এক সঙ্গে এত সাংবাদিক কখনো দেখেননি বাংলাদেশের কোচ

বাংলাদেশে আসার আগেই এক ডজন সাক্ষাতকার দিয়ে ফেলেছিলেন। বাংলাদেশের প্রধান কোচ মানে কতটা আগ্রহের বিষয় গতকাল বিমানবন্দরে নেমেই টের পেয়েছেন একবার। আর আজ (বুধবার) ভরপুর সংবাদ সম্মেলনে এসে রাসেল ডমিঙ্গো জানালেন এত সাংবাদিক একসঙ্গে কোনদিনই দেখেননি তিনি।
Russell Domingo
রাসেল ডোমিঙ্গো। ফাইল ছবি: ফিরোজ আহমেদ

বাংলাদেশে আসার আগেই এক ডজন সাক্ষাতকার দিয়ে ফেলেছিলেন। বাংলাদেশের প্রধান কোচ মানে কতটা আগ্রহের বিষয় গতকাল বিমানবন্দরে নেমেই টের পেয়েছেন একবার। আর আজ (বুধবার) ভরপুর সংবাদ সম্মেলনে এসে রাসেল ডমিঙ্গো জানালেন এত সাংবাদিক একসঙ্গে কোনদিনই দেখেননি তিনি।

প্রধান কোচ হিসেবে নিয়োগ নিশ্চিত হওয়ার পর মঙ্গলবার বিকেলে ঢাকায় নামেন রাসেল। গুলশানের হোটেলে রাত পার করে খুব সকালেই চলে এসেছিলেন মিরপুর শেরে বাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়ামে। ক্রিকেটারদের সঙ্গে আলাপ পরিচয়ের পর সকাল সাড়ে ১০টায় স্বদেশী পেস বোলিং কোচ চার্ল ল্যাঙ্গেভেল্টকে নিয়ে আসেন সংবাদ সম্মেলন কক্ষে।

তিনি আসবেন বলেই গণমাধ্যমের আগ্রহ ছিল তুমুল, প্রায় পুরো কক্ষই ছিল ভরপুর। ক্যামেরার শাটারে শত শত ক্লিকের আওয়াজের মাঝে জানালেন এক নতুন এক অভিজ্ঞতাই হতে যাচ্ছে তার,  ‘দক্ষিণ আফ্রিকায় বড় কোন ম্যাচের আগেও এত সাংবাদিক থাকে না, বড়জোর ৮-৯ জন রিপোর্টার দেখা যায়। আজ এখানে যত লোক, আমি একসঙ্গে জীবনেও এত রিপোর্টার দেখিনি। গতকাল বিমানবন্দরে বোধহয় শ’খানেক ক্যামেরা ছিল, পুলিশকে সামলাতে হয়েছে। সে এক পাগলাটে ব্যাপার। এখানে ক্রিকেটের প্রতি এরকম উন্মাদনাই আমাকে সবচেয়ে বেশি স্পর্শ করে। ক্রিকেটের তুমুল জোয়ার এখানে। এই বিষয়টি চাকরি নিতে আমাকে আগ্রহী করে তুলে।’

বাংলাদেশে অবশ্য এই প্রথম নয়। প্রতিপক্ষ দল নিয়ে এসেছেন অনেকবার। কিন্তু প্রতিপক্ষ বলেই হয়ত তখন তাকে নিয়ে তেমন আগ্রহ ছিল না। এখন বাংলাদেশের ঘরের মানুষ হয়ে যাওয়ায় আগ্রহের চূড়ায় তিনি। এই ব্যাপারটা ভীষণ উপভোগই করছেন বাংলাদেশের নতুন কোচ, ‘এবার নিয়ে বাংলাদেশে সপ্তমবার এলাম। প্রথমবার এসেছিলাম সেই ২০০৪ সালে অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপে (কোচ হিসেবে)। বাংলাদেশে ক্রিকেট নিয়ে মানুষের ব্যাপক আগ্রহ আমাকে প্রথমবারই স্পর্শ করেছে। আজকেও এখনে যেমন দেখা গেল।'

Comments

The Daily Star  | English

44 lives lost to Bailey Road blaze

33 died at DMCH, 10 at the burn institute, and one at Central Police Hospital

5h ago