যশোর, কক্সবাজার, সিলেটে সড়ক দুর্ঘটনায় একই পরিবারের ৩ জনসহ নিহত ৬

তিন জেলায় পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় অন্তত ছয়জন নিহত হয়েছেন। নিহতদের মধ্যে একই পরিবারের তিন সদস্য রয়েছেন। আহত হয়েছেন অন্তত ৩৬ জন।
Road Accident logo
প্রতীকী ছবি। স্টার ডিজিটাল গ্রাফিক্স

তিন জেলায় পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় অন্তত ছয়জন নিহত হয়েছেন। নিহতদের মধ্যে একই পরিবারের তিন সদস্য রয়েছেন। আহত হয়েছেন অন্তত ৩৬ জন।

দুর্ঘটনাকবলিত জেলাগুলো হলো যশোর, কক্সবাজার ও সিলেট।

যশোরে প্রাইভেট কার দুর্ঘটনায় একই পরিবারের ৩ জন নিহত

আমাদের বেনাপোল সংবাদদাতা জানিয়েছেন, যশোর শহরে প্রাইভেট কার নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বৈদ্যুতিক খুঁটির সঙ্গে ধাক্কা লাগলে একই পরিবারের ৩ জন নারী নিহত হন। আহত হয়েছে শিশুসহ আরও দুজন।

আজ (১৮ জানুয়ারি) ভোররাত পৌনে দুইটার দিকে যশোর বিমান অফিস মোড়ে এই দুর্ঘটনা ঘটে। নিহতরা সবাই প্রাইভেট কারের যাত্রী ছিলেন। দুর্ঘটনায় নিহতরা হলেন- যশোর শহরের লোন অফিস পাড়ার শফিকুল ইসলামের স্ত্রী ডা. তনিমা ইয়াসমিন পিয়াশা (২৫), আর. এন রোড এলাকার সুমন ইসলামের স্ত্রী তানজিলা ইয়াসমিন ইয়াশা (২৮) এবং একই এলাকার মনজুর হোসেনের স্ত্রী তিথি (৩২)।

আহতরা হলেন- তিথির শিশু সন্তান মনিরুল ইসলাম (৪) ও নিহতদের নিকটাত্মীয় হৃদয় (৩০)।

যশোর কোতোয়ালী থানার ওসি মনিরুজ্জামান জানিয়েছেন, প্রাইভেট কারে চড়ে বাড়ি ফেরার সময় বিমান অফিস মোড়ে পৌঁছালে গাড়িটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রাস্তার পাশের একটি বৈদ্যুতিক খুঁটিতে ধাক্কা খায়। এতে গাড়িটি দুমড়ে-মুচড়ে যায়। গুরুতর আহত অবস্থায় পাঁচজনকে যশোর জেনারেল হাসপাতালে নেওয়ার কিছুক্ষণের মধ্যেই তিনজনের মৃত্যু হয়। আহতদের চিকিৎসা চলছে।

কক্সবাজারে পিকনিকের বাস খাদে পড়ে নিহত ১, আহত ২৯

আমাদের কক্সবাজার সংবাদদাতা জানিয়েছেন, কক্সবাজারের রামু উপজেলায় কক্সবাজার-চট্টগ্রাম মহাসড়কে বনভোজনের একটি বাস খাদে পড়ে নিহত হয়েছেন একজন এবং আহত হয়েছেন ২৯ জন। আহতদের মধ্যে কয়েকজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

আজ (১৮ জানুয়ারি) সকাল সাড়ে ছয়টার দিকে রামুর চা-বাগান লম্বা ব্রিজ এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, গতকাল রাতে ৪৫ আসনের একটি বাস ঢাকা থেকে সেন্ট মার্টিনের উদ্দেশ্যে রওনা হয়। বাসটি রামু উপজেলার চা-বাগান লম্বা ব্রিজ এলাকা অতিক্রম করার সময় ব্যাটারি-চালিত একটি ইজি-বাইককে রক্ষা করতে গিয়ে বাসচালক নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলেন। ফলে বাসটি রাস্তার পাশের খাদে পড়ে যায়।

ওই বাসে থাকা ৩০ জন পর্যটক আহত হন। একজন চিকিৎসাধীন অবস্থায় কক্সবাজার জেলা হাসপাতালে মারা যান।

সিলেটে প্রাইভেট কার উল্টে শিক্ষার্থী, পৃথক দুর্ঘটনায় নারী নিহত

আমাদের সিলেট সংবাদদাতা জানিয়েছেন, সিলেট নগরীর টিলাগড় এলাকায় বেপরোয়া গতিতে প্রাইভেট কার চালানোর সময় গাড়ি উল্টে এক শিক্ষার্থী নিহত হয়েছেন।

নিহত নয়ন দাস (২৭) শহরতলীর চামেলীবাগ এলাকার ইরেশ দাসের ছেলে এবং মুরারি চাঁদ কলেজের স্নাতকোত্তর শেষ বর্ষের শিক্ষার্থী।

শাহপরান থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল কাইয়ুম জানিয়েছেন, গতকাল (১৭ জানুয়ারি) রাত ১১টার দিকে বেপরোয়াভাবে টিলাগড় পয়েন্টের স্পিড-ব্রেকার পার হওয়ার সময় প্রাইভেট কার উল্টে গেলে গাড়ির ভেতরের থাকা নয়নসহ চার বন্ধু আহত হন।

পরে স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পর নয়নের মৃত্যু হয়। প্রাইভেট কারের চালক মাহের, এবং আরোহী মেহরাব এবং রুবেল বর্তমানে এ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন।

এদিকে, সিলেট-ফেঞ্চুগঞ্জ সড়কের দক্ষিণ সুরমার জলকরকান্দি এলাকায় সিএনজিচালিত অটোরিকশা ও লেগুনার সংঘর্ষে নাজিয়া আক্তার নাজু (৩০) নামে এক গৃহবধূ নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় তার দুই সন্তান আহত হয়েছে।

গতকাল রাত সাড়ে ৮টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নাজিয়া নাজু মৌলভীবাজারের জুড়ি উপজেলার জাঙ্গিরাই গ্রামের মোস্তফা কামালের স্ত্রী।

প্রত্যক্ষদর্শীর বরাত দিয়ে মোগলাবাজার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আখতার হোসেন বলেছেন, দুই সন্তান নিয়ে কুলাউড়া থেকে স্বামীর বাড়ি ফেরার পথে দক্ষিণ সুরমা উপজেলার জলকরকান্দি এলাকায় বিপরীতগামী একটি লেগুনা তাদের বহনকারী সিএনজিচালিত অটোরিকশাকে ধাক্কা দেয়। এতে ঘটনাস্থলে ওই নারীর মৃত্যু হয়। দুর্ঘটনায় তার দুই সন্তান আহত হয়েছে।

Comments

The Daily Star  | English

Old, unfit vehicles taking lives

The bus involved in yesterday’s crash that left 14 dead in Faridpur would not have been on the road had the government not given into transport associations’ demand for keeping buses over 20 years old on the road.

1h ago