টানা ১০ ম্যাচ হারের কথা ভুলে গেছে পাকিস্তান

উইন্ডিজের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে শুক্রবার (৩১ মে) বিশ্বকাপ মিশন শুরু করছে পাকিস্তান। তবে এ ম্যাচের নামার আগে আলোচনা শেষ ১০টি ওয়ানডে ম্যাচের হার নিয়ে। কিন্তু এসব নিয়ে কোন ভাবনাই নেই পাকিস্তানের। সে ১০ হারের কথা বেমালুম ভুলে গেছেন বলেই জানালেন অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদ।
ছবি: রয়টার্স

উইন্ডিজের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে শুক্রবার (৩১ মে) বিশ্বকাপ মিশন শুরু করছে পাকিস্তান। তবে এ ম্যাচের নামার আগে আলোচনা শেষ ১০টি ওয়ানডে ম্যাচের হার নিয়ে। কিন্তু এসব নিয়ে কোন ভাবনাই নেই পাকিস্তানের। সে ১০ হারের কথা বেমালুম ভুলে গেছেন বলেই জানালেন অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদ।

বিশ্বকাপের দুই ফেবারিট দল অস্ট্রেলিয়া ও ইংল্যান্ডের বিপক্ষে দুটি সিরিজে হোয়াইটওয়াশ। এর আগে দক্ষিণ আফ্রিকায় হার নিয়ে সব মিলিয়ে টানা ১০টি ওয়ানডে ম্যাচে হেরেছে পাকিস্তান। এমনকি আফগানিস্তানের কাছে প্রস্তুতি ম্যাচও হেরেছে তারা। বিশ্বকাপের আগে এমন হারে নিঃসন্দেহে আত্মবিশ্বাসে আঘাত লাগতে পারে যে কোন দলের। তবে পাকিস্তানি অধিনায়কের ভাবনাটা ভিন্ন, 'হ্যাঁ, আমরা টানা ১০টি ম্যাচ হেরেছি কিন্তু আমরা এসব ভুলে গিয়েছি এবং বিশ্বকাপ শুরু করতে যাচ্ছি।'

প্রথম ম্যাচটা ট্রেন্ট ব্রিজে খেলবে পাকিস্তান। এখানকার ফ্ল্যাট উইকেট দুশ্চিন্তার বিষয়। ছোট বাউন্ডারিও। আগে ব্যাট করলে বড় লক্ষ্য ছুড়তে হবে আর পরে ব্যাট করলে বড় লক্ষ্য তাড়ার সক্ষমতা থাকতে হবে ব্যাটসম্যানদের। আর এটা ভালো করেই জানেন সরফরাজ, 'যখন এখানে আমরা প্রথম দিন এসেছিলাম তখন আমরা গ্রাউন্ডসম্যানকে জিজ্ঞাসা করেছিলেন এখানকার গড় রান কতো? তিনি বলেছিলেন ৪৮০।'

ট্রেন্ট ব্রিজের এ মাঠে দুইবার চারশর বেশি রান করেছে ইংলিশরা। কদিন আগে এই পাকিস্তানের বিপক্ষে তারা করে ৩ উইকেটে ৪৪৪ রান। এর আগে ২০১৬ সালে তো অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে বিশ্বরেকর্ডই গড়ে। ৬ উইকেটে ৪৮১ রান তুলেছিল দলটি। তাই পাকিস্তানকে আরও একবার এ চ্যালেঞ্জ নিতে হতে পারে বলে মানছেন সরফরাজ, 'ক্রিকেটে চ্যালেঞ্জ থাকেই। সবাই ভাবে এখন গড়ে ৩০০ এর বেশি রান হবে কিন্তু এটাও চ্যালেঞ্জিং। বিশ্বকাপে আমাদের বিভিন্ন উইকেটে খেলা আছে। তাই কেউ যদি ৩০০ এর বেশি রান করে অন্য দল এটা চেজ করতে যাবেই।'

ক্রিকেটে আনপ্রেডিক্টেবল বলেই খ্যাতি পাকিস্তানের। একই তকমা ক্যারিবিয়ানদেরও। শুরুতেই দুই আনপ্রেডিক্টেবলের লড়াই। আর এ তকমা পছন্দ হয়েছে সরফরাজের, 'আনপ্রেডিক্টেবল তকমাটা ভালোই কারণ এতে সব দলই আপনাকে ভয় করবে। আমরা আনপ্রেডিক্টেবল, আমরা এটা মেনে নিচ্ছি, যেমনটা উইন্ডিজ নিয়েছে।'

গত মঙ্গলবারই নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ৪২১ রানের বিশাল পাহাড় দ্বার করেছিল। ট্রেন্ট ব্রিজের ছোট বাউন্ডারি ও ফ্ল্যাট উইকেটে এমনটা আবার হওয়ার সম্ভাবনা ফেলে দেওয়ার নয়। বিশেষ করে দলে ক্রিস গেইল, এভিন লুইস, শেই হোপ ও আন্দ্রে রাসেলের মতো বিধ্বংসী ব্যাটসম্যান চাপে ফেলতে পারে তাদের। তবে যে করেই হোক উইকেট নিতে হবে বলেই জানান সরফরাজ, 'যদি আপনি কোন দলকে হারাতে চান তাহলে আপনাকে উইকেট নিতে হবে, যেখানেই আপনি খেলেন না কেন। তাই উইকেট নেওয়ার জন্য চাপ সৃষ্টি করাটা খুব গুরুত্বপূর্ণ।'

Comments

The Daily Star  | English

Step up efforts to prevent fire incidents: health minister

“Rajuk and the Public Works Ministry must adopt a proactive stance to ensure such a tragedy is never repeated," said Samanta Lal Sen

1h ago