মৈনাজ বেগম ছেলের নাম রাখলেন ‘মোদি’

গত ২৩ মে ঘোষিত হয় ভারতের বহুল আলোচিত লোকসভা নির্বাচনের ফল। সেই ফল যায় দেশটির ক্ষমতাসীন দল বিজেপির পক্ষে। তাই দলনেতা তথা দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র দামোদরদাস মোদির প্রতি মুগ্ধ হয়ে সেই নামে সদ্যোজাত ছেলের নাম রাখার সিদ্ধান্ত নিলেন উত্তরপ্রদেশের এক মুসলিম নারী ও সন্তানের মা মৈনাজ বেগম।
Modi
উত্তরপ্রদেশের মুসলিম নারী মৈনাজ বেগম তার সদ্যোজাত ছেলের নাম রেখেছেন নরেন্দ্র দামোদরদাস মোদি। ছবি: সংগৃহীত

গত ২৩ মে ঘোষিত হয় ভারতের বহুল আলোচিত লোকসভা নির্বাচনের ফল। সেই ফল যায় দেশটির ক্ষমতাসীন দল বিজেপির পক্ষে। তাই দলনেতা তথা দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র দামোদরদাস মোদির প্রতি মুগ্ধ হয়ে সেই নামে সদ্যোজাত ছেলের নাম রাখার সিদ্ধান্ত নিলেন উত্তরপ্রদেশের এক মুসলিম নারী ও সন্তানের মা মৈনাজ বেগম।

ভারতীয় বার্তা সংস্থা পিটিআইয়ের বরাত দিয়ে এনডিটিভি জানায়, আশপাশের সবাই মৈনাজকে মত বদলাতে বললেও, তিনি অনড় থাকেন বলে জানিয়েছেন তার শ্বশুরমশাই। দুবাইতে কর্মরত তার স্বামী মুস্তাক আহমেদকে খবর দেওয়া হলে তিনিও চেষ্টা করেন স্ত্রীর মত বদলাতে। কিন্তু শেষ পর্যন্ত স্ত্রীর ইচ্ছাকে মেনে নেন তিনি।

“শিশুর নাম রাখার বিষয়টি পরিবারের ব্যক্তিগত ব্যাপার” হিসেবে উল্লেখ করে মৈনাজের শ্বশুর ইদ্রিস বলেন এ বিষয়ে “কারো নাক গলানো উচিত নয়।”

সংবাদমাধ্যমটি আরও জানায়, মৈনাজকে বোঝাতে ব্যর্থ হয়ে পরসাপুর মহরাউর গ্রামের সেই পরিবার নামটি নথিবদ্ধ করতে জেলা প্রশাসকের কাছে লেখা একটি হলফনামা জমা দেওয়া হয়েছে পঞ্চায়েতের সহ উন্নয়ন আধিকারিক ঘনশ্যাম পাণ্ডের কাছে। পাণ্ডে গণমাধ্যমটিকে জানান, ২৪ মে সেই হলফনামা তিনি পেয়েছেন।

পাণ্ডে বলেন, আবেদনটি গ্রাম পঞ্চায়েতের সম্পাদকের কাছে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে। উনিই জন্ম-মৃত্যু নথিবদ্ধ করার কাজটি দেখেন। “আইন অনুযায়ী সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে” বলে মন্তব্য করেন আধিকারিক পাণ্ডে।

ওই হলফনামায় মোদি ও তার সরকারের উন্নয়ন প্রশংসা করতে গিয়ে মৈনাজ বেগম দরিদ্র মানুষদের জন্য বিনামূল্যে গ্যাসের সংযোগ ও শৌচাগার নির্মাণের আর্থিক সহায়তা দেওয়ার প্রকল্পটির কথা উল্লেখ করেন করেন। “উনি (মোদি) দেশের জন্য খুব ভালো কাজ করছেন”- এমনটি লেখা হয় হলফনামায়।

এছাড়াও, তিন তালাক বন্ধের জন্য প্রধানমন্ত্রী মোদির উদ্যোগের প্রশংসা করা হয়।

Comments

The Daily Star  | English

44 lives lost to Bailey Road blaze

33 died at DMCH, 10 at the burn institute, and one at Central Police Hospital

8h ago