টেস্ট সিরিজের প্রস্তুতি নিতেই চলতি মাসে বিসিএল

চলতি মৌসুমে বাংলাদেশ ক্রিকেট লিগ (বিসিএল) আয়োজন নিয়েই ছিল বড় শঙ্কা। ফ্র্যাঞ্চাইজি হিসেবে প্রাইম ব্যাংক চলে যাওয়ার পরই শঙ্কাটা তৈরি হয়। তাই ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ এগিয়ে আনার চিন্তা করেছিল বিসিবি। তবে অনেকটা হঠাৎ করেই সিদ্ধান্ত আসে আগামী ৩১ জানুয়ারি থেকে শুরু হবে বিসিএল। পাকিস্তান ও জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজের আগে টাইগারদের ঝালিয়ে নেওয়ার সুযোগ দিতেই এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানান বিসিবির গেম ডেভেলপমেন্ট কমিটির চেয়ারম্যান খালেদ মাহমুদ সুজন।
Khaled Mahmud Sujon

চলতি মৌসুমে বাংলাদেশ ক্রিকেট লিগ (বিসিএল) আয়োজন নিয়েই ছিল বড় শঙ্কা। ফ্র্যাঞ্চাইজি হিসেবে প্রাইম ব্যাংক চলে যাওয়ার পরই শঙ্কাটা তৈরি হয়। তাই ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ এগিয়ে আনার চিন্তা করেছিল বিসিবি। তবে অনেকটা হঠাৎ করেই সিদ্ধান্ত আসে আগামী ৩১ জানুয়ারি থেকে শুরু হবে বিসিএল। পাকিস্তান ও জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজের আগে টাইগারদের ঝালিয়ে নেওয়ার সুযোগ দিতেই এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানান বিসিবির গেম ডেভেলপমেন্ট কমিটির চেয়ারম্যান খালেদ মাহমুদ সুজন।

বর্তমানে টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলতে পাকিস্তানে রয়েছে বাংলাদেশ জাতীয় দল। এর আগে গত দুই মাসে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে (বিপিএল) খেলেছে তারা। সেটাও টি-টোয়েন্টি সংস্করণের টুর্নামেন্ট ছিল। তাই লম্বা সংস্করণের ক্রিকেট থেকে অনেক দিন থেকেই বাইরে আছে তারা। দ্বিতীয় দফায় আগামী মাসে পাকিস্তানের বিপক্ষে টেস্ট খেলতে গিয়েও কোন প্রস্তুতি ম্যাচ খেলার সুযোগ নেই তাদের। তাদের লাল বলে খেলার ঘাটতিটা থাকছেই। বিসিএল খেলেই তার কিছুটা পুষিয়ে নেওয়ার সুযোগ পাচ্ছেন টাইগাররা।

বৃহস্পতিবার টুর্নামেন্ট কমিটির সঙ্গে এক সভা শেষে সুজন জানালেন, 'আসলে সবদিক চিন্তা করে...পাকিস্তান সফর নিয়ে আমাদের যেহেতু একটু ঝামেলা হলো। আমরা তিনভাগে পাকিস্তানে যাচ্ছি। টেস্টের আগে তো আমাদের কোনো প্রস্তুতি নেই। মাত্রই টি-টোয়েন্টি ফরম্যাট খেললাম, আবার যদি ৫০ ওভারের ক্রিকেটও খেলি তাহলে আমাদের প্রস্তুতি ঠিকমতো হচ্ছে না। এরমধ্যে আমরা তিনটি টেস্ট ম্যাচ খেলবো। (পাকিস্তানের বিপক্ষে) দুটি টেস্টের মাঝে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষেও একটি টেস্ট ম্যাচ আছে। ছেলেরা যদি এই সংস্করণে (বিসিএল) খেলতে পারে... ছোট হলেও টেস্টের আগে এই ম্যাচটি একটি ভালো প্রস্তুতি হবে।'

এছাড়া প্রাইম ব্যাংক চলে যাওয়ায় দক্ষিণাঞ্চলে এবার ফ্র্যাঞ্চাইজি হিসেবে দায়িত্ব বিসিবিকেই নিতে হচ্ছে বলে জানালেন সুজন। তবে নতুন কেউ এলে তাদের স্বাগত জানানো হবে বলেও জানালেন তিনি, 'আমরা তো চেষ্টা করছি, এখন সময় তো অনেক অল্প। তেমন হলে বিসিবিকে দায়িত্ব নিতে হবে দল চালানোর জন্য। যেহেতু এটা আমাদের কমিটমেন্ট এবং আমাদের টুর্নামেন্ট। বিসিবি যেমন এখন উত্তরাঞ্চল চালায়, এখন দক্ষিণাঞ্চলও চালাবো। আর এর মধ্যে যদি কোনো পৃষ্ঠপোষক আসতে চায় তাহলে তাদের স্বাগতম। '

Comments

The Daily Star  | English

Nine Rohingyas killed in Ukhiya landslides

Cox's Bazar has been witnessing heavy rainfall since yesterday

1h ago