আমরা মনে করি না, তারা বাংলাদেশি: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

আসামের নাগরিকপঞ্জির চূড়ান্ত তালিকা থেকে বাদ পড়া ব্যক্তিরা বাংলাদেশি কী না?- এমন প্রশ্নের উত্তরে বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে আব্দুল মোমেন বলেন, “আমরা মনে করি না যে তারা বাংলাদেশি।”
AK Abdul Momen
পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন। ফাইল ছবি

আসামের নাগরিকপঞ্জির চূড়ান্ত তালিকা থেকে বাদ পড়া ব্যক্তিরা বাংলাদেশি কী না?- এমন প্রশ্নের উত্তরে বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে আব্দুল মোমেন বলেন, “আমরা মনে করি না যে তারা বাংলাদেশি।”

আজ (৩১ আগস্ট) ভারতীয় সংবাদমাধ্যম টাইমস নাউকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোমেন এই মন্তব্য করেন।

নাগরিকপঞ্জি থেকে বাদ যাওয়া ব্যক্তিদের অনেককে বাংলাদেশি হিসেবে গণ্য করা হচ্ছে উল্লেখ করে সে বিষয়ে বাংলাদেশ সরকারের প্রতিক্রিয়া জানতে চাওয়া হলে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, “ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডি এস জয়শঙ্কর আমাকে বলেছেন যে এটি পুরোপুরি ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয় এবং বাংলাদেশকে এ নিয়ে উদ্বিগ্ন হওয়ার কিছু নেই। তিনি আরো বলেছেন যে কোনো পরিস্থিতিতেই বাংলাদেশের কোনো ক্ষতি হবে না। তাই আমরা বিষয়টিকে সেভাবেই দেখছি।”

আপনি কি মনে করেন যে যারা চূড়ান্ত তালিকা থেকে বাদ পড়েছেন তারা বাংলাদেশ থেকে এসেছেন?- এমন প্রশ্নের উত্তরে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, “আমি তা মনে করি না। কারণ, কোনো বাংলাদেশি যদি সেখানে গিয়ে থাকেন তাহলে তারা গিয়েছেন ১৯৪৭ সালের বা ১৯৭১ সালের আগে। এতোগুলো বছর থেকে তারা সেখানে থাকছেন। আমরা মনে করি না যে তারা বাংলাদেশি।”

একে আব্দুল মোমেন আরো বলেন, “বাংলাদেশিদের ভারতে যাওয়ার কোনো কারণ নেই। বাংলাদেশ অনেক ভালো করছে।… বাংলাদেশে মাথাপিছু আয় জীবনমানের খরচের চেয়ে তুলনামূলকভাবে বেশি। ভারতে চলে যাওয়ার কোনো সম্ভাবনা নেই। আমি জানি না, তারা কীভাবে এই সংখ্যাটি বের করেছেন।”

আরো পড়ুন:

আসামের নাগরিক তালিকা থেকে বাদ ১৯ লাখ

কী করবেন আসামের ১৯ লাখ মানুষ?

কারগিল যুদ্ধের সৈনিকও ভারতীয় নাগরিক নন!

তালিকায় নেই বিরোধীদলের বিধায়কের নাম

ভারতের ‘অভ্যন্তরীণ’-‘বাংলাদেশি’ ইস্যু!

এনআরসি নিয়ে সাধারণ মানুষের সঙ্গে প্রতারণা করছে কেন্দ্র: তরুণ গগৈ

Comments

The Daily Star  | English

Hefty power bill to weigh on consumers

The government has decided to increase electricity prices by Tk 0.70 a unit which according to experts will predictably make prices of essentials soar yet again ahead of Ramadan.

11m ago