সেঞ্চুরির নতুন রেকর্ডে ভারতের বিশাল সংগ্রহ

পাঁচ পাঁচটি বিশ্বকাপ জিতেছে অস্ট্রেলিয়া। সবচেয়ে বেশি ম্যাচ জয়ের রেকর্ডও তাদের। এ আসরের আগে বিশ্বকাপে সবচেয়ে বেশি সেঞ্চুরির রেকর্ডটাও ছিল তাদের। কিন্তু রোববার সে রেকর্ড ভেঙে নতুন রেকর্ড গড়েছেন ভারতীয়রা। বিশ্বকাপে সবচেয়ে বেশি ২৭ সেঞ্চুরি এসেছে ভারতীয় ব্যাটসম্যানদের ব্যাট থেকে। এদিন শেখর ধাওয়ানের দুর্দান্ত সেঞ্চুরিতে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ৫ উইকেটে ৩৫২ রানের বিশাল সংগ্রহই করেছে দলটি।
ছবি: রয়টার্স

পাঁচ পাঁচটি বিশ্বকাপ জিতেছে অস্ট্রেলিয়া। সবচেয়ে বেশি ম্যাচ জয়ের রেকর্ডও তাদের। এ আসরের আগে বিশ্বকাপে সবচেয়ে বেশি সেঞ্চুরির রেকর্ডটাও ছিল তাদের। কিন্তু রোববার সে রেকর্ড ভেঙে নতুন রেকর্ড গড়েছেন ভারতীয়রা। বিশ্বকাপে সবচেয়ে বেশি ২৭ সেঞ্চুরি এসেছে ভারতীয় ব্যাটসম্যানদের ব্যাট থেকে। এদিন শেখর ধাওয়ানের দুর্দান্ত সেঞ্চুরিতে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে  ৫ উইকেটে ৩৫২ রানের বিশাল সংগ্রহই করেছে দলটি।

জিততে হলে তাই রেকর্ড গড়তে হবে অস্ট্রেলিয়াকে। বিশ্বকাপে এত রান তাড়া করে জেতেনি আর কেউ। ২০১১ বিশ্বকাপে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সর্বোচ্চ রান তাড়ার রেকর্ডটি গড়ে আয়ারল্যান্ড। ইংলিশদের করা ৩২৭ রান তাড়া করে জিতেছিল আইরিশরা। 

চলতি আসরের আগে বিশ্বকাপে সর্বোচ্চ ২৬টি সেঞ্চুরি করার রেকর্ড ছিল অস্ট্রেলিয়ার। আগের ম্যাচে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে রোহিত শর্মার সেঞ্চুরিতে সে রেকর্ড স্পর্শ করে ভারত। এদিন শেখর ধাওয়ানের সেঞ্চুরিতে সে রেকর্ডটি নিজেদের করে নেয় দুই বারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা।

ওভালে এদিন টস জিতে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে আগে ব্যাট করতে নামে ভারত। শুরুতে সাবধানী ব্যাট করলেও ধীরে ধীরে খোলস ভাঙেন দুই ওপেনার রোহিত শর্মা ও শেখর ধাওয়ান। গড়েন ১২৭ রানের দারুণ এক জুটি। রোহিত ও ধাওয়ান এ নিয়ে ছয়বার আইসিসির টুর্নামেন্টে শতরানের জুটি গড়লেন। তাদের সমান ছয়বার শতরানের জুটির রেকর্ড আছে অস্ট্রেলিয়ার অ্যাডাম গিলক্রিস্ট ও ম্যাথু হেইডেনের। এছাড়া অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষেও বিশ্বকাপে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রানের জুটি। অসিদের বিপক্ষে ২০০৭ বিশ্বকাপে দক্ষিণ আফ্রিকার গ্রায়েম স্মিথ ও এবি ডি ভিলিয়ার্সের করা ১৬০ রানের জুটিটি সর্বোচ্চ।

রোহিতের বিদায়ে এ জুটি ভাঙলে ধাওয়ানের সঙ্গে যোগ দেন অধিনায়ক বিরাট কোহলি। স্কোরবোর্ডে ৯৩ রান যোগ দেন তারা। দারুণ খেলতে থাকা ধাওয়ান তুলে নেন তার ১৭তম সেঞ্চুরি। রানের গতি বাড়াতে গিয়ে আউট হন ধাওয়ান। ১০৯ বলে ১৬টি চারের সাহায্যে ১১৭ রানের ইনিংস খেলেন তিনি। এরপর উইকেটে নেমে শুরুতে জীবন পেয়ে দারুণ আক্রমণাত্মক ব্যাটিং করতে থাকেন হার্দিক পান্ডিয়া। মাত্র ২৭ বলে ৪টি চার ও ৩টি ছক্কায় করেন ৪৮ রান। কম যাননি সাবেক অধিনায়ক এমএস ধোনিও। ১৪ বলে ৩টি চার ও ১টি ছক্কায় করেন ২৭ রান।

অপর প্রান্তে সেঞ্চুরির পথে এগিয়ে গিয়েছিলেন অধিনায়ক কোহলিও। স্টয়নিসের বলে আউট হওয়ার আগে খেলেন ৮২ রানের ইনিংস। ৭৭ বলে ৪টি চার ও ২টি ছক্কার সাহায্যে এ রান করেন অধিনায়ক।

এদিন ৫৭ রানের ইনিংস খেলেছেন রোহিত শর্মা। এ রান করার পথে একটি বিশ্বরেকর্ড গড়েন তিনি। ধাওয়ানের সঙ্গে জুটির রেকর্ডের পাশাপাশি সবচেয়ে কম ইনিংস খেলে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ২০০০ রান করেন রোহিত। মাত্র ৩৭ ইনিংস খেলে এ মাইলফলকে পৌঁছান তিনি। তাতে ভাঙেন ভারতের কিংবদন্তি ব্যাটসম্যান শচিন টেন্ডুলকারের রেকর্ড। ৪০ ইনিংসে এই অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষেই ২০০০ রান করেছিলেন তিনি।

Comments

The Daily Star  | English
Annual registration of Geographical Indication tags

Rushed GI status raises questions over efficacy

In an unprecedented move, the Ministry of Industries in Bangladesh has issued preliminary approvals for 10 products to be awarded geological indication (GI) status in a span of just eight days recently.

11h ago