৪৯ বছর পর ন্যু ক্যাম্পের গেরো খুললেন এক আর্জেন্টাইন

সেই ১৯৭০ সালে। এরপর কেটে গেছে ৪৯ বছর। লম্বা এ সময়ে ন্যু ক্যাম্পে বার্সেলোনার বিপক্ষে জয় তো দূরের কথা একটা গোলও করতে পারছিল না ইন্টার মিলান। তবে লম্বা অপেক্ষার সমাপ্তি হয়েছে। ন্যু ক্যাম্পে আবার গোল পেয়েছে ইন্টার। গোলদাতা দলের আর্জেন্টাইন তারকা লাউতারো মার্তিনেজ। কিন্তু ন্যু ক্যাম্পের গেরো খুলতে পারলেও দলকে জয় এনে দিতে পারেননি এ তারকা।
ছবি: এএফপি

সেই ১৯৭০ সালে। এরপর কেটে গেছে ৪৯ বছর। লম্বা এ সময়ে ন্যু ক্যাম্পে বার্সেলোনার বিপক্ষে জয় তো দূরের কথা একটা গোলও করতে পারছিল না ইন্টার মিলান। তবে লম্বা অপেক্ষার সমাপ্তি হয়েছে। ন্যু ক্যাম্পে আবার গোল পেয়েছে ইন্টার। গোলদাতা দলের আর্জেন্টাইন তারকা লাউতারো মার্তিনেজ। কিন্তু ন্যু ক্যাম্পের গেরো খুলতে পারলেও দলকে জয় এনে দিতে পারেননি এ তারকা।

আগের দিন চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ম্যাচের দ্বিতীয় মিনিটেই ন্যু ক্যাম্পকে স্তব্ধ করে দিয়েছিলেন লাউতারো মার্তিনেজ। মাঝ মাঠে জটলা থেকে আলতো টোকায় সামনের দিকে বল বাড়িয়েছিলেন আলেক্সিস সানচেজ। সে বল দারুণভাবে নিয়ন্ত্রণে নিয়ে বাঁ প্রান্ত থেকে কোণাকোণি শটে লক্ষ্যভেদ করেন এ আর্জেন্টাইন। যদিও বার্সার এমন গোল খাওয়ায় অনেকটাই দায় রয়েছে জেরার্দ পিকের। কিন্তু তাতে মার্তিনেজের নিখুঁত ফিনিশিংয়ের সৌন্দর্য বিন্দুমাত্র কমেনি। এরপর দুটি দুর্দান্ত গোল করে জয় ছিনিয়ে নেন বার্সার লুইস সুয়ারেজ।

তবে সে গোলেই কেটেছে ৪৯ বছরের গেরো। সবশেষ ১৯৭০ সালের ১৪ জানুয়ারি ইন্টার-সিটিস ফেয়ার্স কাপে বার্সেলোনার মাঠে ২-১ গোলে জিতেছিল ইন্টার মিলান। সে ম্যাচের নবম মিনিটে বনিনেগনা ও ২৪তম মিনিটে বেরতিনি গোল দিয়েছিলেন। সেই শেষ। এতো বছর পর আবার বার্সার মাঠে গোল পেলেও জয় পাওয়া হয়নি নারাজ্জুরিদের।

অথচ ফর্মে থাকা মার্তিনেজের মূল একাদশে জায়গা পাওয়াটা হঠাৎ করেই কঠিন হয়ে গেছে। কারণ ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড থেকে কেনা দুই ফরোয়ার্ড রোমেলু লুকাকু ও আলেক্সিস সানচেজও দারুণ খেলছেন। তবে লুকাকুর ইনজুরিই মূল একাদশে জায়গা করে দেয় মার্তিনেজের। আর সুযোগটা বেশ দারুণভাবেই কাজে লাগিয়েছেন এ আর্জেন্টাইন।

Comments

The Daily Star  | English

Hasina writes back to Biden

Prime Minister Sheikh Hasina has written back to US President Joe Biden

1h ago