খেলা

মুশফিককে আদর্শ মানেন এই ভারতীয় তরুণী ক্রিকেটার

মুশফিকুর রহিম ফিল্ডিং অনুশীলন শেষ করে বিশ্রাম নিচ্ছিলেন। কয়েক গজ দূরেই তার জন্য তীর্থের কাকের মতো দাঁড়িয়ে এক তরুণী ক্রিকেটার। মুশফিকের সঙ্গে একবার দেখা করতে চান, একটু কথা বলতে চান। সম্ভব হলে একটি ছবি স্মৃতিতে বাঁধিয়ে রাখার ব্যবস্থা যদি করা যায়। সৌরাষ্ট্র অনূর্ধ্ব-২৩ দলের উইকেটরক্ষক-ব্যাটার ঋদ্ধি রুপারেলের সঙ্গে কথা বলে জানা গেল, তিনি খেলতে গিয়েছিলেন বাংলাদেশেও।
mushfiqur rahim and riddhi
ঋদ্ধি রুপারেল ও মুশফিকুর রহিম (ডানে)। ছবি: একুশ তাপাদার

মুশফিকুর রহিম ফিল্ডিং অনুশীলন শেষ করে বিশ্রাম নিচ্ছিলেন। কয়েক গজ দূরেই তার জন্য তীর্থের কাকের মতো দাঁড়িয়ে এক তরুণী ক্রিকেটার। মুশফিকের সঙ্গে একবার দেখা করতে চান, একটু কথা বলতে চান। সম্ভব হলে একটি ছবি স্মৃতিতে বাঁধিয়ে রাখার ব্যবস্থা যদি করা যায়। সৌরাষ্ট্র অনূর্ধ্ব-২৩ দলের উইকেটরক্ষক-ব্যাটার ঋদ্ধি রুপারেলের সঙ্গে কথা বলে জানা গেল, তিনি খেলতে গিয়েছিলেন বাংলাদেশেও।

সৌরাষ্ট্র ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনে মঙ্গলবার (৫ নভেম্বর) সকালবেলা বাংলাদেশের অনুশীলন জেনে ঋদ্ধি চলে আসেন মাঠে। তার মতো আরও কয়েকজন নারী ক্রিকেটারকেও দেখা গেল বাংলাদেশের অনুশীলনের মনোযোগী দর্শক হিসেবে। তবে ঋদ্ধি তাদের চেয়ে আলাদা। বাকি সবাই চলে গেলেও তিনি অপেক্ষা করে গেলন মুশফিকের জন্য।

মূলত কম উচ্চতার উইকেটরক্ষক-ব্যাটসম্যানদের অনুসরণ করেন ঋদ্ধি। মুশফিককে ভালো লাগার এটা প্রথম কারণ ছিল। পরে মুশফিকের ব্যাটিং তার মনে ধরে যায় বেশ। দিল্লিতে সিরিজের প্রথম টি-টোয়েন্টিতে মুশফিকের ম্যাচ জেতানো ৪৩ বলে ৬০ রানের অপরাজিত ইনিংসটা নিয়ে প্রায় মুখস্থ বলে গেলেন ঋদ্ধি, ‘আমি তাকে আদর্শ মনে করি। কারণ আমিও উইকেটকিপার এবং টপ অর্ডার ব্যাটার। শুরুতে উনি কিছুটা সময় নেন, পরে হুট করে খেলাটা বদলে দেন। ক্যাচ পড়ার (ক্রুনাল পান্ডিয়ার হাত থেকে) পরও তার অ্যাপ্রোচ ইতিবাচক ছিল।’

‘উনার উচ্চতা আমার মতো। আমি সব সময় আমার উচ্চতার উইকেটকিপারদের আদর্শ মানি। গত ম্যাচে উনি যেভাবে খেলেছেন, সেটা ছিল দারুণ। ক্যাচটা পড়ার পরে চারটা বাউন্ডারি মেরে উনি যেভাবে খেলা শেষ করেছেন, তা উইকেটকিপার-ব্যাটসম্যানের জন্য স্বপ্নের মতো।’ 

riddhi
ঋদ্ধি রুপারেল। ছবি: একুশ তাপাদার

গত বছর কলবাগান ক্রীড়া চক্রের হয়ে নারী প্রিমিয়ার ক্রিকেট লিগ খেলতে বাংলাদেশে গিয়েছিলেন ঋদ্ধি। দেখা করতে চেয়েছিলেন মুশফিক আর সাকিব আল হাসানের সঙ্গে, ‘গত বছর আমি যখন কলাবাগান ক্রীড়া চক্রের হয়ে বাংলাদেশে খেলতে গেলাম, তার সঙ্গে দেখা করতে চেয়েছিলাম। সাকিব আল হাসানের সঙ্গেও দেখা করতে চেয়েছিলাম। কিন্তু তারা কোনো এক টুর্নামেন্টে ব্যস্ত ছিলেন।’ 

সেবার দেখা না হলেও এবার দেশের মাটিতে দেখা হয়ে গেল। ঋদ্ধির কথা জেনে নিজ থেকে উঠে এলেন মুশফিক। আলাদা করে কথা বললেন এই ভক্তের সঙ্গে, মেটালেন ছবি তোলার আবদার। 

মুশফিক ছাড়াও সাকিব, মোস্তাফিজুর রহমানেরও ভক্ত ঋদ্ধি। তবে মুশফিক তার কাছে আলাদা স্থান করে নিয়েছেন। ভারতে এত ক্রিকেটার থাকতে মুশফিকের প্রতি এই অনুরাগের ব্যাখ্যা ঋদ্ধি দিলেন পরিণত মস্তিষ্কে, ‘ক্রিকেট দুনিয়াটা আসলে উন্মুক্ত। হ্যাঁ, ভারতীয় ক্রিকেটারদেরও পছন্দ, যেমন (মহেন্দ্র সিং) ধোনি। কিন্তু তাদের খেলা অনেক আলাদা। মুশফিকের খেলার ধরন আমার মতো, এই কারণে আমি তার সঙ্গে বেশি একাত্মতা বোধ করি।’

Comments

The Daily Star  | English

US sanction on Aziz not under visa policy: foreign minister

Bangladesh embassy in Washington was informed about the sanction, he says

2h ago