রোমাঞ্চকর শেষ দিনের অপেক্ষায় কেপটাউন টেস্ট

ডম সিবলির ক্যারিয়ারের প্রথম সেঞ্চুরি আর বেন স্টোকসের ঝড়। দুইয়ে মিলে দক্ষিণ আফ্রিকাকে বিশাল লক্ষ্য ছুঁড়ে দেয় ইংল্যান্ড। জিততে হলে টেস্টে সর্বোচ্চ রান তাড়ার রেকর্ডই করতে হবে প্রোটিয়াদের। অবশ্য অভিষিক্ত পিটার মালানের দারুণ ব্যাটিংয়ে ম্যাচও জমিয়ে তুলেছে দলটি। শেষ দিনের রোমাঞ্চকর সমাপ্তির পথে কেপটাউন টেস্ট।
ছবি: এএফপি

ডম সিবলির ক্যারিয়ারের প্রথম সেঞ্চুরি আর বেন স্টোকসের ঝড়। দুইয়ে মিলে দক্ষিণ আফ্রিকাকে বিশাল লক্ষ্য ছুঁড়ে দেয় ইংল্যান্ড। জিততে হলে টেস্টে সর্বোচ্চ রান তাড়ার রেকর্ডই করতে হবে প্রোটিয়াদের। অবশ্য অভিষিক্ত পিটার মালানের দারুণ ব্যাটিংয়ে ম্যাচও জমিয়ে তুলেছে দলটি। শেষ দিনের রোমাঞ্চকর সমাপ্তির পথে কেপটাউন টেস্ট।

মঙ্গলবার টেস্টের চতুর্থ দিন শেষে জয়ের জন্য ৪৩৮ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ২ উইকেটে ১২৬ রান তুলেছে দক্ষিণ আফ্রিকা। ৪৩৮ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে দুই ওপেনার পিটার মালান ও ডিন এলগারের সৌজন্যে ৭১ রানের ওপেনিং জুটি পায় দক্ষিণ আফ্রিকা। এরপর এলগার আউট হয়ে গেলে জুবায়ের হামজাকে নিয়ে ৫২ রানের আরও একটি জুটি গড়েন মালান। এরপর হামজা আউট হয়ে নাইটওয়াচম্যান হিসেবে নামা কেশব মহারাজকে নিয়ে চতুর্থ দিনের খেলা শেষ করেন এ ওপেনার।

৬৩ রানে অপরাজিত মালান। ১৯৩ বলে ২টি চারের সাহায্যে এ রান করেছেন এ ওপেনার। তার সঙ্গে অপরাজিত রয়েছেন নাইটওয়াচম্যান কেশব মহারাজ। ইংলিশদের পক্ষে জো ডেনলি ও জেমস অ্যান্ডারসন ১টি করে উইকেট নেন।

 এর আগে আগের দিনের ৪ উইকেটে ২১৮ রান নিয়ে ব্যাট করতে নামে ইংল্যান্ড। ৮৫ রানে ব্যাটিংয়ে থাকা ডম সিবলি এদিন সকালেই তুলে নেন তার ক্যারিয়ারের প্রথম সেঞ্চুরি। বেন স্টোকসের সঙ্গে ৯২ রানের দারুণ এক জুটি গড়েন তিনি। অবশ্য জুটিতে মূল অবদান স্টোকসেরই। টি-টোয়েন্টি স্টাইলে ব্যাট করে ৭২ রান আসে তার ব্যাট থেকেই। মাত্র ৪৭ বলে ৭টি চার ও ৩টি ছক্কায় এ রান করেন তিনি।

স্টোকসের বিদায়ের পর অবশ্য আর কোন ব্যাটসম্যান সে অর্থে দায়িত্ব নিতে পারেননি। তবে সিবলি এক প্রান্ত আগলে রাখার সৌজন্যে পাওয়া ৪৩৭ রানের বড় লিড নিয়েই ইনিংস ঘোষণা করেন ইংলিশ অধিনায়ক জো রুট। হার না মানা ১৩৩ রান করে মাঠ ছাড়েন সিবলি। ৩১১ বলের ধৈর্যশীল ইনিংসটি ১৯টি চার ও ১টি ছক্কায় সাজান এ ওপেনার। দক্ষিণ আফ্রিকার পক্ষে ৬১ রানের খরচায় ৩টি উইকেট আনরিচ নরটজে।

২০০৩ সালে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ৪১৮ রানের লক্ষ্য তাড়া করে ৩ উইকেট জিতেছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ। এটাই এখন পর্যন্ত রান তারা করে সর্বোচ্চ জয়ের রেকর্ড। অবশ্য দক্ষিণ আফ্রিকারও নিজেদের দারুণ রেকর্ড রয়েছে। রান তাড়ায় দ্বিতীয় সর্বোচ্চ জয়টি তাদেরই। ২০০৮ সালে পার্থ টেস্টে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ৪১৪ রান তাড়া করে জিতেছিল দলটি।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

ইংল্যান্ড ১ম ইনিংস: ২৬৯

দক্ষিণ আফ্রিকা ১ম ইনিংস: ২২৩

ইংল্যান্ড ২য় ইনিংস: (আগের দিন ২১৮/৪) ১১১ ওভারে ৩৯১/৮ ইনিংস ঘোষণা (সিবলি ১৩৩*, স্টোকস ৭২, পোপ ৩, বাটলার ২৩, কারান ১৩, ব্রড ৮*; রাবাদা ২/৬৯, ফিল্যান্ডার ০/২৪, নরটজে ৩/৬১, প্রিটোরিয়াস ১/৫৬, মহারাজ ২/১৬০)।

দক্ষিণ আফ্রিকা ২য় ইনিংস: (লক্ষ্য ৪৩৮) ৫৬ ওভারে ১২৬/২ (মালান ৬৩*, এলগার ৩৪, হামজা ১৮, মহারাজ ২*; অ্যান্ডারসন ১/১৮, ব্রড ০/২০, বেস ০/২৯, কারান ০/১৩, ডেনলি ১/২৬, রুট ০/৭, স্টোকস ০/৮)।

Comments

The Daily Star  | English

Bangladeshi students terrified over attack on foreigners in Kyrgyzstan

Mobs attacked medical students, including Bangladeshis and Indians, in Kyrgyzstani capital Bishkek on Friday and now they are staying indoors fearing further attacks

4h ago