শীর্ষ খবর

বাড়ি বাড়ি গিয়ে ভোটার আনতে পারবো না: সিইসি

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র পদে উপনির্বাচন চলছে আজ। অথচ অনেকগুলো ভোটকেন্দ্রগুলো পরিদর্শন করে ভোটারদের উপস্থিতি তেমন দেখা যায়নি। নির্বাচনের কাজে নিয়োজিত অনেক কর্মকর্তাকে ভোটকেন্দ্রে ঝিমুতেও দেখা গেছে। এমন পরিস্থিতিতে নির্বাচন কমিশন (ইসি) বাড়ি বাড়ি গিয়ে ভোটার আনতে পারবে না বলে জানিয়েছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নূরুল হুদা।
cec
প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নূরুল হুদা। ফাইল ছবি

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র পদে উপনির্বাচন চলছে আজ। অথচ অনেকগুলো ভোটকেন্দ্রগুলো পরিদর্শন করে ভোটারদের উপস্থিতি তেমন দেখা যায়নি। নির্বাচনের কাজে নিয়োজিত অনেক কর্মকর্তাকে ভোটকেন্দ্রে ঝিমুতেও দেখা গেছে। এমন পরিস্থিতিতে নির্বাচন কমিশন (ইসি) বাড়ি বাড়ি গিয়ে ভোটার আনতে পারবে না বলে জানিয়েছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নূরুল হুদা।

আজ (২৮ ফেব্রুয়ারি) সকালে রাজধানীর উত্তরায় আইইএস উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ভোটকেন্দ্রে নিজের ভোট দিয়ে এসে সিইসি সাংবাদিকদের বলেন, “আমরা ভোটকেন্দ্রের পরিবেশ সৃষ্টি করি। বাড়ি বাড়ি গিয়ে আমরা ভোটার আনতে পারবো না।”

নির্বাচন ব্যবস্থায় কোন ত্রুটি নেই উল্লেখ করে তিনি বলেন, “আমাদের সবধরনের প্রস্তুতি নেওয়া আছে।”

vote dncc
২৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, রাজধানীর সরকারি শারীরিক শিক্ষা কলেজ ভোটকেন্দ্রে সকাল সাড়ে ১১টা পর্যন্ত মাত্র দুজন নারী ভোট দিয়েছেন বলে জানিয়ে সেখানকার নির্বাচন কর্মকর্তা। ছবি: রাশিদুল হাসান

সব রাজনৈতিক দলগুলো অংশগ্রহণ না করায় ভোটারদের মধ্যে আগ্রহ কম বলেও মনে করেন সিইসি। ভোটার উপস্থিতি কম থাকার দুটি কারণ উল্লেখ করে তিনি বলেন, “নির্বাচনটি স্বল্প সময়ের জন্য মাত্র ১ বছরের জন্য। আরেকটি কারণ- সব দল নির্বাচনে অংশ নিচ্ছে না।”

নির্বাচন এখনও ভোটারবিহীন হয়নি বলেও দাবি করেন তিনি। বলেন, নির্বাচন শুরু হলো মাত্র। দিন গড়িয়ে গেলে ভোটার সংখ্যা আরও বাড়বে আশা  সিইসির।

উল্লেখ্য, ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনে (ডিএনসিসি) মেয়র পদে উপনির্বাচনের পাশাপাশি ডিএনসিসির নতুন ১৮টি নতুন ওয়ার্ডে এবং ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) নতুন ১৮টি ওয়ার্ডে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

Comments

The Daily Star  | English

Anontex Loans: Janata in deep trouble as BB digs up scams

Bangladesh Bank has ordered Janata Bank to cancel the Tk 3,359 crore interest waiver facility the lender had allowed to AnonTex Group, after an audit found forgeries and scams involving the loans.

6h ago