৩১৭ রানের উদ্বোধনী জুটিতে রোহিত-আগারওয়ালের যত কীর্তি

দক্ষিণ আফ্রিকার বোলারদের হতাশার সাগরের অথৈ পানিতে হাবুডুবু খাইয়েছেন ভারতের দুই ওপেনার রোহিত শর্মা ও মায়াঙ্ক আগারওয়াল। আগের দিনের অবিচ্ছিন্ন ২০২ রানের জুটিকে তারা বৃহস্পতিবার (৩ অক্টোবর) দ্বিতীয় দিনে টেনে নিয়ে গেছেন ৩১৭ পর্যন্ত। বিশাখাপত্নমে টেস্ট ক্যারিয়ারে প্রথমবার ওপেনিংয়ে নেমে রোহিত খেলেছেন ১৭৬ রানের ইনিংস। আগারওয়াল আরও এগিয়ে। সাদা পোশাকে পঞ্চম ম্যাচ খেলতে নেমে নিজের অভিষেক সেঞ্চুরিকে তিনি রূপ দিয়েছেন ডাবলে, সাজঘরে ফেরার আগে করেছেন ২১৫ রান।
agarwal-rohit
মায়াঙ্ক আগারওয়াল (বামে)-রোহিত শর্মা। ছবি: বিসিসিআই টুইটার

দক্ষিণ আফ্রিকার বোলারদের হতাশার সাগরের অথৈ পানিতে হাবুডুবু খাইয়েছেন ভারতের দুই ওপেনার রোহিত শর্মা ও মায়াঙ্ক আগারওয়াল। আগের দিনের অবিচ্ছিন্ন ২০২ রানের জুটিকে তারা বৃহস্পতিবার (৩ অক্টোবর) দ্বিতীয় দিনে টেনে নিয়ে গেছেন ৩১৭ পর্যন্ত। বিশাখাপত্নমে টেস্ট ক্যারিয়ারে প্রথমবার ওপেনিংয়ে নেমে রোহিত খেলেছেন ১৭৬ রানের ইনিংস। আগারওয়াল আরও এগিয়ে। সাদা পোশাকে পঞ্চম ম্যাচ খেলতে নেমে নিজের অভিষেক সেঞ্চুরিকে তিনি রূপ দিয়েছেন ডাবলে, সাজঘরে ফেরার আগে করেছেন ২১৫ রান।

টেস্টে ভারতের তৃতীয় সর্বোচ্চ ওপেনিং জুটির রেকর্ড গড়েছেন রোহিত-আগারওয়াল। দক্ষিণ আফ্রিকার অনভিজ্ঞ বোলিং আক্রমণ তাদের কাছে ছিল নির্বিষ। ইনিংসের ৮২তম ওভারের শেষ ডেলিভারিতে কেশব মহারাজের বলে রোহিত স্টাম্পড হলে ভাঙে ৩১৭ রানের বিশাল জুটি। এই ফরম্যাটে ওপেনিংয়ে ভারতীয়দের সর্বোচ্চ জুটিটি ভিনু মানকড় ও পঙ্কজ রয়ের দখলে। তারা ১৯৫৬ সালে চেন্নাইতে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ৪১৩ রানের জুটি গড়েছিলেন। দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে বিরেন্দর শেবাগ-রাহুল দ্রাবিড় জুটি। ২০০৬ সালে লাহোরে পাকিস্তানের বিপক্ষে ৪১০ রান যোগ করেছিলেন তারা।

দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে যে কোনো উইকেটে রোহিত-আগারওয়ালের ৩১৭ রানের জুটিই ভারতের পক্ষে সর্বোচ্চ। আগের কীর্তির মালিক ছিলেন শেবাগ-দ্রাবিড়। তারা ২০০৮ সালে চেন্নাইতে প্রোটিয়াদের বিপক্ষে দ্বিতীয় উইকেটে ২৬৮ রান তুলেছিলেন। আর উদ্বোধনী জুটিতে সর্বোচ্চ ছিল ২১৮ রান। এই রেকর্ডের সঙ্গেও জড়িয়ে আছেন শেবাগ। তার সঙ্গী ছিলেন গৌতম গম্ভীর। তারা ২০০৪ সালে কানপুরে ওই জুটিটি গড়েছিলেন।

১০ বছরেরও বেশি সময় পর দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে কোনো দলের দুই ওপেনার একই ইনিংসে সেঞ্চুরি করেছেন। রোহিত-আগারওয়ালের আগে সবশেষ এই নজির দেখিয়েছিলেন অস্ট্রেলিয়ার ফিল হিউজ ও সাইমন ক্যাটিচ। ২০০৯ সালের মার্চে ডারবানে হিউজ করেছিলেন ১১৫ রান, ক্যাটিচের ব্যাট থেকে এসেছিল ১০৮ রান। প্রোটিয়াদের বিপক্ষে নবমবারের মতো এই ঘটনা ঘটেছে। তবে চমকপ্রদ ব্যাপার হলো, আগের আটবারই ইংল্যান্ড বা অস্ট্রেলিয়ার ওপেনাররা একই ইনিংসে জোড়া সেঞ্চুরি করেছিলেন।

ছয় বছর পর টেস্ট ক্রিকেটে কোনো ওপেনিং জুটি ৮০ বা তার বেশি ওভার টিকে থাকার কৃতিত্ব দেখিয়েছে। রোহিত-আগারওয়ালের ৮২ ওভারের জুটির আগে শেষবার এই কীর্তি গড়েছিলেন ইংল্যান্ডের অ্যালিস্টার কুক ও নিক কম্পটন। তারা ২০১৩ সালে ডানেডিনে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ব্যাট করেছিলেন ৮৪.৫ ওভার। তার আগে ২০০৮ সালে দুবার এই তালিকায় নাম লিখিয়েছিলেন দক্ষিণ আফ্রিকার গ্রায়েম স্মিথ ও নিল ম্যাকেঞ্জি, ইংল্যান্ড ও বাংলাদেশের বিপক্ষে।

এই প্রতিবেদন লেখার সময়, তিন ম্যাচ সিরিজের প্রথম টেস্টের দ্বিতীয় দিনের শেষ সেশনে ব্যাটিং করছে ভারত। ১৩৩ ওভার শেষে প্রথম ইনিংসে তাদের সংগ্রহ ৭ উইকেটে ৪৯৫ রান। উইকেটে আছেন রবীন্দ্র জাদেজা ২৪ ও মাত্রই নামা রবিচন্দ্রন অশ্বিন ০ রানে।

Comments

The Daily Star  | English
Wealth accumulation: Heaps of stocks expose Matiur’s wrongdoing

Wealth accumulation: Heaps of stocks expose Matiur’s wrongdoing

NBR official Md Matiur Rahman, who has come under the scanner amid controversy over his wealth, has made a big fortune through investments in the stock market, raising questions about the means he applied in the process.

18h ago