‘সতর্কতার কারণেই মেসিকে উঠিয়ে নেওয়া হয়েছে’

প্রতিপক্ষের তিন খেলোয়াড়ের মাঝ দিয়ে ড্রিবলিং করে বল নিয়ে বেরিয়ে যেতে চেয়েছিলেন লিওনেল মেসি। সফলও হয়েছিলেন। কিন্তু শেষ মুহূর্তে তাকে ফাউল করে আটকে দেন এক খেলোয়াড়। এরমাঝে ট্যাকল করার চেষ্টা করেছেন বাকী দুই জন। তাতেই চোট পান মেসি। শেষ পর্যন্ত দ্বিতীয়ার্ধে মাঠেই নামেননি। তাতে শঙ্কা জাগে আবার কি ইনজুরিতে পড়লেন এ তারকা। তবে সমর্থকদের আশ্বস্ত করেছেন কোচ এরনেস্তো ভালভার্দে। সতর্কতার কারণেই তাকে উঠিয়ে নেওয়া হয়েছে বলে জানান এ কোচ।
messi
লিওনেল মেসি। ছবি: এএফপি

প্রতিপক্ষের তিন খেলোয়াড়ের মাঝ দিয়ে ড্রিবলিং করে বল নিয়ে বেরিয়ে যেতে চেয়েছিলেন লিওনেল মেসি। সফলও হয়েছিলেন। কিন্তু শেষ মুহূর্তে তাকে ফাউল করে আটকে দেন এক খেলোয়াড়। এরমাঝে ট্যাকল করার চেষ্টা করেছেন বাকী দুই জন। তাতেই চোট পান মেসি। শেষ পর্যন্ত দ্বিতীয়ার্ধে মাঠেই নামেননি। তাতে শঙ্কা জাগে আবার কি ইনজুরিতে পড়লেন এ তারকা। তবে সমর্থকদের আশ্বস্ত করেছেন কোচ এরনেস্তো ভালভার্দে। সতর্কতার কারণেই তাকে উঠিয়ে নেওয়া হয়েছে বলে জানান এ কোচ।

মূলত মেসিকে নিয়ে কোন ঝুঁকি নিতে চাননি বার্সা কোচ। সদ্যই কাফ স্ট্রেইনের ইনজুরি থেকে ফিরেছেন তিনি। এরমধ্যেই একই একই পায়ের ঊরুতে আঘাত। ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে ভালভার্দে বলেছেন, 'যখন মেসির কোন কিছু হয় পুরো পৃথিবী স্তব্ধ হয়ে যায়। তবে এটা মাংসপেশিতে সামান্য আঘাতের চেয়ে বেশি কিছু নয়। আমরা তাকে তুলে নিয়েছি সতর্কতার কারণে।'

ঘটনাটি ঘটে ম্যাচের ২৬তম মিনিটে। এর আগে দারুণ ছন্দে ছিলেন মেসি। প্রথম গোলের যোগানদাতাও তিনি। তার জাদুতে ১৫ মিনিটেই দুই গোল আদায় করে নেয় দল। কিন্তু সে চোট পাওয়ার পর আর আগের মতো ছন্দে ছিলেন না। ছন্দ হারায় তার দলও। পরে একটি গোলও খেয়ে বসে। তবে শেষ পর্যন্ত জয় নিয়েই মাঠ ছেড়েছে দলটি। কিন্তু মন ভরাতে পারেনি। অ্যাওয়ে ম্যাচে এখনও জয় আসেনি। ঘরের মাঠে আগের দুই ম্যাচ দাপট দেখিয়ে জিতলেও এদিন জিততে বেশ কষ্ট হয়ে যায় তাদের।

তবে পয়েন্ট পাওয়াতেই বেশ খুশি ভালভার্দে, 'সবসময়ই আমাদের প্রথম কথা হচ্ছে জয়। আমার মনে হয় ঘরের মাঠে আমরা ভালোই খেলেছি। তবে প্রথমার্ধের কিছু সময় আমরা ভালো খেলতে পারিনি। তবে ঘরের মাঠে আমরা ভালোই ছিলাম। তবে এখন আমাদের দেখতে হবে ঘরের মাঠের মতো প্রতিপক্ষের মাঠেও একই ধারা বজায় রাখা যায় কীভাবে।'

আসরের শুরুতেই ডান পায়ের কাফ স্ট্রেইনের ইনজুরিতে পড়েন মেসি। শুরুতে ছোট চোট ভাবলেও সে চোটই তাকে মাঠ থেকে দূরে রাখে লম্বা সময়। পরে শেষ দুটি ম্যাচে দ্বিতীয়ার্ধে মাঠে নেমেছিলেন। তবে এদিন ভিয়ারিয়ালের বিপক্ষেই শুরুর একাদশে ছিলেন। তবে সেটাও স্বস্তিকর হলো না। তবে আশার কথা, বড় কোন দুর্ঘটনা ঘটেনি।

Comments

The Daily Star  | English

44 lives lost to Bailey Road blaze

33 died at DMCH, 10 at the burn institute, and one at Central Police Hospital

9h ago