‘ভারতের মাটি থেকে পয়েন্ট নিয়ে ফিরতে পারব’

বর্তমান এশিয়ান চ্যাম্পিয়ন ও ২০২২ বিশ্বকাপের আয়োজক কাতারের বিপক্ষে দুর্দান্ত পারফরম্যান্সের পর দারুণ উজ্জীবিত বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দল। তাদের পরবর্তী চ্যালেঞ্জের নাম ভারত। কাতারের বিপক্ষে লড়াইয়ের পর আত্মবিশ্বাসের পালে জোর হাওয়া লাগায় প্রতিবেশী দেশটির মাঠ থেকে পয়েন্ট নিয়ে ফিরতে আশাবাদী বাংলাদেশ দলের সেন্টার ব্যাক ইয়াসিন খান।
bangladesh football team
কলকাতায় হোটেলে বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দল। ছবি: বাফুফে

বর্তমান এশিয়ান চ্যাম্পিয়ন ও ২০২২ বিশ্বকাপের আয়োজক কাতারের বিপক্ষে দুর্দান্ত পারফরম্যান্সের পর দারুণ উজ্জীবিত বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দল। তাদের পরবর্তী চ্যালেঞ্জের নাম ভারত। কাতারের বিপক্ষে লড়াইয়ের পর আত্মবিশ্বাসের পালে জোর হাওয়া লাগায় প্রতিবেশী দেশটির মাঠ থেকে পয়েন্ট নিয়ে ফিরতে আশাবাদী বাংলাদেশ দলের সেন্টার ব্যাক ইয়াসিন খান।

২০২২ বিশ্বকাপ ও ২০২৩ এশিয়ান কাপের যৌথ বাছাইয়ে 'ই' গ্রুপে নিজেদের তৃতীয় ম্যাচে আগামী মঙ্গলবার ভারতের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ। ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হবে কলকাতার সল্টলেক স্টেডিয়ামে। খেলা শুরু হবে বাংলাদেশ সময় রাত আটটায়।

বাছাই পর্বে এখন পর্যন্ত দুটি ম্যাচ খেলে দুটিতেই হেরেছে বাংলাদেশ। আফগানিস্তানের কাছে অ্যাওয়ে ম্যাচে ১-০ গোলে হারের পর হোম ম্যাচে কাতারের কাছে ২-০ গোলে হেরেছে জেমি ডের শিষ্যরা। তবে শক্তিশালী কাতারের বিপক্ষে বাংলাদেশের পারফরম্যান্স নজর কেড়েছে সবার। সামর্থ্য আর যোগ্যতায় বিস্তর ব্যবধানে এগিয়ে থাকা দলটির সঙ্গে সেয়ানে সেয়ানে লড়াই করেছে বাংলাদেশ। তাতে খেলোয়াড়দের মনোবল হয়েছে চাঙা, বেড়েছে আত্মবিশ্বাস। তাই ভারতের বিপক্ষে ইতিবাচক ফলের প্রত্যাশায় রয়েছে বাংলাদেশ।

ভারতকে মোকাবিলা করতে এরই মধ্যে কলকাতায় পা রেখেছে বাংলাদেশ। দেশ ছাড়ার আগে দ্য ডেইলি স্টারের সঙ্গে আলাপচারিতায় ইয়াসিন জানান নিজেদের লক্ষ্যের কথা, ‘আমি জানি না, ভারতের বিপক্ষে আমরা কী ধরনের ফরমেশনে খেলব, তবে আমি আশাবাদী, কাতারের বিপক্ষে যেমন খেলেছি, সেভাবে খেলতে পারলে ভারতের মাটি থেকে পয়েন্ট নিয়ে ফিরতে পারব।’

কাতার ও ভারত ম্যাচের জন্য প্রস্তুতির অংশ হিসেবে কয়েকদিন আগে ভুটানের সঙ্গে ঘরের মাঠে দুটি প্রীতি ম্যাচ খেলেছিল বাংলাদেশ। দ্বিতীয় ম্যাচে ডিফেন্ডার ইয়াসিনের জোড়া গোলে ২-০ ব্যবধানে জিতেছিল লাল-সবুজের দল। ওই ম্যাচের জয়ের নায়ক যোগ করেন, ‘আমি মনে করি, কলকাতার আবহাওয়া বাংলাদেশের মতোই। ম্যাচের ভেন্যু আমাদের অনেকের কাছেই পরিচিত। কারণে শেখ জামালের (ধানমন্ডি ক্লাব) হয়ে ২০১৪ সালে সেখানে আইফা শিল্ডের ফাইনাল খেলেছিলাম আমরা। কাতারের বিপক্ষে বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে যেমন প্রচুর দর্শক সমাগম হয়েছিল, আমার মনে হয়, সেখানেও ওদের পক্ষে তেমনটা থাকবে। কিন্তু আমরা শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত লড়াই করব।’

বাংলাদেশ অধিনায়ক জামাল ভূঁইয়া ইয়াসিনের কথার সঙ্গে একমত হলেও কাতার ম্যাচ নিয়ে আর মাথা ঘামাতে রাজি নন। তার সকল মনোযোগ এখন ভারতের সঙ্গে দ্বৈরথের দিকে। এক ভিডিও বার্তায় তিনি বলেন, ‘আগের ফল ভুলে যেতে হবে। এখন ভারতের সঙ্গে আমাদের একটি গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচ রয়েছে এবং এই গ্রুপে আমাদের ভালো কিছু করার সুযোগ রয়েছে। বাংলাদেশ-ভারত ম্যাচটা ৫০/৫০ হবে কিংবা ভারতের পক্ষে ৫৫/৪৫ হবে। আমরা ভালো কিছুর প্রত্যাশা করছি।’

Comments

The Daily Star  | English
Bangladesh lacking in remittance earning compared to four South Asian countries

Remittance hits eight-month high

In February, migrants sent home $2.16 billion, up 39% year-on-year

1h ago