গেটাফেকে অনায়াসে হারাল মেসিবিহীন বার্সেলোনা

চোটের কারণে অনির্দিষ্টকালের জন্য খেলার বাইরে দলের সেরা তারকা লিওনেল মেসি। তবে গেটাফের মতো সহজ প্রতিপক্ষের বিপক্ষে নেমে মেসির অভাব একদম অনুভব করেনি তারা। লুইস সুয়ারেজ আর জুনিয়র ফিরপোর গোলে অনায়াসে জয় পেয়েছে কাতালানরা।

চোটের কারণে অনির্দিষ্টকালের জন্য খেলার বাইরে দলের সেরা তারকা লিওনেল মেসি। তবে গেটাফের মতো সহজ প্রতিপক্ষের বিপক্ষে নেমে মেসির অভাব একদম অনুভব করেনি তারা। লুইস সুয়ারেজ আর জুনিয়র ফিরপোর গোলে অনায়াসে জয় পেয়েছে কাতালানরা।

শনিবার গেটাফের মাঠে গিয়ে স্বাগতিকদের ২-০ গোলে হারিয়েছে বার্সেলোনা। এই জয়ে সাত ম্যাচের চারটা জিতে ১৩ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের দ্বিতীয় স্থানে উঠে এসেছে তারা।

প্রতিপক্ষের মাঠ হলেও খেলায় অনুমিত আধিপত্য ছিল বার্সেলোনার। ৬১ ভাগ বল দখলে রেখে পুরো ম্যাচই নিয়ন্ত্রণ করেছে তারা।

তবে গেটাফের শক্ত রক্ষণের কারণে গোল পেতে শুরু বেশ কাঠখড় পোহাতে হয় বার্সাকে। প্রথম ২০ মিনিটে কোন দলই পারেনি সুযোগ তৈরি করতে। ২২ মিনিটে প্রথম সুযোগ বানায় গেটাফেই। কিন্তু গোলরক্ষক টের স্টেগানের দক্ষতায় ভেস্তে যায় অ্যালান নিওমের গোলের সুযোগ।

এরপর বার্সাকে তেমন সুযোগ তৈরি করতে দেয়নি স্বাগতিকরা।  ৪১ মিনিট পর্যন্ত বার্সাকে ঠেকিয়ে রাখার পর আর কুলাতে পারেনি গেটাফে। গোলরক্ষক ডেভিড সোরিয়ার মাথার উপর দিয়ে চিপ করে দলকে এগিয়ে নেন উরুগুয়াইন ফরোয়ার্ড লুইস সুয়ারেজ।

এক গোলই যেন খুলে দেয় আরেক গোলের পথ।  বিরতি থেকে এসেই ব্যবধান বাড়ায় বার্সেলোনা। ৪৯ মিনিটে কার্লস পেরেজের মাটি কামড়ানো শট ফিরিয়ে দিলেও নাগালের মধ্যে রাখতে পারেননি সোরিয়া। পায়ের সামনে বল পেয়ে জুনিয়র ফিরপো এগিয়ে দেন বার্সেলোনাকে।

৭১ মিনিটে ম্যাচের তৃতীয় গোলের সুযোগ পেয়েছিলেন পেরেজ। তবে এবার সোরিয়াকে পরাস্ত করতে পারেননি তিনি। ব্যবধান আরও বাড়ানোর বদলে মিনিট দশেক পরে বিপাকে পড়ে বার্সা। সেন্টার ব্যাক ক্লিমেন্ট লেঙ্গলেট দ্বিতীয় হলুদ কার্ড দেখে মাঠ ছাড়লে দশ জনের দলে পরিণত হয় তারা। তবে বাদ বাকি কয়েকমিনিট সামলে ব্যবধান কমাতে দেয়নি এরনেস্তো ভালবার্দের শিষ্যরা।

Comments