ভারত-উইন্ডিজ সিরিজে ‘নো বল’ ডাকবেন তৃতীয় আম্পায়ার

আইসিসির সবশেষ প্রযুক্তিগত মহড়ার অংশ হিসেবে ভারত ও ওয়েস্ট ইন্ডিজের মধ্যকার টি-টোয়েন্টি ও ওয়ানডে সিরিজে বোলারদের সামনের পায়ের ‘নো বল’- এর বিষয়ে সিদ্ধান্ত দেবেন তৃতীয় আম্পায়ার।
no ball
ছবি: টুইটার থেকে নেওয়া

আইসিসির সবশেষ প্রযুক্তিগত মহড়ার অংশ হিসেবে ভারত ও ওয়েস্ট ইন্ডিজের মধ্যকার টি-টোয়েন্টি ও ওয়ানডে সিরিজে বোলারদের সামনের পায়ের ‘নো বল’- এর বিষয়ে সিদ্ধান্ত দেবেন তৃতীয় আম্পায়ার।

বৃহস্পতিবার (৫ ডিসেম্বর) ক্রিকেটের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থার পক্ষ থেকে এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, মাঠের আম্পায়াররা ম্যাচের অন্য সব সিদ্ধান্ত ‘আগের মতো’ই নেবেন। কেবল বোলার ‘ওভারস্টেপিং’ করছেন কিনা তা নিশ্চিত করতে অর্থাৎ সামনের পায়ের ‘নো বল’ ধরতে প্রতিটি ডেলিভারি পর্যবেক্ষণ করবেন তৃতীয় আম্পায়ার।

আইসিসি বলেছে, ‘যদি সামনের পায়ে সীমা অতিক্রমের কোনো ঘটনা ঘটে, তাহলে তৃতীয় আম্পায়ার মাঠের আম্পায়ারের সঙ্গে যোগাযোগ করবেন। এরপর মাঠের আম্পায়ার “নো বল” ডাকবেন। অর্থাৎ তৃতীয় আম্পায়ারের পরামর্শ ছাড়া মাঠের আম্পায়ার “নো বল” ডাকতে পারবেন না।’

তবে যদি এমন কোনো ঘটনা ঘটে যেখানে তৃতীয় আম্পায়ারও দ্বিধায় পড়ে যান, ছবি দেখে ‘নো বল’ শনাক্ত করতে না পারেন, সেক্ষেত্রে ‘বেনিফিট অব ডাউট’ যাবে বোলারের পক্ষে। মানে দাঁড়াল, ‘নো বল’ ডাকা হবে না।

আবার, যদি ব্যাটসম্যান আউট হওয়ার পর তৃতীয় আম্পায়ার ধরতে পারেন যে বলটি ‘নো’ ছিল, তাহলে পরে তাকে ডেকে পাঠানো হবে। তিনি আবার ব্যাট করতে পারবেন এবং আগের অবস্থান থেকে ইনিংস শুরু করতে পারবেন।

তবে এখনই আনুষ্ঠানিকভাবে এই প্রযুক্তি চালু হচ্ছে না। পরীক্ষামূলকভাবে ভারত-উইন্ডিজের সীমিত ওভারের দুটি সিরিজে এটি ব্যবহৃত হবে। দ্বিতীয়বারের মতো এই পরীক্ষা-নিরীক্ষা করতে যাচ্ছে আইসিসি। এর আগে ২০১৬ সালে ইংল্যান্ড ও পাকিস্তানের মধ্যকার ওয়ানডে সিরিজে সামনের পায়ের ‘নো বল’ পর্যবেক্ষণ করেছিলেন তৃতীয় আম্পায়ার।

বিবৃতিতে আরও বলা হয়েছে, ‘পদ্ধতিটি “নো বল”- এর সিদ্ধান্তকে নিখুঁত করতে কোনো ইতিবাচক প্রভাব ফেলে কিনা তা পরিমাপ করতে এবং খেলার গতিকে খুব বেশি বাধাগ্রস্ত না করে একে প্রয়োগ করা যায় কিনা তা বুঝতে এই সিরিজের মহড়া থেকে পাওয়া ফল ব্যবহার করা হবে।’

চলতি বছরের অগাস্টে ক্রিকেট কমিটির সুপারিশের প্রেক্ষিতে আইসিসি সামনের পায়ের ‘নো বল’ ধরতে তৃতীয় আম্পায়ারের দিকে ঝোঁকার পথে হাঁটছে। কারণ এই বিষয়টি নিয়ে বহুবার নানা রকমের বিতর্ক তৈরি হয়েছে। পরীক্ষা-নিরীক্ষা ফলপ্রসূ হলে আসতে পারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত।

উল্লেখ্য, ভারত ও ওয়েস্ট ইন্ডিজের মধ্যকার তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথমটি অনুষ্ঠিত হচ্ছে আজ শুক্রবার। হায়দরাবাদে খেলা শুরু বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা সাড়ে সাতটায়। আর তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ মাঠে গড়াবে আগামী ১৫ ডিসেম্বর থেকে।

Comments

The Daily Star  | English

Sea-level rise in Bangladesh: Faster than global average

Bangladesh is experiencing a faster sea-level rise than the global average of 3.42mm a year, which will impact food production and livelihoods even more than previously thought, government studies have found.

8h ago