বাংলাদেশকে চোখ রাঙাচ্ছে ইনিংস হার

টেস্টে ইনিংস হারের তেতো স্বাদ নিতে অভ্যস্ত বাংলাদেশ। ইন্দোর টেস্টেও সেই পথে এগোচ্ছে মুমিনুল হকের দল। মায়াঙ্ক আগারওয়ালের ডাবল সেঞ্চুরির সঙ্গে চেতেশ্বর পূজারা, আজিঙ্কা রাহানে ও রবীন্দ্র জাদেজার হাফসেঞ্চুরিতে দ্বিতীয় দিনে শেষেই ৩৪৩ রানের লিড নিয়েছে ভারত। প্রথম ইনিংসে বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতার সূত্র টেনে তাই বলতে হচ্ছে, রাসেল ডমিঙ্গোর শিষ্যদের চোখ রাঙাচ্ছে আরও একটি ইনিংস হার।
mayank and mominul
ছবি: বিসিসিআই

টেস্টে ইনিংস হারের তেতো স্বাদ নিতে অভ্যস্ত বাংলাদেশ। ইন্দোর টেস্টেও সেই পথে এগোচ্ছে মুমিনুল হকের দল। মায়াঙ্ক আগারওয়ালের ডাবল সেঞ্চুরির সঙ্গে চেতেশ্বর পূজারা, আজিঙ্কা রাহানে ও রবীন্দ্র জাদেজার হাফসেঞ্চুরিতে দ্বিতীয় দিনে শেষেই ৩৪৩ রানের লিড নিয়েছে ভারত। প্রথম ইনিংসে বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতার সূত্র টেনে তাই বলতে হচ্ছে, রাসেল ডমিঙ্গোর শিষ্যদের চোখ রাঙাচ্ছে আরও একটি ইনিংস হার।

শুক্রবার (১৫ নভেম্বর) হল্কার স্টেডিয়ামে দ্বিতীয় দিনের খেলা শেষ হওয়ার আগে প্রথম ইনিংসে ৬ উইকেটে ৪৯৩ রান তুলেছে ভারত। উইকেটে আছেন জাদেজা ৬০ ও উমেশ ২৫ রানে।

প্রথম দিন ভারতীয় বোলিং গুঁড়িয়ে দিয়েছিল বাংলাদেশের ব্যাটিং। এদিনে ভারতের ব্যাটসম্যানদের রানের চাকায় পিষ্ট হয়েছে বাংলাদেশের বোলিং। ৮৮ ওভার খেলেই ভারত তুলেছে ৪০৭ রান! প্রথম সেশনে ২৬ ওভারে ২ উইকেট হারিয়ে ১০২ রান তোলার পর দ্বিতীয় সেশনে ২৮ ওভারে কোনো উইকেট না হারিয়ে তারা যোগ করে ১১৫ রান। তৃতীয় সেশনে রানের জোয়ার বয়ে গেছে। ৩০ ওভারে ১৯০ রান করেছে ভারতীয়রা!

আগের দিন ৩২ রানে সহজ ক্যাচ দিয়েও বেঁচে যাওয়া মায়াঙ্ক ক্যারিয়ারসেরা ২৪৩ রানের ইনিংস খেলেন। ৮২ রানে রিভিউ নিয়ে টিকে যাওয়া এই ডানহাতি ব্যাটসম্যান ৮ ছক্কা মেরে স্পর্শ করেছেন সাদা পোশাকে এক ইনিংসে সবচেয়ে বেশি ছয় হাঁকানোর ভারতীয় রেকর্ড। সবশেষ পাঁচ ইনিংসে এটি তার তৃতীয় সেঞ্চুরি, দ্বিতীয় ডাবল। সেঞ্চুরির আশা জাগিয়ে রাহানে আউট হন ৮৬ রানে। পূজারার ব্যাট থেকে আসে ৫৪ রান। ছয়ে নেমে জাদেজাও পান ফিফটির দেখা। চতুর্থ উইকেটে মায়াঙ্ক-রাহানে জুটিতে আসে ১৯০ রান। এরপর পঞ্চম উইকেটে জাদেজা-মায়াঙ্ক যোগ করেন ১২৩ রান।

তবে দিনের শুরুটা দারুণ ছিল বাংলাদেশের। পরপর দুই ওভারে পূজারা ও ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলিকে ফিরিয়ে দিয়ে লড়াইয়ের ইঙ্গিত দিয়েছিলেন আবু জায়েদ রাহি। এর মধ্যে কোহলি ২ বলে খেলে শূন্য রানে মাঠ ছাড়েন। কিন্তু সময় গড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে চাপ আলগা হয়ে যায়, থাকেনি বোলিংয়ের ধার। পেসবান্ধব উইকেটে একজন পেসার কম থাকার ঘাটতি প্রকট হয়ে উঠতে থাকে। নির্বিষ থাকেন দুই স্পিনার তাইজুল ইসলাম ও মেহেদী হাসান মিরাজ। সেসব কাজে লাগিয়ে রানের গতি বাড়িয়ে পাঁচশো ছোঁয়ার পথে ভারত।

বাংলাদেশের হয়ে আবু জায়েদ পেয়েছেন চারটি উইকেট। শেষ ঘণ্টায় একটি করে উইকেট নিয়েছেন পেসার ইবাদত হোসেন ও অফ স্পিনার মিরাজ। তবে ওই সময়েই ভারতের রান তোলার গতি ছিল সবচেয়ে বেশি। শেষ ১০ ওভারে তারা নিয়েছে ৯৭ রান।

আগের দিন টস জিতে ব্যাটিংয়ে নেমে ভারতীয় বোলারদের তোপের মুখে চা বিরতির পরপরই বাংলাদেশ প্রথম ইনিংসে গুটিয়ে যায় ১৫০ রানে। ভারত দিনের খেলা শেষ করেছিল ২৬ ওভারে ১ উইকেট হারিয়ে ৮৬ রান তুলে।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

(দ্বিতীয় দিন শেষে)

বাংলাদেশ প্রথম ইনিংস: ৫৮.৩ ওভারে ১৫০ (সাদমান ৬, ইমরুল ৬, মুমিনুল ৩৭, মিঠুন ১৩, মুশফিক ৪৩, মাহমুদউল্লাহ ১০, লিটন ২১, মিরাজ ০, তাইজুল ১, আবু জায়েদ ৭*, ইবাদত ২; ইশান্ত ২/২০, উমেশ  ২/৪৭, শামি ৩/২৭, অশ্বিন ২/৪৩, জাদেজা ০/১০)

ভারত প্রথম ইনিংস: (আগের দিন ৮৬/১) ১১৪ ওভারে ৪৯৩/৬ (মায়াঙ্ক ২৪৩, রোহিত ৬, পূজারা ৫৪, রাহানে ৮৬, জাদেজা ৬০*, ঋদ্ধিমান ১২, উমেশ ২৫*; ইবাদত ১/১১৫, আবু জায়েদ ৪/১০৮, তাইজুল ০/১২০, মিরাজ ১/১২৫, মাহমুদউল্লাহ ০/২৪)।

Comments

The Daily Star  | English
biman flyers

Biman does a 180 to buy Airbus planes

In January this year, Biman found that it would be making massive losses if it bought two Airbus A350 planes.

7h ago