আন্তর্জাতিক

মিয়ানমারের বিরুদ্ধে গণহত্যার রায় ২৩ জানুয়ারি

পশ্চিম আফ্রিকার দেশ গাম্বিয়ার বিচার বিভাগের এক টুইটার বার্তা থেকে জানা গেছে, আন্তর্জাতিক বিচার আদালত (আইসিজে) আগামী ২৩ জানুয়ারি মিয়ানমারের গণহত্যার মামলার রায় প্রদান করবেন।

পশ্চিম আফ্রিকার দেশ গাম্বিয়ার বিচার বিভাগের এক টুইটার বার্তা থেকে জানা গেছে, আন্তর্জাতিক বিচার আদালত (আইসিজে) আগামী ২৩ জানুয়ারি মিয়ানমারের গণহত্যার মামলার রায় প্রদান করবেন।

গতকাল (১৩ জানুয়ারি) এই টুইটটি করা হয়।

মিয়ানমারের সংখ্যালঘু রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর উপর দেশটির সেনাবাহিনীর ‘চলমান গণহত্যা’র বিরুদ্ধে গত নভেম্বরে মামলা করে আফ্রিকার মুসলিমপ্রধান দেশ গাম্বিয়া।

আন্তর্জাতিক আদালত অবশ্য মামলার রায় নিয়ে কোনো মন্তব্য করতে রাজি হয়নি।

ইসলামিক সহযোগিতা সংস্থার (ওআইসি) সদস্য দেশগুলোর সমর্থনে আন্তর্জাতিক বিচার আদালতে গাম্বিয়া মামলা করে। মামলায় মিয়ানমারের বিরুদ্ধে ১৯৪৮ সালের গণহত্যা সনদ লঙ্ঘনের অভিযোগ আনে গাম্বিয়া।

মামলাতে বলা হয়, হত্যাকাণ্ড, সংঘবদ্ধ ধর্ষণ, ঘরবাড়িতে অগ্নিসংযোগের ফলে জীবন বাঁচাতে মিয়ানমার থেকে বাংলাদেশে পালিয়ে আসে অন্তত সাত লাখ ৩০ হাজার রোহিঙ্গা। সে কারণে, মূল বিচার শুরুর আগে অন্তর্বর্তীকালীন ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য আইসিজের কাছে আবেদন করা হয়।

নেদারল্যান্ডসের হেগে গত ১০ থেকে ১২ গত ডিসেম্বরে পর্যন্ত টানা তিনদিন অভিযোগের ওপর শুনানি চলে। শুনানিতে মিয়ানমারের পক্ষে অংশ নেন দেশটির নোবেলজয়ী নেত্রী অং সান সু চি। শুনানিতে মিয়ানমারে কোনো গণহত্যার ঘটনা ঘটেনি বলে দাবি করেন তিনি।

আন্তর্জাতিক আদালতের বিচারের সিদ্ধান্তই চূড়ান্ত এবং এর বিরুদ্ধে আপিল করা যায় না। যদিও, বিচারের রায় কার্যকর করার ক্ষমতা আদালতের নেই।

Comments

The Daily Star  | English