বোলাররাই আমাদের জেতাবে, বললেন উইন্ডিজ কোচ

ওয়েস্ট ইন্ডিজ সর্বশেষ বিশ্বকাপ জিতেছিল সেই ১৯৭৯ সালে। সেবার ফাইনালে ইংল্যান্ডের ৯২ রানে হারাতে বোলাররাই রেখেছিলেন মূল ভূমিকা। জোয়েল গার্নার একাই ধসিয়ে দিয়েছিলেন ইংলিশ ব্যাটিং। ক্যারিবিয়ান পেসারদের সেই দাপট এখন কেবলই সোনালী দিনের স্মৃতি, বিশ্বকাপেও পাওয়া যায় না পেস বান্ধব উইকেট। তবু এবারও পেসারদের উপরই হারা-জেতার দানটা দিয়ে রেখেছেন ক্যারিবিয়ান কোচ ফ্লয়েড রেইফার।
Oshane Thomas
ফাইল ছবি: এএফপি

ওয়েস্ট ইন্ডিজ সর্বশেষ বিশ্বকাপ জিতেছিল সেই ১৯৭৯ সালে। সেবার ফাইনালে ইংল্যান্ডের ৯২ রানে হারাতে বোলাররাই রেখেছিলেন মূল ভূমিকা। জোয়েল গার্নার একাই ধসিয়ে দিয়েছিলেন ইংলিশ ব্যাটিং। ক্যারিবিয়ান পেসারদের সেই দাপট এখন কেবলই সোনালী দিনের স্মৃতি, বিশ্বকাপেও পাওয়া যায় না পেস বান্ধব উইকেট। তবু এবারও পেসারদের উপরই হারা-জেতার দানটা দিয়ে রেখেছেন ক্যারিবিয়ান কোচ ফ্লয়েড রেইফার।

এবার বিশ্বকাপে উঠতে বাছাইপর্ব পেরুতে হয়েছে দুইবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নদের। সেই বাছাইপর্বেও তাদের অবস্থা ছিল মরি মরি। তবে গেল কিছু দিন থেকে ক্যারিবিয়ানরা আছে ছন্দে। ঘরের মাঠে হারিয়েছে ইংল্যান্ডকে।

বেশ কয়েকজন বিস্ফোরক ব্যাটসম্যান আছে এবারের উইন্ডিজ দলে। ক্রিস গেইল, আন্দ্রে রাসেলের মতো আগ্রাসী ব্যাটসম্যানদের জন্য অপেক্ষায় আছে ইংল্যান্ডের ব্যাটিং বান্ধব উইকেট। কিন্তু ওদের কোচ রেইফার মনে করছেন খেলাটা আসলে জেতাবেন বোলাররাই, ‘ইংল্যান্ডের পিচ যদি দেখেন তাহলে অবশ্যই সেগুলো ব্যাটিং বান্ধব। অনেক রানের পিচ। কিন্তু আমার মনে হয় যাদের বোলিং ও ফিল্ডিং ভাল তারাই জিতবে। ব্যাটসম্যানরা আশা করি রান পাবে। তবে আমার মনে হয় বোলাররাই আমাদের জেতাবে।’

এবারের উইন্ডিজ দলে দ্রুত গতির বোলারের ছড়াছড়িই আছে। ঘণ্টায় ১৪৫ কিমিতে বল করার মতো আছেন  শ্যানন গ্যাব্রিয়েল, কেমার রোচ আর ওশান টমাস। এরমধ্যে টমাসকে মনে করা হয় এই মুহূর্তে বিশ্বেরই সবচেয়ে গতিময় বোলার। এছাড়াও মিডিয়াম পেসেও কার্যকর ভূমিকা রাখার মতো আছেন অধিনায়ক জেসন হোল্ডার, আন্দ্রে রাসেল আর কার্লোস ব্র্যাথওয়েট। সে তুলনায় ফ্যাবিয়ান অ্যালান আর অ্যাশলে নার্সকে নিয়ে তাদের স্পিন আক্রমণ কিছুটা দুর্বল।

শক্তিশালী পেস আক্রমণের হিসাবেই বোলারদের নিয়ে বড় আশা রেইফারের,  ‘আমরা নির্দিষ্ট করে কাজ করছি। বোলিং প্লান ঠিক করছি। ডেথ ওভারে বল করার জন্য আমাদের যথেষ্ট মজুদ আছে। এবং সব মিলিয়ে সবার সক্ষমতাও চূড়ায় আছে।’

ক্রিস গেইলের মতো অভিজ্ঞ পোক্ত তারকা যেমন আছেন, আছেন শেমরন হেটমায়ার, নিকোলাস পুরানের মতো তরুণ তারকারা। বোলিং, ব্যাটিং মিলিয়ে দল হিসেবেও তাই ক্যারিবিয়ানরা বড় স্বপ্ন দেখছে বলে জানালেন কোচ,  ‘এটা আসলেই দারুণ দল। অভিজ্ঞ ও তরুণদের চমৎকার মিশেল রয়েছে। বিশ্বকাপে আমাদের এক্স-ফ্যাক্টর আছে। সবার মধ্যে বন্ধন দৃঢ়।’

‘গেইল আর রাসেল শতভাগ পেশাদার। দলের মধ্যে তারা সেরার মানসিকতা তৈরি করে যা বিশ্বকাপ জেতাতে সাহায্য করবে।’

 

 

 

Comments

The Daily Star  | English

International Mother Language Day: Languages we may lose soon

Mang Pru Marma, 78, from Kranchipara of Bandarban’s Alikadam upazila, is among the last seven speakers, all of whom are elderly, of Rengmitcha language.

10h ago