মোবাইল ফোনে খরচ বাড়বে

গত গত পাঁচটি বাজেট মানেই একটি বিষয় অন্তত নিশ্চিত আর তা হল ডিজিটাল সেবার খরচ বাড়ছেই। প্রতি বছরই হয় মোবাইল ফোন ব্যবহারের ওপর সরকারের ট্যাক্স বাড়ছে – সে হোক কথা বলায় বা ইন্টারনেট ব্যবহারে, আর না হয় মোবাইল ফোন কেনার ওপরে ট্যাক্স।
mobile phone
স্টার ফাইল ছবি

গত গত পাঁচটি বাজেট মানেই একটি বিষয় অন্তত নিশ্চিত আর তা হল ডিজিটাল সেবার খরচ বাড়ছেই। প্রতি বছরই হয় মোবাইল ফোন ব্যবহারের ওপর সরকারের ট্যাক্স বাড়ছে – সে হোক কথা বলায় বা ইন্টারনেট ব্যবহারে, আর না হয় মোবাইল ফোন কেনার ওপরে ট্যাক্স।

বৃদ্ধির এই ধারা থেকে এবারও সরকার এই খাতটিকে বাইরে রাখেনি। তাতে করে যেটি হবে, তাহলো ব্যবহার আগের মতো ঠিক রাখতে গেলে গ্রাহকের গাঁটের পয়সা আরও খানিকটা বেরিয়ে যাবে। আর খরচ ঠিক রাখতে গেলে কমাতে হবে সামগ্রিক ব্যবহার।

বৃহস্পতিবার প্রস্তাবিত বাজেটে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে নেওয়া সেবার ওপর সম্পূরক শুল্ক পাঁচ শতাংশ থেকে বাড়িয়ে ১০ শতাংশ করা হলো।

সন্ধ্যায়ই এ বিষয়ে এসআরও চলে আসবে বলে আমরা জানি-এর আগে অন্তত এমনটাই হয়েছে। তাতে করে আজ রাত থেকেই বাড়বে মানুষের মোবাইল ফোন ব্যবহারের খরচ।

নিশ্চিতভাবে এটি একটি দ্বিমুখিতা, যেখানে সরকার ডিজিটাল বাংলাদেশ বাস্তবায়ন করতে চাইছে আবার বছর বছর এই খাতের খরচ বাড়িয়ে দিচ্ছে।

জুন ২০১৫ পর্যন্তও মোবাইল ফোন ব্যবহারে শুধু ১৫ শতাংশ ভ্যাটই দিতেন গ্রাহক। এই ভ্যাটের প্রচলন অবশ্য দেশে যখন মোবাইল ফোন এসেছে সেই দিন থেকেই। ভ্যাটের এই বিষয়টি মানুষের গা সওয়াই ছিল।

কিন্তু তারপর থেকে প্রতিটি বাজেটে এই ধারার খরচ বেড়েছে। ২০১৫-১৬ সালের বাজেটে প্রথমবার মোবাইল ফোন ব্যবহারের ওপর সম্পূরক শুল্ক নিয়ে আসা হয়। প্রথমে ৫ শতাংশ সম্পূরক শুল্ক দিলেও পরে তা ৩ শতাংশে নামিয়ে আনা হয় বিভিন্ন পক্ষের দাবির প্রেক্ষিতে। কিন্তু দুই বছর বাদেই কিন্তু আবার এই শুল্ক ৫ শতাংশ করে দেওয়া হয়, যেটি এবার ১০ শতাংশে নিয়ে যাওয়া হলো।

মাঝে যোগ করা হয়েছে ১ শতাংশ সারচার্জ।

নতুন সম্পূরক শুল্ক আসার কারণে এখন মোবাইল ফোনের ব্যবহারের ওপর মোট ট্যাক্স গিয়ে দাঁড়াচ্ছে ২৭ দশমিক ৭৭ শতাংশে। ফলে কেউ মোবাইল ফোনের মাধ্যমে কোনো একটি সেবা নিতে যদি ১০০ টাকা রিচার্জ করেন তাহলে তিনি ৭৮ দশমিক ২৭ টাকার সেবা ব্যবহার করতে পারবেন। আর বাকি ২২ দশমিক ৭২ টাকাই চলে যাবে সরকারের কোষাগারে।

বাংলাদেশের মানুষ এখন একেকটি সংযোগে মাসে গড়ে ১৫০ টাকা খরচ করে। নতুন ট্যাক্সের করণে তার খরচের হিসেবে আরও ১৫ থেকে ২০ টাকা যোগ হবে। আর গত পাঁচ বছর ক্রমান্বয়ে খরচ বাড়ার হিসাবটা ধরলে টাকার অংক কয়েক হাজারে চলে যায়।

এর মধ্যে ২০১৭-১৮ সালের বাজেটে মোবাইল ফোন আমদানির ওপরে ভ্যাট একধাপে ১৫ শতাংশে নিয়ে আসা হয়, যদিও সে সময়ই স্থানীয় সংযোজনের ওপর দেওয়া হয় কিছু সুবিধা। আর পরের বছর হ্যান্ডসেট আমদানিতে বাড়িয়ে দেওয়া হয় সম্পূরক শুল্কও। ফলে যেটি হলো একেকটি স্মার্টফোনের ওপর গড় খরচ বাড়ল এক হাজার থেকে তিন হাজার টাকা পর্যন্ত।

আমারা বারবার দেখছি, এই খাত থেকে টাকা আয় করা যেহেতু অনেক সহজ আর সে কারণেই দফায় দফায় সরকার কেবল এই খাতের ওপরেই হাত বাড়াচ্ছে–নীতির দ্বিমুখিতা থাকার পরও।

Comments

The Daily Star  | English

Loan default now part of business model

Defaulting on loans is progressively becoming part of the business model to stay competitive, said Rehman Sobhan, chairman of the Centre for Policy Dialogue.

3h ago