শ্রীলঙ্কাকে ১০ উইকেটে হারিয়েছে নিউজিল্যান্ড

বিশ্বকাপে এখন পর্যন্ত ম্যাচ শেষ হয়েছে তিনটি। আর তিনটি ম্যাচের ফলাফলই হলো প্রায় এক তরফা। প্রথম ম্যাচে দক্ষিণ আফ্রিকাকে বড় ব্যবধানে হারায় ইংলিশরা। পরের ম্যাচে পাকিস্তানকে স্রেফ উড়িয়ে দেয় উইন্ডিজ। এবার সে ধারায় শ্রীলঙ্কাকে উড়িয়ে দিল নিউজিল্যান্ড। দলের জয়ের ভিত গড়ে দেয় কিউই বোলাররা। তাতে লঙ্কানদের দেওয়া ১৩৭ রানের লক্ষ্য হেসে খেলেই পার করেছে দলটি। ১০ উইকেটের বড় ব্যবধানে জয় তুলে দারুণ সূচনা করল গত আসরের ফাইনালিস্টরা।
ছবি: রয়টার্স

বিশ্বকাপে এখন পর্যন্ত ম্যাচ শেষ হয়েছে তিনটি। আর তিনটি ম্যাচের ফলাফলই হলো এক পেশেপ্রথম ম্যাচে দক্ষিণ আফ্রিকাকে বড় ব্যবধানে হারায় ইংলিশরা। পরের ম্যাচে পাকিস্তানকে স্রেফ উড়িয়ে দেয় উইন্ডিজ। এবার সে ধারায় শ্রীলঙ্কাকে উড়িয়ে দিল নিউজিল্যান্ড। দলের জয়ের ভিত গড়ে দেয় কিউই বোলাররা। তাতে লঙ্কানদের দেওয়া ১৩৭ রানের লক্ষ্য হেসে খেলেই পার করেছে দলটি। ১০ উইকেটের বড় ব্যবধানে জয় তুলে দারুণ সূচনা করল গত আসরের ফাইনালিস্টরা।

লক্ষ্য ছোট হলেও দেশে শুনে ধীর গতিতে খেলার কোন চেষ্টা করেনি নিউজিল্যান্ড। শুরু থেকেই আগ্রাসী ব্যাট চালিয়ে রান রেটটা বাড়িয়ে নেওয়ার লক্ষ্য ছিল তাদের। ইনিংসের প্রথম ওভারেই লাসিথ মালিঙ্গাকে দুটি চার মেরে মার্টিন গাপটিল জানিয়ে দেন লক্ষ্য পূরণে সিদ্ধহস্ত তিনি। আর সে লক্ষ্য পূরণ হলো খুব ভালোভাবেই। ২০৩ বল হাতে রেখেই জয় তুলে নেয় দলটি।

নিউজিল্যান্ডের দুই ওপেনারই প্রায় সমান গতিতে ব্যাট করেছেন। দেখার বিষয় ছিল কে আগে ফিফটি স্পর্শ করেন। শুরুতে গাপটিল এগিয়ে থাকলেও মাঝে গিয়ে যান কলিন মুনরো। শেষ পর্যন্ত গাপটিলই আগে হাফসেঞ্চুরি করেন। ৩৯ বলে ফিফটিতে পৌঁছানো এ ওপেনার শেষ পর্যন্ত অপরাজিত থেকে ৫১ বলে ৭৩ রান করেন। নিজের ইনিংসটি ৮টি চার ও ২টি ছক্কায় সাজান তিনি। ৪৭ বলে ৬টি চার ও ১টি ছক্কায় ৫৮ রান করে অপরাজিত থাকেন মুনরো।

