‘নিজেদের উপর বিশ্বাস রাখলে ভালো কিছু করতে পারবে বাংলাদেশ’

ড্যানিয়েল কলিন্দ্রেস। সব শেষ রাশিয়া বিশ্বকাপের স্কোয়াডে ছিলেন কোস্টারিকার এ খেলোয়াড়। সার্বিয়া ও সুইজারল্যান্ডের বিপক্ষে মাঠেও নেমেছেন। সুইজারল্যান্ডের বিপক্ষে মূল একাদশে থেকে খেলেছেন ৮১ মিনিট পর্যন্ত। বিশ্বকাপ মাতানো এ ফুটবলার এখন নিয়মিত খেলছেন বাংলাদেশের লিগে। আর লাল সবুজের এ দেশটিকে ভালোবেসেও ফেলেছেন তিনি। ভারতের বিপক্ষে তার সমর্থন স্বাভাবিকভাবেই ছিল গ্রিন টাইগারদের পক্ষেই।
colindres

ড্যানিয়েল কলিন্দ্রেস। সব শেষ রাশিয়া বিশ্বকাপের স্কোয়াডে ছিলেন কোস্টারিকার এ খেলোয়াড়। সার্বিয়া ও সুইজারল্যান্ডের বিপক্ষে মাঠেও নেমেছিলেন। সুইজারল্যান্ডের বিপক্ষে মূল একাদশে থেকে খেলেছিলেন ৮১তম মিনিট পর্যন্ত। বিশ্বকাপ মাতানো এ ফুটবলার এখন নিয়মিত খেলছেন বাংলাদেশের লিগে। আর লাল-সবুজের এ দেশটিকে ভালোবেসেও ফেলেছেন তিনি। বাংলাদেশ-ভারত ম্যাচে তার সমর্থন স্বাভাবিকভাবেই ছিল গ্রিন টাইগারদের পক্ষেই।

কলকাতার সল্ট লেকে গেল মঙ্গলবার ভারতের সঙ্গে দারুণ এক লড়াই লড়েছেন বাংলাদেশের ফুটবলাররা। শেষ পর্যন্ত জিততে না পারলেও খেলা প্রাণ ভরে উপভোগ করেছেন দেশের ভক্ত-সমর্থকরা। সে ম্যাচটি দেখেছেন কলিন্দ্রেসও। ৩৪ বছর বয়সী তারকার বিশ্লেষণ, বাংলাদেশের খেলোয়াড়দের মধ্যে আত্মবিশ্বাসের ছাপটা আরও বাড়ানো দরকার, ‘ভারতের বিপক্ষে তাদের বিশ্বাস রাখা দরকার ছিল যে, ম্যাচটা তারা জিততে পারে।’

ভারতের বিপক্ষে আন্ডার-ডগ হিসেবেই মাঠে নেমেছিল বাংলাদেশ। র‍্যাঙ্কিংয়ে তাদের চেয়ে ৮৩ ধাপ নিচে অবস্থান করছে জামাল ভূঁইয়ারা। ভারতের অবস্থান ১০৪ নম্বরে। অন্যদিকে, বাংলাদেশ আছে প্রায় তলানিতেই। কিন্তু মাঠে প্রতিপক্ষকে কাঁপিয়ে দেয় লাল-সবুজের দল। নিজেদের উপর আস্থাটা বাড়াতে পারলে সামনে আরও ভালো কিছু করা সম্ভব বলে মনে করেন কলিন্দ্রেস।

ফুটবলের সর্বোচ্চ মঞ্চ বিশ্বকাপে খেলার অনন্য স্বাদ নেওয়া এই ফরোয়ার্ডের কণ্ঠে তাই বারবারই ঘুরে ফিরে এসেছে আত্মবিশ্বাসের কথা, ‘আমার মনে হয় নিজেদের উপর বিশ্বাস রাখতে হবে বাংলাদেশি খেলোয়াড়দের। কারণ তাদের খুব ভালো কিছু খেলোয়াড় রয়েছে। তাদের ভালো কিছু ডিফেন্ডার আছে, মিডফিল্ডার আছে। এমনকি স্ট্রাইকারও আছে। তাই তাদের নিজেদের উপর বিশ্বাস রাখতে হবে। তাদের নিজেদের সামর্থ্যের উপর বিশ্বাস রাখতে হবে। তারা চাইলে খুব ভালো খেলতে পারে।’

গত বছর থেকে দেশের লিগে খেলায় বাংলাদেশের খেলোয়াড়দের মান কেমন তা ভালো করেই জানেন কলিন্দ্রেস। নিজেদের উপর বিশ্বাস রেখে খেললে ভবিষ্যতে শুধু ভারত নয়, আরও বড় দলের বিপক্ষে বাংলাদেশ জয় পাবে বলে মনে করেন তিনি, ‘যদি তারা পরের ম্যাচ গুলো ধাপে ধাপে নেয়, তাহলে তারা ভারত, আফগানিস্তান, ওমান এমনকি কাতারকেও হারাতে পারবে। এটা (ভারত ম্যাচ) একটা ধাপ ছিল তাদের এগিয়ে যাওয়ার।’

শুধু ভারতের সঙ্গে নয়, আগের ম্যাচে কাতারের বিপক্ষেও দারুণ খেলেছে বাংলাদেশ। তাই দেশের ফুটবল নিয়ে ফের আশাবাদী হয়ে উঠেছেন ভক্ত-সমর্থকরা। আর এর অন্যতম কারিগর ইংলিশ কোচ জেমি ডে। খেলোয়াড়দের ফিটনেসে আমূল পরিবর্তন এনে দিয়েছেন এ কোচ। তাই বাংলাদেশিদের তার প্রতি ভরসা রাখতে বললেন কলিন্দ্রেস, ‘কোচ জেমির উপর বিশ্বাস রাখতে হবে। তিনি যেটা বলেন, মাঠে সেটা কাজে লাগানোর সর্বোচ্চ চেষ্টা করতে হবে।’

কাতার ও ভারত- দুদলের বিপক্ষেই দারুণ কিছু সুযোগ তৈরি করেছিল বাংলাদেশ। ভালো ফিনিশিং দিতে পারলে হয়তো দুটি ম্যাচেই জয় পেতে পারত তারা। এর জন্য ফরোয়ার্ডদের ব্যর্থতাকেই দায় দিচ্ছেন ফুটবল বোদ্ধারা। তবে কলিন্দ্রেস এক্ষেত্রে জোর দিচ্ছেন দলগত ফুটবলের উপর, ‘নির্দিষ্ট কোনো দিকে নয়, মাঠ ১১ জন খেলে। পরিস্থিতি অনুযায়ী দল হিসেবে খেলতে হবে। অবশ্যই দল হিসেবে খেলতে হবে। যদি দল হিসেবে খেলতে পারেন, তাহলে আপনি যে কোনো কিছুই করতে পারবেন।’

Comments

The Daily Star  | English

Create right conditions for Rohingya repatriation: G7

Foreign ministers from the Group of Seven (G7) countries have stressed the need to create conditions for the voluntary, safe, dignified, and sustainable return of all Rohingya refugees and displaced persons to Myanmar

6h ago