ছাঁটাইয়ের প্রতিবাদে মেট্রোরেল শ্রমিকদের বিক্ষোভ

চুক্তিভিত্তিক চাকরি থেকে ছাঁটাইয়ের প্রতিবাদে রাজধানীর মিরপুর এলাকায় বেগম রোকেয়া সরণিতে বিক্ষোভ করেছে ঢাকা মেট্রোরেল প্রকল্পের শ্রমিকদের একাংশ।
Metro-Rail-Workers-1.jpg
১ অক্টোবর ২০১৯, রাজধানীর বেগম রোকেয়া সরণিতে মেট্রোরেল শ্রমিকদের বিক্ষাভ মিছিল। ছবি: স্টার

চুক্তিভিত্তিক চাকরি থেকে ছাঁটাইয়ের প্রতিবাদে রাজধানীর মিরপুর এলাকায় বেগম রোকেয়া সরণিতে বিক্ষোভ করেছে ঢাকা মেট্রোরেল প্রকল্পের শ্রমিকদের একাংশ।

ঘটনাস্থল থেকে আমাদের সংবাদদাতা জানান, আজ (১ অক্টোবর) সকাল সাড়ে ১০টার দিকে প্রায় ২০০ শ্রমিক মিরপুর-১০ নম্বর সড়কে জড়ো হন। এরপর তারা বেগম রোকেয়া সরণিতে বিক্ষোভ মিছিল করেন।

এসময় তাদের সঙ্গে আরও অনেক শ্রমিক যোগ দেন। দুপর ১টায় এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত তারা বেগম রোকেয়া সরণিতে অবস্থান করে বিক্ষোভ করছিলেন বলে জানা গেছে।

মেট্রোরেল প্রকল্প শ্রমিক ফারুক ইসলাম দ্য ডেইলি স্টারকে জানান, ২০১৮ সালে তাকে মাসিক ১৩ হাজার টাকা বেতনে তিন বছরের জন্য চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ দেয় স্থানীয় নিয়োগদাতা সংস্থা মাসুদ এন্টারপ্রাইজ। কিন্তু সংস্থাটি এবার তাকে চাকরি ছেড়ে দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে।

তিনি জানান, ওই সংস্থাটি গত ২৬ সেপ্টেম্বর আটজন শ্রমিককে ছাঁটাই করেছে এবং আরও শ্রমিককে ছাঁটাই করবে বলে জানিয়েছে। তবে তারা এখনও অবৈধ উপায়ে প্রচুর সংখ্যক শ্রমিককে নিয়োগ দিচ্ছে।

তার মতো আরও অনেক শ্রমিককে চাকরি ছেড়ে দিতে ওই সংস্থা থেকে চাপ দেওয়া হচ্ছে বলেও অভিযোগ করেছেন ফারুক।

এ বিষয়ে মেট্রোরেল প্রকল্পে শ্রমিক নিয়োগদাতা প্রতিষ্ঠান মাসুদ এন্টারপ্রাইজের সহকারী ব্যবস্থাপক আমিনুল ইসলাম দ্য ডেইলি স্টারকে জানান, মেট্রোরেল প্রকল্পের কাজ কমে আসায় ৪ হাজার ৫০০ শ্রমিকের মধ্যে ৬২৪ জনকে ছাঁটাই করবে মাসুদ এন্টারপ্রাইজ ও আদনান এন্টারপ্রাইজ।

চুক্তির শর্ত মেনেই শ্রমিকদের ছাঁটাই করা হবে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

ঢাকা ম্যাস র‍্যাপিড ট্রানজিট কোম্পানির (ডিএমটিসিএল) ব্যবস্থাপনা পরিচালক এম এ এন সিদ্দিক দ্য ডেইলি স্টারকে বলেন, “ঢাকা মেট্রোরেল প্রকল্পে কাজের পরিমাণ কমে আসতে থাকায় স্বাভাবিকভাবেই শ্রমিকদের প্রয়োজনীয়তা হ্রাস পাবে। তাছাড়া, মিরপুর এলাকায় মেট্রোরেল প্রকল্পের বড় একটি অংশের কাজ ইতিমধ্যে শেষ হয়ে গেছে।”

“যেহেতু প্রকল্পের ঠিকাদাররা উপ-ঠিকাদারদের মাধ্যমে অস্থায়ীভাবে শ্রমিকদের নিয়োগ দেয়, সেক্ষেত্রে এ বিষয়ে হস্তক্ষেপ করা প্রকল্প কর্তৃপক্ষের কাজ নয়”, বলেন তিনি।

মিরপুর এলাকায় প্রকল্পের কাজ কমে আসায় হয়তো উপ-ঠিকাদাররা শ্রমিকদের চাকরি ছেড়ে দিতে বলেছেন বলেও জানান তিনি।

শ্রমিক নিয়োগের সঙ্গে মেট্রোরেল প্রকল্প কর্তৃপক্ষের কোনো সম্পর্ক নেই জানিয়ে এম এ এন সিদ্দিক আরও বলেন, “কোনো শ্রমিককে সরাসরি নিয়োগ এবং ছাঁটাই করার আইনগত কোনো সুযোগ আমাদের নেই।”

যদিও, ঢাকা ম্যাস র‍্যাপিড ট্রানজিট কোম্পানি পুরো প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করছে।

Comments

The Daily Star  | English

JS passes Speedy Trial Bill amid opposition protest

With the passing of the bill, the law becomes permanent; JP MPs say it may become a tool to oppress the opposition

1h ago