জেএনইউতে হামলা

হামলার দায় স্বীকার হিন্দু রক্ষা দলের, মামলা যারা মার খেয়েছে তাদের বিরুদ্ধে!

ভারতের দিল্লির জওয়াহারলাল নেহরু বিশ্ববিদ্যালয়ে (জেএনইউ) হামলার ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রনেতা ঐশি ঘোষের বিরুদ্ধে মামলা করেছে পুলিশ। হামলার ঘটনায় যিনি নিজেই গুরুতর আহত।
দিল্লির জওহরলাল নেহেরু বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের ওপর সন্ত্রাসীদের হামলা। ছবি: এনডিটিভি

ভারতের দিল্লির জওয়াহারলাল নেহরু বিশ্ববিদ্যালয়ে (জেএনইউ) হামলার ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রনেতা ঐশি ঘোষের বিরুদ্ধে মামলা করেছে পুলিশ। হামলার ঘটনায় যিনি নিজেই গুরুতর আহত।

পুলিশের অভিযোগ, রোববার (৫ জানুয়ারি) হামলার একদিন আগে জেএনইউর ছাত্র সংসদের প্রধান ঐশি ঘোষ এবং আরও ১৯ শিক্ষার্থী বিশ্ববিদ্যালয়ের সার্ভাররুমে ভাঙচুর চালান। সেইসঙ্গে নিরাপত্তাকর্মীদের ওপর হামলা চালায়।

এ ঘটনা সাজানো বলে তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছেন অভিযুক্ত ঐশি ঘোষ। এনডিটিভিকে তিনি বলেন, “কোনো সংহিসতা করিনি, কোনো ব্যবস্থা নেয়ার আগে পুলিশকে অবশ্যই তা প্রমাণ করতে হবে।” তিনি দাবি করেন, এটি বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের বানানো কাহিনি।

রোববার (৫ জানুয়ারি) রাতে জেএনইউ ক্যাম্পাসে লোহার রড নিয়ে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের ওপর হামলা চালায় একদল মুখোশাধারী। হামলায় আহত হন অন্তত ২৬ জন।

ঘটনার পরপরই ক্ষোভে ফেটে পড়েন ভারতের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা।

হামলার দায় স্বীকার

জেএনইউতে হামলার ঘটনায় যখন প্রতিবাদ, ক্ষোভে মুখর গোটা ভারত। তখন হামলার দায় স্বীকার করল ‘হিন্দু রক্ষা দল’ নামের একটি সংগঠন। ভারতীয় সংবাদ সংস্থা এএনআইকে দলের নেতা পিংকি চৌধুরী বলেন, “জেএনইউতে হামলা চালিয়েছে আমাদেরই নেতাকর্মীরা।”

এনডিটিভি পিংকি চৌধুরীকে উদ্ধৃত করে জানায়, “জেএনইউতে রাষ্ট্রবিরোধী কার্যকলাপ চলছে, আমরা এটি সহ্য করতে পারি না। হামলার পুরো দায় আমরা নিচ্ছি।”

তবে সমালোচনাকারীরা বলছেন, বিজেপির ছাত্রশাখা অখিল ভারতীয় বিদ্যার্থী পরিষদ (এবিভিপি) কে হামলার দায় থেকে রক্ষা করতেই প্রান্তিত এই দল দায় স্বীকার করল।

Comments