'বাজে আম্পায়ারিং কাণ্ডে' আইসিসিকে হোল্ডিংয়ের কড়া জবাব

অস্ট্রেলিয়া-উইন্ডিজ ম্যাচের কথা। অসি পেসারদের প্রায় প্রতিটি আবেদনেই আঙুল তুলেছেন নিউজিল্যান্ডের আম্পায়ার ক্রিস গিফানি। ফলাফল পাঁচ পাঁচবার রিভিউ নেওয়ায় সিদ্ধান্ত বদলাতে হয়েছে তাকে। একমাত্র যে সিদ্ধান্তটি বহাল ছিল সেটাও টিকেছে আম্পায়ার্স কলে। এড়িয়ে গেছেন বড় বড় নো-বল। মাঠের আম্পায়ারের এমন সিদ্ধান্ত দেখার পর ধারাভাষ্যে কীভাবে নীরব থাকেন ক্যারিবিয়ান মাইকেল হোল্ডিং?
ছবি: সংগ্রহীত

অস্ট্রেলিয়া-উইন্ডিজ ম্যাচের কথা। অসি পেসারদের প্রায় প্রতিটি আবেদনেই আঙুল তুলেছেন নিউজিল্যান্ডের আম্পায়ার ক্রিস গিফানি। ফলাফল পাঁচ পাঁচবার রিভিউ নেওয়ায় সিদ্ধান্ত বদলাতে হয়েছে তাকে। একমাত্র যে সিদ্ধান্তটি বহাল ছিল সেটাও টিকেছে আম্পায়ার্স কলে। এড়িয়ে গেছেন বড় বড় নো-বল। মাঠের আম্পায়ারের এমন সিদ্ধান্ত দেখার পর ধারাভাষ্যে কীভাবে নীরব থাকেন ক্যারিবিয়ান মাইকেল হোল্ডিং?

চুপ থাকেনওনি হোল্ডিং। আম্পায়ারদের এমন ভুলের বিপক্ষে সরব ছিলেন তিনি। আর তার প্রতিবাদ পছন্দ হয়নি বিশ্ব ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রক সংস্থা আইসিসির। তাকে চুপ থাকতে বলেছে সংস্থাটি। আর আইসিসির ধমকে উল্টো তোপ দাগিয়েছেন হোল্ডিং। জানিয়ে দিয়েছেন চুপ থাকতে হলে বাড়ির পথ ধরবেন এ কিংবদন্তি।

সে ম্যাচে ক্রিস গেইলের বিরুদ্ধে তিনবার এলবিডাব্লিউর আবেদনে সাড়া দেন আম্পায়ার। প্রথম দুইবার রিভিউ নিয়ে টিকে থাকলেও তৃতীয়টিতে ফিরতে হয় আম্পায়ার্স কলের কারণে। কিন্তু সে বলটি হতো ফ্রি-হিট। কারণ স্টার্কের আগে বলটি ছিল বেশ বড় নো-বল। শুধু তাই নয়, এর আগে ও পরে আরও বেশ কিছু নো-বল এড়িয়ে গেছেন আম্পায়ার। আর গেইল মাঠে টিকে থাকলে প্রতিপক্ষের কি হয় তা কারও অজানা নয়। তাই এমন আম্পায়ারিংকে জঘন্য বলতে কার্পণ্য করেননি হোল্ডিং।

হোল্ডিংয়ের এ প্রতিবাদে তাকে চুপ থাকতে বলে মেইলে বার্তা দেয় আইসিসি। আইসিসির সম্প্রচার স্বত্ত্ব পাওয়া সহযোগী প্রতিষ্ঠান সানসেট ও ভাইন এশিয়ার প্রডাকশন প্রধান হু বেভান জানান, ‘আইসিসি টিভির কাজ হচ্ছে এর নীতিগুলোকে সম্মান দেখানো। আমাদের সম্প্রচার সম্পর্কিত কোনও কিছু নিয়ে সংশয়, নেতিবাচক বিচার বিশ্লেষণ এর কাজ নয়। স্বাভাবিকভাবে লাইভ টিবিতে অন ফিল্ড আম্পায়ারিং নিয়ে আলোচনার সুযোগ থাকে। কিন্তু আইসিসি টিভির হোস্ট হিসেবে এ নিয়ে বিচার বিশ্লেষণ ও ভুলটা তুলে ধরা আমাদের কাজ নয়।’

শুধু হোল্ডিংকেই নয়, এক মেইলে ঝিকে মেরে বউ শিক্ষা দেওয়া মতো ব্যাপার তুলে ধরেছেন বেভান, 'সম্প্রচারে আমাদের অবশ্যই এসব এড়িয়ে যেতে হবে। আমাদের সম্প্রচারের মান বজায় রাখতে সবাইকে কঠিনভাবে জানিয়ে দেওয়া হচ্ছে এ ধরণের ব্যাপারগুলো সমর্থন করা হবে না।'

তবে সে মেইলের জবাবটা বেশ কড়াভাবে দিয়েছেন হোল্ডিং, ‘যদি এ আম্পায়াররা ফিফার অফিসিয়াল হতো তাহলে তখনই ব্যাগ গুছিয়ে বাড়ির পথ ধরতে হতো। বিশ্বকাপে তাদের আর কোনও ম্যাচে সুযোগ দেওয়া হতো না। একজন সাবেক ক্রিকেটার হিসেবে আমি বলতে চাই ক্রিকেট আরও উঁচু মানের হওয়া উচিৎ। একজন আম্পায়ার খারাপ কাজ করলেও তাকে রক্ষা করা কি এখানকার নীতি?'

‘দুঃখিত আমি এর অংশ হতে চাই না। দয়া করে আমাকে বলে দিলে আমি তাহলে কার্ডিফ না গিয়ে নিউমার্কেটে আমার বাড়িতে ফিরে যাই। এখানে যা বলা হয়েছে আমি তার সঙ্গে একমত নই। আমি খুশি এর অংশ না হওয়ায়।’- যোগ করে আরও বলেছেন হোল্ডিং।

Comments

The Daily Star  | English

44 lives lost to Bailey Road blaze

33 died at DMCH, 10 at the burn institute, and one at Central Police Hospital

8h ago