ম্যাচের দুই টার্নিং পয়েন্টেই আছেন মুশফিক

সাকিব আল হাসানের সঙ্গে ফের জমে উঠেছিল মুশফিকুর রহিমের জুটি। জুটিতে অর্ধশতক হওয়ার পরই আচমকা ভুল বোঝাবুঝিতে রান আউটে কাটা মুশফিক। এবার আসা যাক ফিল্ডিংয়ে। মার্টিন গাপটিল আর কলিন মনরোকে ফিরিয়ে সাকিব নিউজিল্যান্ডকে চাপে ফেলে দেওয়ার পর কেন উইলিয়ামসনকে দারুণ থ্রোতে রান আউট করেই ফেলেছিলেন তামিম ইকবাল। উইলিয়ামসন বিদায় হলে তখনই প্রচণ্ড চাপে পড়ে যায় নিউজিল্যান্ড। কিন্তু মুশফিক অবিশ্বাস্য ভুলে গড়বড় করায় বেঁচে যান উইলিয়ামসন।
Mushfiqur Rahim
ছবি: রয়টার্স

সাকিব আল হাসানের সঙ্গে ফের জমে উঠেছিল মুশফিকুর রহিমের জুটি। জুটিতে অর্ধশতক হওয়ার পরই আচমকা ভুল বোঝাবুঝিতে রান আউটে কাটা মুশফিক। এবার আসা যাক ফিল্ডিংয়ে। মার্টিন গাপটিল আর কলিন মনরোকে ফিরিয়ে সাকিব নিউজিল্যান্ডকে চাপে ফেলে দেওয়ার পর কেন উইলিয়ামসনকে দারুণ থ্রোতে রান আউট করেই ফেলেছিলেন তামিম ইকবাল। উইলিয়ামসন বিদায় হলে তখনই প্রচণ্ড চাপে পড়ে যায় নিউজিল্যান্ড। কিন্তু মুশফিক অবিশ্বাস্য ভুলে গড়বড় করায় বেঁচে যান উইলিয়ামসন।

মিড অন থেকে তামিমের সরাসরি থ্রো করে ৮ রানে থাকা কেইন উইলিয়ামসকে রান আউট করেই দিচ্ছিলেন। মুশফিক বল স্টাম্পে লাগার আগে অযতাই ধরতে গিয়ে হাত দিয়ে আগেই স্টাম্প ভেঙে ফেললেন। ৬১ রানে ৩ উইকেট পড়া থেকে বেঁচে যায় কিউইরাও। টেইলরের সঙ্গে গড়ে উঠে উইলিয়ামসনের ১০৫ রানের জুটি। জীবন পাওয়া উইলিয়ামসন থামেন ৪০ রানে।

ম্যাচ শেষে বাংলাদেশ অধিনায়ক মাশরাফি মর্তুজা মুশফিকের ওই সময় রান আউট হওয়াকে দেখছেন ম্যাচের টার্নিং পয়েন্ট হিসেবে। তবে উইলিয়ামসনকে তার রান আউট করতে না পারাকে দেখছেন সাধারণ ভুল হিসেবে।

আগে ব্যাট করে ২৪৪ রানে গুটিয়ে গিয়ে নিউজিল্যান্ডের কাছে ১৭ বল  আহে ২ উইকেটে হারে বাংলাদেশ। দল হেরে যাওয়ায় মুশফিকের ভুলও হয়ে এসেছে প্রকট হয়ে। মাশরাফি অবশ্য সতীর্থকে আড়াল করেই রাখলেন,  ‘এটা খেলার অংশ। কেউ ভুল করতে চায় না। এটা হয়ে যায়। আমরা যদি আরও ২০-২৫ বা ৩০ রান বেশি করতাম তাহলে ভিন্ন কিছু হতো। আউটফিল্ডও বেশ মন্থর ছিল।’

তাহলে অধিনায়কের চোখে ম্যাচের টার্নিং পয়েন্ট কোনটি? মাশরাফির জবাব,  ‘টার্নিং পয়েন্ট হচ্ছে মুশফিকের রান আউট। আবার মিঠুনের সঙ্গে সাকিবের জুটি জমেও ভেঙে যাওয়া। '

তবে মুশফিকের উইকেটকিপিংয়ের ওই ভুল? আগের ম্যাচেও একাধিক ভুল করেছিলেন। দল জেতায় সেসব আড়ালে পড়ে যায়। উইকেটকিপার মুশফিককে নিয়ে অনেক পুরনো প্রশ্ন ফের ডানা মেলেছে। তবে অধিনায়ক এতে ভাবনার কিছুই পাচ্ছেন না,  ‘আমার মনে হয় না তাকে নিয়ে ভাবনার কিছু আছে। হ্যাঁ, বলটা সোজা এসে স্টাম্পে লাগত, উইকেটকিপার হিসেবে বোঝা কঠিন সোজা আসছে কিনা। এরকম ভুল হয়ে যায়। কিন্তু এর মানে এই না যে তাকে নিয়ে উদ্বিগ্ন হতে হবে।’

‘মুশফিক অবশ্যই পেশাদার খেলোয়াড়। আর সব খেলোয়াড়ই সহজ সুযোগ মিস করে ফেলে। গত ম্যাচে সৌম্য একটা সহজ ক্যাচ ফেলে দিয়েছিল। কিন্তু সে আগে দুর্দান্ত সব ক্যাচ নিয়েছে। কাজেই এটা নিয়ে আলাদা কথা বলার কিছু নেই। আজও পরে যখন রস টেইলর আর গ্র্যান্ডহোমের ক্যাচ নিল সেগুলোও টার্নিং পয়েন্ট হতে পারত। কাজেই ওকে এসব নিয়ে আলাদা চাপ দেওয়ার কোন প্রয়োজন আছে বলে মনে হয় না।’ 

Comments

The Daily Star  | English

Pm’s India Visit: Dhaka eyes fresh loans from Delhi

India may offer Bangladesh fresh loans under a new framework, as implementation of the projects under the existing loan programme is proving difficult due to some strict loan conditions.

7h ago