খেলা

করোনা আতঙ্কে পিছিয়ে গেল আইপিএলও

করোনাভাইরাস বর্তমানে বিশ্বের সবচেয়ে বড় আতঙ্কের নাম, রীতিমতো মহামারী আকারে ছড়িয়ে পড়েছে। যে কারণে একের পর এক স্থগিত ও বাতিল করা হচ্ছে বিভিন্ন ক্রীড়া আসর। এবার করোনাভাইরাস আতঙ্কে স্থগিত করা হয়েছে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগও (আইপিএল)।
ipl
ছবি: এএফপি

করোনাভাইরাস বর্তমানে বিশ্বের সবচেয়ে বড় আতঙ্কের নাম, রীতিমতো মহামারী আকারে ছড়িয়ে পড়েছে। যে কারণে একের পর এক স্থগিত ও বাতিল করা হচ্ছে বিভিন্ন ক্রীড়া আসর। এবার করোনাভাইরাস আতঙ্কে স্থগিত করা হয়েছে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগও (আইপিএল)।

পূর্বনির্ধারিত সূচি বদলে ২৯ মার্চের পরিবর্তে আগামী ১৫ এপ্রিল থেকে শুরু হবে ফ্র্যাঞ্চাইজিভিত্তিক টি-টোয়েন্টি আসরটি। শুক্রবার (১৩ মার্চ) এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে বিষয়টি জানিয়েছে ভারতীয় ক্রিকেট নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিসিসিআই।

আইপিএল পিছিয়ে যাওয়া অনুমিতই ছিল। বেশ কয়েকদিন ধরে এ নিয়ে প্রবল গুঞ্জনও ছিল। ভারতীয় গণমাধ্যমেও ফলাও করে সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে। এদিন আইপিএল গভর্নিং কাউন্সিল এবং ভারতীয় বোর্ডের প্রধান সৌরভ গাঙ্গুলিসহ বেশ কয়েকজন কর্মকর্তাদের মধ্যে বৈঠকের পর আসরটি পিছিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। আইপিএলের ত্রয়োদশ আসর আগামী ১৫ এপ্রিল থেকে শুরু করা হবে বলে বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে। এর মধ্যেই সব ফ্র্যাঞ্চাইজিকে সিদ্ধান্তের কথা জানিয়ে দেওয়া হয়েছে।

এক বিবৃতিতে বিসিসিআই বলেছে, ‘ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ড (বিসিসিআই) আগামী ১৫ এপ্রিল ২০২০ পর্যন্ত আইপিএল স্থগিত রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে সুরক্ষা নিশ্চিত করতেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। বিসিসিআই তাদের সঙ্গে জড়িত সকলের স্বাস্থ্য সম্পর্কে চিন্তিত, পাশাপাশি সাধারণ মানুষেরও। আইপিএলের সঙ্গে যুক্ত প্রত্যেক ব্যক্তি যেন সুস্থ এবং নিরাপদ থাকেন, তাই এ সিদ্ধান্ত।’

বিসিসিআই সচিব জয় শাহ জানিয়েছেন, করোনাভাইরাসের প্রকোপ থেকে বাঁচতেই নতুন এ সিদ্ধান্ত। খেলোয়াড় থেকে শুরু করে সাধারণ মানুষের স্বাস্থ্যগত ব্যপার তো ছিলই, সঙ্গে এই টুর্নামেন্টের সঙ্গে যুক্ত সংস্থাগুলোর লাভের প্রশ্নও জড়িত থাকায় এ সিদ্ধান্ত নিতে বাধ্য হয়েছে বোর্ড।

আগামী ১৫ এপ্রিল পর্যন্ত কূটনৈতিক কর্মকর্তা, জাতিসংঘ বা আন্তর্জাতিক সংস্থায় কর্মরত ব্যক্তিদের ভিসা বাদে অন্য সব বিদেশি নাগরিকদের ভিসা স্থগিত করেছে ভারত। তাই শুরুর দিকে বিদেশি ক্রিকেটারদের আইপিএলে খেলা নিয়েও ছিল জটিলতা।

এ ছাড়া আইপিএলের উদ্বোধনী ম্যাচের টিকিট বিক্রি করবে না বলে আগেই জানিয়েছিল মহারাষ্ট্র রাজ্যের সরকার। দিল্লির উপ-মুখ্যমন্ত্রী মানিশ সিসোদিয়া স্পষ্ট করে বলেছিলেন, উদ্ভূত উদ্বেগজনক পরিস্থিতিতে সেখানে আইপিএলের কোনো খেলা আয়োজন করাও সম্ভব না।

Comments

The Daily Star  | English
Awami League didn't nominate anyone in 2 seats

Seat-sharing for JS polls: AL keeps its allies hanging

A crucial meeting between the Awami League and its 14-party allies ended last night without any concrete decisions on seat sharing.

9h ago