থানায় জিডি করেছেন লালমনিরহাটের ঘুষ দিতে না পারা সেই শিক্ষক

জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে থানায় সাধারণ ডায়েরী (জিডি) করেছেন ঘুষ দিতে না পারা লালমনিরহাটের আদিতমারী উপজেলার কুমড়িহাট এসসি উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক মনোয়ারুল ইসলাম।
Lalmonirhat teacher
মনোয়ারুল ইসলাম। ছবি: স্টার

জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে থানায় সাধারণ ডায়েরী (জিডি) করেছেন ঘুষ দিতে না পারা লালমনিরহাটের আদিতমারী উপজেলার কুমড়িহাট এসসি উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক মনোয়ারুল ইসলাম।

গতকাল (২৫ জানুয়ারি) রাতে আদিতমারী থানায় উপস্থিত হয়ে তিনি জিডি দায়ের করেন। জিডি নং ৯৭১। এই জিডির একটি কপি দ্য ডেইলি স্টারের কাছে রয়েছে।

মনোয়ারুল ইসলাম অভিযোগ করে বলেছেন, “প্রধান শিক্ষকের ঘুষের বিরুদ্ধে আমি প্রতিবাদী হওয়ায়, আমাকে নানাভাবে হয়রানি করা হচ্ছে। নাম পরিচয় না দিয়ে বিভিন্ন জন বিভিন্ন মোবাইল নম্বর দিয়ে আমাকে ফোন করে প্রাণনাশের হুমকিও দিচ্ছে। এমতাবস্থায় আমি নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি। জীবননাশের আশংকাও করছি।”

তিনি আরও বলেন, “যেহেতু প্রধান শিক্ষক কামরুল ইসলাম প্রভাবশালী, তার রয়েছে বিশাল জনবল। তাই আমার প্রতি প্রতিহিংসাপরায়ণ হয়ে আমার চরম ক্ষতির চেষ্টা করছেন।”

Lalmonirhat teacher
মনোয়ারুল ইসলামের জিডির কপি।

মনোয়ারুল ইসলাম সম্প্রতি এমপিওভুক্ত শিক্ষক হয়েছেন। এমপিওভুক্তির খরচ হিসেবে কুমড়িহাট এসসি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক কামরুল ইসলাম আট লাখ টাকা দাবি করেন সহকারী শিক্ষক মনোয়ারুল ইসলামের কাছে। দরিদ্র পরিবারের সন্তান মনোয়ারুল সেই টাকা দিতে অপারগতা জানালে প্রধান শিক্ষকের বিরাগভাজন হন। তার বেতন আটকে দেওয়া হয় এবং স্কুলে প্রবেশ ও ক্লাস নিতে বাধা দেওয়া হয়। এমনকি তাকে অপদস্থ করে স্কুল থেকে বের করেও দেওয়া হয়েছে বলে দাবি করেছেন মনোয়ারুল ইসলাম।

এ নিয়ে গত ২৩ জানুয়ারি “এমপিও ভুক্তির খরচ ৮ লাখ টাকা দিতে না পারা এক শিক্ষকের কান্না” শিরোনামে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করে দ্য ডেইলি স্টার অনলাইন।

আদিতমারী থানার ওসি সাইফুল ইসলাম জিডির সত্যতা নিশ্চিত করে জানিয়েছেন, পুলিশ তদন্ত সাপেক্ষে জিডির সত্যতা নিশ্চিত করে আইনানুগ ব্যবস্থা নিবে।

Comments