ঢাবির ইতিহাসে নজিরবিহীন ঘটনা ঘটল: রিজভী

ডাকসুর ইতিহাসে নজিরবিহীন ঘটনা ঘটেছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। তিনি বলেছেন, ডাকসুতে ১৯৭৩ সাল ছাড়া আর কখনই ভোট ডাকাতির ও মহাজালিয়াতির ঘৃণ্য ঘটনা ঘটেনি।
বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। ফাইল ছবি

ডাকসুর ইতিহাসে নজিরবিহীন ঘটনা ঘটেছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। তিনি বলেছেন, ডাকসুতে ১৯৭৩ সাল ছাড়া আর কখনই ভোট ডাকাতির ও মহাজালিয়াতির ঘৃণ্য ঘটনা ঘটেনি।

আজ মঙ্গলবার রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এই মন্তব্য করেন রিজভী।

ডাকসু নির্বাচনে উপাচার্যের ভূমিকার সমালোচনা করে রিজভী বলেন, মিডনাইট ভোটের সরকারের ফতোয়া শুনে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি ‘ভূতের বেগার’ খেটে বিশ্ববিদ্যালয় সুমহান ঐতিহ্যকে ধুলোয় লুটিয়ে দিলেন। সরকার যেহেতু বিরোধীদের এক ইঞ্চি জায়গা ছাড়তে নারাজ তাই আজ্ঞাবাহী ঢাবি ভিসি ডাকসুর নির্বাচন করলেন প্রহসন ও সন্ত্রাসের বাতাবরণে। সিইসির অতৃপ্ত আত্মাকে নিজের দেহে ধারণ করলেন ঢাবির ভিসি।

কবি আল-মাহমুদের একটি কবিতার উদ্ধৃতি দিয়ে রিজভী বলেন, ‘জানতে সাধ জাগে, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কি ডাকাতদের গ্রাম? ’ তিনি কেন এই কবিতা লিখেছিলেন আমি জানিনা। এই বরেণ্য কবির উক্ত কবিতার লাইনটি প্রমাণ করল গতকাল ছাত্রলীগ। তবে এই ছাত্রলীগ নামধারী বর্গী ও মগদের অভয়ারণ্যের মধ্যেও উদ্দীপ্ত প্রাণের সাহসী তরুণরা ভোট ডাকাতির বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করেছে।

“আমি মনেকরি এই প্রতিবাদে অংশ নিয়ে জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল, কোটা সংস্কার আন্দোলনের ছাত্ররা ও বাম ছাত্রসংগঠনগুলো প্রমাণ করেছে তারা আলোর পথের যাত্রী,” যোগ করেন রিজভী।

Comments

The Daily Star  | English

Freedom declines, prosperity rises in Bangladesh

Bangladesh’s ranking of 141 out of 164 on the Freedom Index places it within the "mostly unfree" category

2h ago