ধামাকা মেলে না, ব্যাটসম্যানরা ধুঁকে মরেন, ম্যাচ হয় ম্যাড়ম্যাড়ে। রহস্যের জাল বিছিয়ে রাখা মিরপুরের বাইশ গজের তাই অনেক বদনাম। বিশেষ করে বিপিএল এলেই শুরু হয় উইকেট নিয়ে হাহাকার। প্রায় প্রতিদলই জানিয়ে যায় রান করা, শট খেলা কতটা কষ্ট এখানে। কিন্তু রান খরটা দুপুরের ম্যাচগুলোতে যতটা সত্য রাতে ততটা নয়। এবারের আসরের শুরুর দুই দিনেও মিলল তেমন ছবি।
প্রথম ম্যাচে দুপুরে নেমে মাত্র ৯৮ রানে গুটিয়ে গিয়েছিল রংপুর। পরের দিন রাতে নেমে করেছে ১৬৯ রান। ছবি: ফিরোজ আহমেদ

মিরপুরের উইকেটে চার-ছক্কার বৃষ্টি হয় না, টি-টোয়েন্টির ধামাকা মেলে না, ব্যাটসম্যানরা ধুঁকে মরেন, ম্যাচ হয় ম্যাড়ম্যাড়ে। রহস্যের জাল বিছিয়ে রাখা মিরপুরের বাইশ গজের তাই অনেক বদনাম। বিশেষ করে বিপিএল এলেই শুরু হয় উইকেট নিয়ে হাহাকার। প্রায় প্রতিদলই জানিয়ে যায় রান করা, শট খেলা কতটা কষ্ট এখানে। কিন্তু রান খরটা দুপুরের ম্যাচগুলোতে যতটা সত্য রাতে ততটা নয়। এবারের আসরের শুরুর দুই দিনেও মিলল তেমন ছবি।

দুপুর সাড়ে ১২টায় শুরু হওয়া টুর্নামেন্টের উদ্বোধনী ম্যাচে মাত্র ৯৮ রানে অলআউট হয়ে যায় বর্তমান চ্যাম্পিয়ন রংপুর রাইডার্স। ওই রান তুলতেও ৭ উইকেট হারিয়ে শেষ ওভার পর্যন্ত খেলতে হয়েছে চিটাগাং ভাইকিংসকে। মন্থর পিচে ব্যাটে বল আসছিল না ঠিকমতো। অথচ একই উইকেটে খানিকক্ষণ পরে শুরু হওয়া ম্যাচে মিলল ভিন্ন ছবি।

চার-ছক্কার ধামাকায় ঢাকা ডায়নামাইটস করে ফেলল ১৮৯ রান। জবাবে ১০৬ রানে রাজশাহী কিংস থামলেও উইকেটের চেয়েও বেশি দায় ছিল তাদের ব্যাটসম্যানদেরই।

দ্বিতীয় দিনেও পাল্টায়নি চেহারা। দুপুরের ম্যাচে সিলেট সিক্সার্স জড়ো করতে পারে ১২৭ রান, ওই রান টপকাতে গিয়েও শেষ ওভার পর্যন্ত খেলতে হয়েছে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সকে। একই উইকেটে রাতের ম্যাচে দুদলের ইনিংসেই রান এসেছে ভালোই, দেখা মিলেছে চার-ছয়ের। প্রথম দিনে ৯৮ রানে গুটিয়ে যাওয়া রংপুর একই দল দিয়ে দ্বিতীয় দিন রাতের ম্যাচে করে ১৬৯ রান। রান তাড়ায় ১৬১ পর্যন্ত গিয়ে শেষ ওভারে হারে খুলনা টাইটান্স।

প্রথম দিনের খেলা শেষে রংপুর রাইডার্সের রবি বোপারা বললেন এই উইকেট বড়জোর ১৩০ রানের। আর ম্যাচ সেরা চিটাগাং ভাইকিংসের রবি ফ্রাইলিঙ্ক মনে করেন এখানে ১২০ রানই যথেষ্ট।

ওই দিনই রাতে নামা মেহেদী হাসান মিরাজ নিজেদের ব্যাটিং ব্যর্থতা স্বীকার করে জানান, ‘এই উইকেটে ১৫০/১৬০ রান করা যায়।’

রাতের ম্যাচে উইকেটে রান বেশি থাকার জুতসই ব্যাখ্যাও দিয়েছেন মিরাজ, ‘প্রথম ম্যাচ যখন খেলা হয় তখন শিশির থাকে না। তখন বল একটু দেরিতে আসে, টার্ন করে। দ্বিতীয় ম্যাচে শিশির পড়ে তখন বলের মুভমেন্ট থাকে না। বোলাররা তখন কোনো সহায়তা পায় না। আমার মনে হয়, পরের ম্যাচে যদি ব্যাটসম্যানরা ভালো করে, সবাই অবদান রাখে তাহলে দেড়শ ছাড়ানো রান করা সম্ভব।’

তবে রাতের ম্যাচেও যে উইকেট টি-টোয়েন্টির চিরায়ত বিজ্ঞাপনের মতো, তেমনটা নয়। রংপুরের দক্ষিণ আফ্রিকান ব্যাটসম্যান রাইলি রুশো দুদিনে দিন-রাতে দুই পরিস্থিতিতেই খেলেছেন। রান পেয়েছেন রাতের ম্যাচে। ৫২ বলে ৭৬ রানের ইনিংস খেলে দলকে জিতিয়ে আসার পর বলেছেন, রাতেও উইকেট যে খুব সহজ এমন না। রাতে বল স্কিড করায় ব্যাটে আসে দ্রুত। এতে কিছুটা সুবিধা পাওয়া যায়।

 

Comments

The Daily Star  | English
Bangladesh Expanding Social Safety Net to Help More People

Social safety net to get wider and better

A top official of the ministry said the government would increase the number of beneficiaries in two major schemes – the old age allowance and the allowance for widows, deserted, or destitute women.

5h ago