এর আগে টস হেরে ব্যাটিং করতে নেমেছিল লঙ্কানরা। ইনিংসের দ্বিতীয় বলেই নিউজিল্যান্ডের সফল রিভিউতে লাহিরু থিরিমান্নেকে হারায় দলটি। তবে তিন নম্বরে নামা কুশল পেরেরাকে নিয়ে ভালো কিছুর ইঙ্গিত দিচ্ছিল দলটি। দ্বিতীয় উইকেটে ৪৭ বলে ৪২ রানের জুটি গড়েছিল দলটি। কিন্তু এ জুটি ভাঙতেই যেন বদলে গেল সব। উইকেট হারানোর মিছিলে যোগ দিলেন ব্যাটসম্যানরা।

সপ্তম উইকেটে অবশ্য থিসারা পেরেরা কিছুটা সঙ্গ দিয়েছিলেন অধিনায়ককে। ম্যাচের একমাত্র অর্ধশত রানের জুটিটিও আসে এ জুটিতে। উইকেটে নেমে ধারার বিপরীতে কিছুটা আগ্রাসী ব্যাট করেন থিসারা। ২৩ বলে ২৭ রানের ইনিংস খেলেন তিনি। এ দুই ব্যাটসম্যানের স্কোরবোর্ডে যোগ করেন ৫২ রান। তাতেই একশ রানের কোটা পাড় করে দলটি। শেষ পর্যন্ত ২৯.২ ওভারে ১৩৬ রান করেছে তারা।

তবে মজার একটি ব্যাপার ঘটিয়েছেন কারুনারাত্নে। লোকি ফার্গুসনের ২৭তম ওভারের চতুর্থ বলে ফ্রি হিট পেয়েছিলেন তিনি। সে বলটি স্লো বাউন্সার দিয়েছিলেন ফার্গুসন। কিন্তু সবাইকে বিস্ময় উপহার দিয়ে সে বলে না মেরে মাথা নিচু করে মারার কোন চেষ্টায় করেননি অধিনায়ক। তবে শেষ পর্যন্ত অপরাজিত থেকে ৫২ রানের ইনিংস খেলেছেন কারুনারাত্নে। ৮৪ বলের ধৈর্যশীল ইনিংসে ৪টি চার মেরেছেন এ ব্যাটসম্যান। 

এদিন শ্রীলঙ্কাকে ভুগিয়েছেন ম্যাট হেনরিই বেশি। ম্যাচসেরাও হয়েছেন তিনি। অথচ এ ম্যাচে খেলার কথাই ছিল না তার। দলের অন্যতম সেরা পেসার টিম সাউদি ইনজুরিতে থাকায় সুযোগ মিলে তার। সুযোগ পেয়েই যোগ্যতা প্রমাণ করেন তিনি। পেয়েছেন ৩টি উইকেট। ৩টি উইকেট পেয়েছেন ফার্গুসনও।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

শ্রীলঙ্কা: ২৯.২ ওভারে ১৩৬ (থিরিমান্নে ৪, করুনারত্নে ৫২*, কুসল পেরেরা ২৯, কুসল মেন্ডিস ০, ধনাঞ্জয়া ৪, ম্যাথিউস ০, জিবন মেন্ডিস ১, থিসারা ২৭, উদানা ০, লাকমল ৭, মালিঙ্গা ১; হেনরি ৩/২৯, বোল্ট ১/৪৪, ফার্গুসন ৩/২২, ডি গ্র্যান্ডহোম ১/১৪, নিশাম ১/২১, স্যান্টনার ১/৫)।

নিউজিল্যান্ড: ১৪.১ ওভারে ১৩৭/০ (গাপটিল ৭৩*, মুনরো ৫৮*; মালিঙ্গা ০/৪৬, লাকমাল ০/২৮, উদানা ০/২৪, থিসারা ০/২৫, জিবন ০/১১)।

ফলাফল: নিউজিল্যান্ড ১০ উইকেটে জয়ী।

ম্যান অব দ্য ম্যাচ: ম্যাট হেনরি (নিউজিল্যান্ড)।

Comments

The Daily Star  | English

Consumers brace for price shocks

Consumers are bracing for multiple price shocks ahead of Ramadan that usually marks a period of high household spending.

11h ago