দক্ষিণ আফ্রিকাকে গুঁড়িয়ে রেকর্ড গড়ল ভারত

দ্বিতীয় ইনিংসেও ব্যর্থ দক্ষিণ আফ্রিকার তারকা ব্যাটসম্যানরা। প্রথম ইনিংসের মতো আবারও প্রতিরোধ গড়ার চেষ্টা চালিয়েছিলেন দুই টেলএন্ডার ভারনন ফিল্যান্ডার ও কেশব মহারাজ। কিন্তু উমেশ যাদব-রবীন্দ্র জাদেজাদের মারাত্মক বোলিংয়ের বিপক্ষে পেরে ওঠেননি তারা। পারেননি দলের ইনিংস হার ঠেকাতে। প্রোটিয়াদের গুঁড়িয়ে এক ম্যাচ হাতে রেখে সিরিজ জেতার পাশাপাশি রেকর্ড গড়েছে ভারত।
india cricket team
ছবি: আইসিসির টুইটার পেজ

দ্বিতীয় ইনিংসেও ব্যর্থ দক্ষিণ আফ্রিকার তারকা ব্যাটসম্যানরা। প্রথম ইনিংসের মতো আবারও প্রতিরোধ গড়ার চেষ্টা চালিয়েছিলেন দুই টেলএন্ডার ভারনন ফিল্যান্ডার ও কেশব মহারাজ। কিন্তু উমেশ যাদব-রবীন্দ্র জাদেজাদের মারাত্মক বোলিংয়ের বিপক্ষে পেরে ওঠেননি তারা। পারেননি দলের ইনিংস হার ঠেকাতে। প্রোটিয়াদের গুঁড়িয়ে এক ম্যাচ হাতে রেখে সিরিজ জেতার পাশাপাশি রেকর্ড গড়েছে ভারত।

রবিবার (১৩ অক্টোবর) পুনেতে সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টের চতুর্থ দিনে দ্বিতীয় ইনিংসে মাত্র ১৮৯ রানে গুটিয়ে গেছে দক্ষিণ আফ্রিকা। আগের দিন শেষ বিকালে প্রথম ইনিংসে ২৭৫ রানে অলআউট হওয়ায় ফলো-অনে পড়েছিলেন ফ্যাফ ডু প্লেসিরা। এর আগে ৫ উইকেটে ৬০১ রান তুলে প্রথম ইনিংস ঘোষণা করেছিল বিরাট কোহলির দল।

ফলে ইনিংস ও ১৩৭ রানে ম্যাচ জিতে নিয়েছে ভারত। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে টেস্টে এটাই তাদের সবচেয়ে বড় জয়। এর আগে ২০১০ সালে কলকাতার ইডেন গার্ডেন্সে ইনিংস ও ৫৭ রানে টেস্ট হেরেছিল প্রোটিয়ারা। সিরিজ জিতে বিশ্ব রেকর্ডও গড়েছে ভারত। ঘরের মাঠে টানা ১১ টেস্ট সিরিজ জেতার নতুন কীর্তি গড়েছে তারা।

চতুর্থ দিন সকালে সফরকারীদের ফলো-অন করানোর সিদ্ধান্ত নেন কোহলি। ইতিহাসে এবারই প্রথম দক্ষিণ আফ্রিকাকে ফলো-অন করাল ভারত। দ্বিতীয়বার ব্যাটিংয়ে নেমেও অবশ্য ভাগ্য বদলাতে পারেনি দলটি। ভারতীয়দের নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে ফের ইনিংসের শুরু থেকেই বিপর্যয়ে পড়ে তারা। যার রেশ থাকে একেবারে শেষ পর্যন্ত।

দিনের দ্বিতীয় বলেই ইশান্ত শর্মার ডেলিভারিতে এলবিডব্লিউ হন এইডেন মার্করাম। আবারও শূন্য রানে ফেরেন তিনি। এরপর থিউনিস ডে ব্রুইনকে উইকেটরক্ষক ঋদ্ধিমান সাহার ক্যাচে পরিণত করেন উমেশ। তৃতীয় উইকেটে প্রতিরোধের চেষ্টা চালান আরেক ওপেনার ডিন এলগার ও দলনেতা ডু প্লেসি।

মাটি কামড়ে থাকা ডু প্লেসিকে ফিরিয়ে ৪৯ রানের জুটি ভাঙেন রবিচন্দ্রন অশ্বিন। ৫৪ বলে ৫ রান করেন তিনি। নিজের পরের ওভারে থিতু হয়ে যাওয়া এলগারকেও বিদায় করেন অশ্বিন। ৭২ বলে ৮ চারে দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৪৮ রান করেন তিনি।

কুইন্টন ডি কককে টিকতে দেননি জাদেজা। তাতে ৭৯ রানে ৫ উইকেট খুইয়ে ফেলে দক্ষিণ আফ্রিকা। এরপর ষষ্ঠ উইকেটে ৪৬ রান যোগ করেন টেম্বা বাভুমা ও সেনুরান মুথুসামি। ৬৩ বলে ৩৮ রান করা বাভুমার বিদায়ের পরের ওভারে সাজঘরে ফেরেন মুথুসামিও।

অষ্টম উইকেটে ইনিংসের সেরা জুটিটি পায় প্রোটিয়ারা। ফিল্যান্ডার ও মহারাজ ৫৬ রান যোগ করেন। চা বিরতির পরপরই থামে তাদের লড়াই। ৭২ বলে ৩৭ রান করে উমেশের শিকার হন ফিল্যান্ডার। একই ওভারে কাগিসো রাবাদাকেও আউট করেন তিনি। পরের ওভারে ৬৫ বলে ২২ রান করা মহারাজকে ঝুলিতে পুরে দক্ষিণ আফ্রিকার ইনিংসের ইতি টানেন জাদেজা।

পেসার উমেশ ৮ ওভারে ৩ মেডেনসহ ৩ উইকেট নেন ২২ রানে। স্পিনার জাদেজা ২১.২ ওভারে ৪ মেডেনসহ সমানসংখ্যক উইকেট দখল করেন ৫২ রানের বিনিময়ে। ২ উইকেট পান আরেক স্পিনার অশ্বিন।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

ভারত প্রথম ইনিংস: ৬০১/৫ (ইনিংস ঘোষণা)

দক্ষিণ আফ্রিকা প্রথম ইনিংস: ২৭৫

দক্ষিণ আফ্রিকা দ্বিতীয় ইনিংস: ৬৭.২ ওভারে ১৮৯ (মার্করাম ০, এলগার ৪৮, ডে ব্রুইন ৮, ডু প্লেসি ৫, বাভুমা ৩৮, ডি কক ৫, মুথুসামি ৯, ফিল্যান্ডার ৩৭, মহারাজ ২২, রাবাদা ৪, নর্তিয়ে ০*; ইশান্ত ১/১৭, উমেশ ৩/২২, শামি ১/৩৪, অশ্বিন ২/৪৫, জাদেজা ৩/৫২, রোহিত ০/৪, কোহলি ০/৪)

ফল: ভারত ইনিংস ও ১৩৭ রানে জয়ী।

ম্যাচসেরা: বিরাট কোহলি।

Comments

The Daily Star  | English
 foreign serial

Iran-Israel tensions: Dhaka wants peace in Middle East

Saying that Bangladesh does not want war in the Middle East, Foreign Minister Hasan Mahmud urged the international community to help de-escalate tensions between Iran and Israel

6h ago