‘লুটেরাদের নিরাপদ দেশ কানাডা নয়’

“বাংলাদেশ থেকে টাকা পাচার করে যারা কানাডায় আসছেন তাদের বিরুদ্ধে সামাজিক সচেতনতা গড়ে তোলার জন্যে আমরা আন্দোলন করছি। অর্থপাচারকারীদের সম্পর্কে প্রবাসীদের সতর্ক করতে চাই। পাশাপাশি, বাংলাদেশ থেকে অর্থপাচারকারীরা যারা এদেশে এসেছেন তারাও যেনো এ বিষয়টি বুঝতে পারেন যে কানাডা অর্থপাচারকারীদের জন্যে নিরাপদ গন্তব্য নয়।”
Canada protest
বাংলাদেশ থেকে কানাডায় অর্থপাচারের বিরুদ্ধে টরেন্টোর হোপ ইউনাইটেড চার্চ মিলনায়তনে প্রতিবাদী অনুষ্ঠান। ২৪ জানুয়ারি ২০২০। ছবি: সংগৃহীত

“বাংলাদেশ থেকে টাকা পাচার করে যারা কানাডায় আসছেন তাদের বিরুদ্ধে সামাজিক সচেতনতা গড়ে তোলার জন্যে আমরা আন্দোলন করছি। অর্থপাচারকারীদের সম্পর্কে প্রবাসীদের সতর্ক করতে চাই। পাশাপাশি, বাংলাদেশ থেকে অর্থপাচারকারীরা যারা এদেশে এসেছেন তারাও যেনো এ বিষয়টি বুঝতে পারেন যে কানাডা অর্থপাচারকারীদের জন্যে নিরাপদ গন্তব্য নয়।”

“বাংলাদেশের মতো গরিব দেশের জনগণের অর্থ লুটেরাদের বিরুদ্ধে সামাজিক প্রতিরোধ গড়ে তুলতে চাই। আমাদের বার্তা হলো: লুটেরাদের নিরাপদ দেশ কানাডা নয়।”

সাংবাদিক শওগাত আলী সাগর মুঠোফোনে আজ (২৬ জানুয়ারি) দ্য ডেইলি স্টার অনলাইনকে কথাগুলো বলেছেন। তিনি আরও বলেছেন, “একই সঙ্গে কানাডার সরকারের কাছেও বিষয়টি তুলে ধরতে চাই যেনো তারা দেখেন আইনের কোনসব ফাঁকফোকর দিয়ে অর্থপাচারকারীরা এখানে টাকা পাঠাচ্ছে।”

বাংলাদেশ থেকে কানাডায় অর্থপাচারের প্রতিবাদ ক্রমশই ছড়িয়ে পড়ছে উত্তর আমেরিকার দেশটির প্রবাসী বাংলাদেশিদের মধ্যে। বিষয়টি নিয়ে গত ১৯ জানুয়ারি টরেন্টোর ডেনফোর্থে মানববন্ধনের আয়োজন করা হয়েছিলো। সেই ধারাবাহিকতায় গত ২৪ জানুয়ারি স্থানীয় সময় সন্ধ্যায় শহরের হোপ ইউনাইটেড চার্চ মিলনায়তনে আয়োজন করা হয়েছিলো ব্যতিক্রমী প্রতিবাদী অনুষ্ঠান। সেই অনুষ্ঠানে অংশ নিয়েছিলেন দুই শতাধিক প্রবাসী বাংলাদেশি।

টরন্টোর বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত সাংস্কৃতিক কর্মীরা ‘রুখো লুটেরা বাঁচাও স্বদেশ’ শীর্ষক অনুষ্ঠানে বক্তব্য, গান, কবিতার মাধ্যমে অঙ্গীকার করে বলেছেন, কানাডাকে কোনো অবস্থাতেই বাংলাদেশের টাকা পাচারকারীদের নিরাপদ গন্তব্য হতে দেওয়া হবে না।

অনুষ্ঠানে বক্তারা অর্থ পাচারকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য বাংলাদেশ এবং কানাডা সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। তারা বলেছেন, জন্মভূমি হিসেবে বাংলাদেশের প্রতি এবং আবাসভূমি হিসেবে কানাডার প্রতি প্রবাসীদের দায়বদ্ধতা রয়েছে। সেই দায়বদ্ধতা থেকেই অর্থপাচারকারীদের বিরুদ্ধে এই আন্দোলন। অর্থপাচারকারীদের প্রতি হুশিয়ারি দিয়ে তারা বলেছেন, কানাডাকে বাংলাদেশের টাকা পাচারকারীদের অভয়ারণ্য হতে দেওয়া হবে না।

অর্থপাচারকারীদের বিরুদ্ধে প্রবাসীদের এই সামাজিক আন্দোলন অব্যাহত থাকবে বলেও অনুষ্ঠানে ঘোষণা দেওয়া হয়।

সাংস্কৃতিক সংগঠক আহমেদ হোসেনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বক্তৃতা করেন ডাকসুর সাবেক এজিএস নাসির উদ দুজা, সাংবাদিক শওগাত আলী সাগর, বাকসুর সাবেক ভিপি ফায়েজুল করিম, সাবেক ছাত্রনেতা ড. মঞ্জুর ই খুদা টরিক, চলচ্চিত্র নির্মাতা মনিস রফিক, সাংবাদিক মোহাম্মদ আলী বোখারী, লেখক আখতার হোসেন, কবি দেলোয়ার এলাহী, সাংবাদিক বাবলু চৌধুরী প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে প্রতিবাদী গান এবং কবিতা আবৃত্তিতে অংশ নিয়েছিলেন সুমন সাইয়েদ, মেরী রাশেদীন, সুমন মালিক, মুক্তি প্রসাদ, নবীউল হক বাবলু, হিমাদ্রী রয়, মুনিয়া, কামরান, আশিক ওয়াহেদ, ফারজানা বিন্দু প্রমুখ।

সম্প্রতি বাংলাদেশের দুর্নীতি এবং ব্যাংকিংখাত থেকে হাজার হাজার কোটি টাকা আত্মসাৎ করে পাচারকারীদের কানাডায় বসবাসের সংবাদ গণমাধ্যমে প্রকাশিত হওয়ার পর প্রবাসী বাংলাদেশিরা সামাজিক আন্দোলন শুরু করেন।

আরও পড়ুন:

বাংলাদেশ থেকে টাকা পাচারের প্রতিবাদে কানাডায় মানববন্ধন

Comments

The Daily Star  | English

‘Will implement Teesta project with help from India’

Prime Minister Sheikh Hasina has said her government will implement the Teesta project with assistance from India and it has got assurances from the neighbouring country in this regard.

2h ago