ফুটবল

কিরগিজদের আগ্রাসী স্বভাবের সুযোগ নিতে চায় বাংলাদেশ

সংযুক্ত আরব আমিরাতের বিপক্ষে আগের দিন বেশ গোছানো ফুটবল খেলেছে কিরগিজস্তান। ২-১ গোলের ব্যবধানে ম্যাচ জিতে সেমি-ফাইনালও নিশ্চিত করেছে দলটি। আক্রমণাত্মক ফুটবলই উপহার দেয় তারা। আর কিরগিজদের এ আগ্রাসী স্বভাবের সুযোগটাই নিতে চায় বাংলাদেশ। এছাড়াও আগের ম্যাচের ভুল ত্রুটি শুধরে ভালো ফুটবল উপহার দিতে চায় মেয়েরা।
ছবি: এএফপি

সংযুক্ত আরব আমিরাতের বিপক্ষে আগের দিন বেশ গোছানো ফুটবল খেলেছে কিরগিজস্তান। ২-১ গোলের ব্যবধানে ম্যাচ জিতে সেমি-ফাইনালও নিশ্চিত করেছে দলটি। আক্রমণাত্মক ফুটবলই উপহার দেয় তারা। আর কিরগিজদের এ আগ্রাসী স্বভাবের সুযোগটাই নিতে চায় বাংলাদেশ। এছাড়াও আগের ম্যাচের ভুল ত্রুটি শুধরে ভালো ফুটবল উপহার দিতে চায় মেয়েরা।

মাঠে না গেলেও টিভিতে কিরগিজস্তানের ম্যাচটি দেখেছেন মৌসুমি-মারিয়ারা। আর ম্যাচ দেখেই প্রতিপক্ষ সম্পর্কে ধারণা পেয়েছেন তারা। আক্রমণে উঠলে দলের বেশির ভাগ খেলোয়াড়ই প্রতিপক্ষ সীমানায় চলে আসেন। তা দেখেই দলের সহ-অধিনায়ক মারিয়া মান্ডা জানালেন তার পরিকল্পনার কথা, ‘আমরা ওদের খেলা দেখছি, সেটা থেকে বোঝা যাচ্ছে ওরা বেশি উপরের দিকে উঠে আসে। উপর দিকে থাকে। সেই সুযোগে আমরা আক্রমণ করতে পারবো। ডিফেন্ডাররা যদি উপরের দিকে বল পাঠিয়ে দিতে পারি, তাহলে আমরা আক্রমণ করতে পারবো এবং গোল বের করতে পারবো।’

২০১৬ সালে এএফসি অনূর্ধ্ব-১৬ চ্যাম্পিয়নশিপের বাছাইপর্বে কিরগিজস্তানকে উড়িয়ে দিয়েছিল বাংলাদেশের মেয়েরা। ১০-০ গোলের বিশাল জয় পেয়েছিল তারা। সে দলের বেশিরভাগ খেলোয়াড় রয়েছেন বর্তমান অনূর্ধ্ব-১৯ দলে। কৃষ্ণা রানী সরকার করেছিলেন হ্যাটট্রিক। জোড়া গোল ছিল শামসুন্নাহারের। একটি করে গোল নার্গিস খাতুন, মার্জিয়া আক্তার ও মারিয়া মান্ডার। এ খেলোয়াড়রাই এখন বাংলাদেশের শক্তির কেন্দ্রবিন্দু।

আগামীকাল শুক্রবার মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে কিরগিজদের বিপক্ষে মাঠে নামছে বাংলাদেশের মেয়েরা। নামার আগে প্রস্তুতি নিয়ে ব্যাপক আলোচনা। কারণ নিজেদের প্রথম ম্যাচে আরব আমিরাতের বিপক্ষে আশানুরূপ খেলতে পারেননি মৌসুমি-মারিয়ারা। যদিও ম্যাচের সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ ছিল বাংলাদেশেরই। কিন্তু লক্ষ্যে ২২টি শট নিয়ে গোল মাত্র ২টি আদায় করে নেয় দলটি। তবে কিরগিজদের বিপক্ষেই নিজেদের ফিরে পাওয়ার প্রত্যয় ঝরে মেয়েদের কণ্ঠে।

আমিরাতের বিপক্ষে ম্যাচসেরা কৃষ্ণা রানি সরকার বললেন এমনটাই, ‘আসলে আমাদের প্রথম ম্যাচে অনেক ভুল ত্রুটি হয়েছে। অনেক গোল মিস করেছি, সেটা যাতে আর না হয় সে জন্য স্যারেরা আমাদের নিয়ে কাজ করেছে। লক্ষ্য রাখছি কালকের ম্যাচে যেন সে ভুলগুলো না হয়। আমরা যখন অনূর্ধ্ব-১৬ পর্যায়ে খেলেছিলাম তখন ওদের ১০-০ গোলে হারিয়েছি। এবার অবশ্য ১৯। তারপরও চেষ্টা করব ভালো খেলে ভালো ব্যবধানে হারাতে।’  

Comments