কিরগিজস্তানের জয়ে সেমি-ফাইনালে বাংলাদেশ

বঙ্গমাতা অনূর্ধ্ব-১৯ আন্তর্জাতিক গোল্ড কাপের উদ্বোধনি ম্যাচে সংযুক্ত আরব আমিরাতকে হারিয়ে সেমিতে এক পা দিয়েই রেখেছিল বাংলাদেশের মেয়েরা। এদিন কিরগিজস্তানের সঙ্গে আমিরাতের হারে নিশ্চিত হয়ে গেছে শেষ চার। এক ম্যাচ হাতে রেখেই সেমিতে পৌঁছালো মৌসুমির দল। আমিরাতকে হারিয়ে সেমি-ফাইনালে নাম লিখিয়েছে কিরগিজস্তানও।
ছবি: ফিরোজ আহমেদ

বঙ্গমাতা অনূর্ধ্ব-১৯ আন্তর্জাতিক গোল্ড কাপের উদ্বোধনি ম্যাচে সংযুক্ত আরব আমিরাতকে হারিয়ে সেমিতে এক পা দিয়েই রেখেছিল বাংলাদেশের মেয়েরা। এদিন কিরগিজস্তানের সঙ্গে আমিরাতের হারে নিশ্চিত হয়ে গেছে শেষ চার। এক ম্যাচ হাতে রেখেই সেমিতে পৌঁছালো মৌসুমির দল। আমিরাতকে হারিয়ে সেমি-ফাইনালে নাম লিখিয়েছে কিরগিজস্তানও।

আমিরাত-কিরগিজস্তানের ম্যাচটি ড্র হলেই বাংলাদেশের শেষ চার নিশ্চিত হতো। সেক্ষেত্রে ঝুলে থাকত কিরগিজরা। তবে বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে বুধবার ‘বি’ গ্রুপের ম্যাচে এদিন ২-১ গোলের ব্যবধানে ম্যাচ জিতেই শেষ চারে উঠেছে কিরগিজস্তান।

এর আগে বাংলাদেশের কাছে ২-০ গোলে হেরেছিল আরব আমিরাত। টানা দুই হারের কারণে গ্রুপ পর্ব থেকেই ছিটকে গেল মধ্যপ্রাচ্যের দলটি। আগামী শুক্রবার গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হওয়ার লড়াইয়ে মাঠে নামবে কিরগিজস্তান ও স্বাগতিক বাংলাদেশ। ম্যাচটি জিতলে তো কথাই নেই ড্র করলেই গোল ব্যবধানে এগিয়ে থেকে সেরা হবে মৌসুমির দল।

এদিন ম্যাচের ১৬ মিনিটেই এগিয়ে যায় কিরগিজস্তান। কর্নার থেকে সরাসরি গোল দেন বোরনবেকনোভা আইঝান। ব্যবধান দিগুণ করতে দুই মিনিটও সময় নেয়নি তারা। এ গোলটিও আসে সেই কর্নার থেকে। বোরনবেকনোভার কর্নার ঠিকভাবে ধরতে পারেননি আমিরাত গোলরক্ষক। হাত ফসকে গেলে ফাঁকায় বল পেয়ে যান। রিশবেক কেনঝেবুবু। আলতো টোকায় বল জালে জড়াতে কোন ভুল করেননি এ ফরোয়ার্ড।

বঙ্গমাতা অনূর্ধ্ব-১৯ ইন্টারন্যাশনাল গোল্ড কাপের সেমি-ফাইনালে খেলার আশা বাঁচিয়ে রাখতে হলে কমপক্ষে ড্র দরকার ছিল সংযুক্ত আরব আমিরাতের। কিন্তু লড়াই করলেও কিরগিজস্তানের সঙ্গে পেরে ওঠেনি দলটি।

৩৮তম মিনিটে ডি বক্সের মধ্যে বল হাতে লাগলে পেনাল্টি পায় আমিরাত। সফল স্পটকিকে ব্যবধান কমান সাদ জারকান। ৭০তম মিনিটে আরও একটি পেনাল্টি পেয়েছিল দলটি। কিন্তু স্পট কিক ক্রসবারের ওপর দিয়ে উড়িয়ে মারেন সেন্দিয়া ঘারিব। ফলে সমতায় ফেরা হয়নি তাদের। শেষ দিকে জারকানকে কনুই দিয়ে আঘাত করে লালকার্ড দেখেন জয়ের নায়িকা আইঝান। তবে তা থেকে সুবিধা আদায় করে নিতে পারেনি আমিরাত।

Comments

The Daily Star  | English
hostility against female students

The never-ending hostility against female students

What was intended to be a sanctuary for empowerment has morphed into a harrowing ordeal for many female students

18h ago