ফাইনালে ভারতকে ১০৬ রানে গুটিয়ে দিল যুবারা

শুরুতেই ৩ উইকেট তুলে নিয়ে ভারতকে বেকায়দায় ফেলে দেয় বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দল। এরপর প্রতিপক্ষ ইনিংস মেরামতের চেষ্টা চালালেও সেই পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করতে দেয়নি যুবারা। বাঁহাতি পেসার মৃত্যুঞ্জয় চৌধুরী এবং অফ স্পিন অলরাউন্ডার শামিম হোসেনের দুর্দান্ত বোলিংয়ের জবাব খুঁজে না পেয়ে একশো পেরিয়েই গুঁড়িয়ে গেছে ভারত অনূর্ধ্ব-১৯ দল।
bangladesh u-19 cricket
ফাইল ছবি

শুরুতেই ৩ উইকেট তুলে নিয়ে ভারতকে বেকায়দায় ফেলে দেয় বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দল। এরপর প্রতিপক্ষ ইনিংস মেরামতের চেষ্টা চালালেও সেই পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করতে দেয়নি যুবারা। বাঁহাতি পেসার মৃত্যুঞ্জয় চৌধুরী এবং অফ স্পিন অলরাউন্ডার শামিম হোসেনের দুর্দান্ত বোলিংয়ের জবাব খুঁজে না পেয়ে একশো পেরিয়েই গুঁড়িয়ে গেছে ভারত অনূর্ধ্ব-১৯ দল।

শনিবার (১৪ সেপ্টেম্বর) কলম্বোর আর প্রেমাদাসা স্টেডিয়ামে ফাইনালে টসে জিতে ব্যাটিংয়ে নেমে ৩২.৪ ওভারে মাত্র ১০৬ রানে অলআউট হয়েছে ভারত। ফলে প্রথমবারের মতো যুব এশিয়া কাপের শিরোপা জিততে আকবর আলির নেতৃত্বাধীন দল পেয়েছে সহজ লক্ষ্য।

তৃতীয় ওভারেই ভারতের প্রথম উইকেটের পতন ঘটায় যুবারা। দলীয় ৩ রানে অর্জুন আজাদ আকবরের ক্যাচে পরিণত হন ডানহাতি পেসার তানজিম হাসান সাকিবের ডেলিভারিতে। শূন্য রানে ফেরেন এই ওপেনার। পরের ওভারে ২ রান করা তিলক ভার্মাকে ফিরিয়ে দেন মৃত্যুঞ্জয়। আরেক ওপেনার সুদেব পার্কারও টিকতে পারেননি। তানজিদ হাসান রানআউট করেন তাকে। সুদেবের ব্যাট থেকে আসে ৪ রান। ফলে ইনিংসের ষষ্ঠ ওভারে ৮ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে ভীষণ চাপে পড়ে ভারত।

এরপর প্রতিরোধ গড়ার চেষ্টায় লাগেন অধিনায়ক ধ্রুব জুরেল ও শাশ্বত রাওয়াত। তবে চতুর্থ উইকেটে তাদের ৪৫ রানের জুটি ভেঙে ফের উইকেট উৎসবে মাতে বাংলাদেশ। তিন বলের ব্যবধানে রাওয়াত ও বরুন লাভান্দেকে সাজঘরের পথ দেখান শামিম। রাওয়াত করেন ১৯ রান। লাভান্দে রানের খাতা খুলতে পারেননি।

অথর্ব আনকোলেকারকে রানআউট করে ২ রানের বেশি করতে দেননি মাহমুদুল হাসান জয়। আর ভারতের আশার আলো হয়ে জ্বলতে থাকা জুরেলকে বিদায় করে নিজের তৃতীয় উইকেটের দেখা পান শামিম। ভারতীয় দলনেতা ৫৭ বলে ৩৩ রান করেন ২ চার ও ১ ছয়ে। এরপর ব্যক্তিগত ৩ রানে সুশান্ত মিশ্র মিডিয়াম পেসার শাহিন আলমের এবং বিদ্যাধর পাতিল গোল্ডেন ডাক মেরে মৃত্যুঞ্জয়ের শিকার হন। তাতে ৮৪ রানে ৯ উইকেট হারিয়ে ফেলে ভারত।

যুব এশিয়া কাপের রেকর্ড ছয়বারের চ্যাম্পিয়ন ভারতের সংগ্রহ তিন অঙ্কে পৌঁছায় করণ লালের কল্যাণে। তিনি ৪৩ বলে ৩ চার ও ১ ছয়ে দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৩৭ রান করেন। তার উইকেটটিও নেন মৃত্যুঞ্জয়। সবমিলিয়ে ৭.৪ ওভার বল করে ১৮ রানে ৩ উইকেট নেন তিনি। শামিম ৬ ওভারে ২ মেডেনসহ মাত্র ৮ রান খরচ করে সমানসংখ্যক উইকেট পান।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

টস: ভারত অনূর্ধ্ব-১৯ দল

ভারত অনূর্ধ্ব-১৯ দল: ১০৬ (৩২.৪ ওভারে) (পার্কার ৪, আজাদ ০, ভার্মা ২, জুরেল ৩৩, রাওয়াত ১৯, লাভান্দে ০, আনকোলেকার ২, লাল ৩৭, মিশ্রা ৩, পাতিল ০, সিং ২*; তানজিম ১/২২, মৃত্যুঞ্জয় ৩/১৮, শাহিন ১/২৬, রাকিবুল ০/৩১, শামিম ৩/৮, হৃদয় ০/১)।

Comments

The Daily Star  | English