শীর্ষ খবর

করোনাভাইরাস নিয়ে গুজবে কান না দেওয়ার আহ্বান আইইডিসিআরের

সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের (আইইডিসিআর) পরিচালক অধ্যাপক মীরজাদী সাবরিনা ফ্লোরা বলেছেন, দেশে সন্দেহভাজন করোনাভাইরাসে আক্রান্তদের বিষয়টি পর্যবেক্ষণের ক্ষেত্রে বল প্রয়োগ না করে সরকারি কর্মকর্তাদের উচিত সঠিক তথ্যের ভিত্তিতে কাজ করা, যাতে মানুষ আতঙ্কিত না হন।
IEDCR-1.jpg
ছবি: সংগৃহীত

সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের (আইইডিসিআর) পরিচালক অধ্যাপক মীরজাদী সাবরিনা ফ্লোরা বলেছেন, দেশে সন্দেহভাজন করোনাভাইরাসে আক্রান্তদের বিষয়টি পর্যবেক্ষণের ক্ষেত্রে বল প্রয়োগ না করে সরকারি কর্মকর্তাদের উচিত সঠিক তথ্যের ভিত্তিতে কাজ করা, যাতে মানুষ আতঙ্কিত না হন।

সম্প্রতি সাতক্ষীরায় ছেলেকে নিয়ে গুজব ছড়িয়ে পড়ার ঘটনায় মায়ের মৃত্যুর বিষয়টি উল্লেখ করে তিনি বলেন, “সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়ানো গুজব এবং আইনপ্রয়োগকারী সংস্থা ও প্রশাসনের বল প্রয়োগ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্তে জটিলতা তৈরি করবে।”

গতকাল করোনাভাইরাসের সর্বশেষ পরিস্থিতি নিয়ে রাজধানীর আইইডিসিআর ভবনে সাংবাদিকদের অবগত করেন তিনি।

গুজব আতঙ্কে গত ১০ ফেব্রুয়ারি রাতে সাতক্ষীরার শ্যামনগর উপজেলায় রেনুকা বালা (৫৬) নামে এক নারী হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যান। পুলিশ তার ছেলে রতন রপ্তানকে (৩৫) খুঁজছে এবং ‘তিনি (রতন) করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে থাকলে তাকে গুলি করে হত্যা করা হবে’ এমন গুজব ছড়িয়ে পড়েছিলো বলে ইউএনবির প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে।

সেখানে আরও বলা হয়, ভারত থেকে দেশে ফেরা রতন জ্বর ও কাশিতে ভুগছিলেন। চিকিৎসকরা তাকে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার পরামর্শ দিলে তিনি ভয়ে পালিয়ে যান। পরে পুলিশ ও স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা তাকে খুঁজতে শুরু করেন।

ফ্লোরা বলেন, “বিশেষ করে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে এ ধরনের গুজব ছড়িয়ে পড়া উদ্বেগের। এমন গুজবের কারণেই হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে একজন মারা গেছেন।”

একইভাবে চীন এবং সিঙ্গাপুর থেকে দেশে ফেরত আসা লোকজনও সামাজিক এবং ব্যক্তিগত নিরাপত্তা ঝুঁকিতে আছেন।

তিনি আরও বলেছেন, “গুজবে প্রভাবিত হয়ে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী এবং প্রশাসনও দেশে ফেরত আসাদের প্রতি কঠোর মনোভাব দেখাচ্ছেন। যা সন্দেহভাজন রোগীদের আত্মগোপনে যেতে বাধ্য করবে এবং প্রকৃত রোগীদের সনাক্তকরণে বাধার সৃষ্টি করবে।”

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত সন্দেহভাজন কাউকে পাওয়া গেলে সরকারি কর্মকর্তা এবং জনগণকে হটলাইনের মাধ্যমে আইইডিসিআরের সঙ্গে যোগাযোগ করে তাদের পরামর্শ অনুযায়ী কাজ করার আহ্বান জানানো হয়েছে।

করোনভাইরাস সম্পর্কিত যে কোনো তথ্য জানতে বা সহায়তার জন্য হটলাইন নম্বরগুলো হলো- ০১৯২৭৭১১৭৮৪, ০১৯২৭৭১১৭৮৫, ০১৯৩৭০০০০১১ এবং ০১৯৩৭১১০০১১।

Comments

The Daily Star  | English

How the Sundarbans repeatedly saves Bangladesh from cyclones

In today's Star Explains, we take a look into how this mangrove forest has repeatedly helped reduce the severity of cyclones in Bangladesh

21m ago