করোনাভাইরাস: ঢাবির কয়েকটি বিভাগে শিক্ষার্থীদের ক্লাস-পরীক্ষা বর্জনের ডাক

করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়া ঠেকাতে অনির্দিষ্টকালের জন্য ক্লাস-পরীক্ষা বর্জনের ঘোষণা দিয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণিবিদ্যা ও অর্থনীতি বিভাগের সব ব্যাচের শিক্ষার্থীরা।
কার্জন হল। স্টার ফাইল ছবি

করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়া ঠেকাতে অনির্দিষ্টকালের জন্য ক্লাস-পরীক্ষা বর্জনের ঘোষণা দিয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণিবিদ্যা ও অর্থনীতি বিভাগের সব ব্যাচের শিক্ষার্থীরা।

একইভাবে অনির্দিষ্টকালের জন্য ক্লাস-পরীক্ষা বর্জনের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন সমাজবিজ্ঞান, গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগ, রাষ্ট্রবিজ্ঞান, শিক্ষা ও গবেষণা, আইন, উইমেন অ্যান্ড জেন্ডার স্টাডিজ, ফলিত রসায়ন ও কেমিকৌশল এবং পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের বেশ কয়েকটি বর্ষের শিক্ষার্থীরা।

প্রাণিবিদ্যা বিভাগের কয়েকজন শিক্ষার্থী দ্য ডেইলি স্টারকে জানিয়েছেন, শিক্ষার্থীদের মতামতের ভিত্তিতে নিজেরাই এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। এ ব্যাপারে বিভাগের শিক্ষকদের সঙ্গে তারা আলোচনা করেছেন।

প্রাণিবিদ্যা বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক হুমায়ুন রেজা খানের কাছে এ বিষয়ে জানতে চাওয়া হলে বলেন, ‘আমাদের ক্লাস স্থগিত করার এখতিয়ার নেই। এরকম সিদ্ধান্ত বিশ্ববিদ্যালয় সিন্ডিকেট নিতে পারে। আমি শিক্ষকদের ক্লাসে আসতে বলেছি। শিক্ষার্থীরা যদি ক্লাসে না আসেন সেক্ষেত্রে ক্লাস বাতিল হতে পারে।’

অর্থনীতি বিভাগের শিক্ষার্থীরাও ক্লাস ও পরীক্ষা বর্জনের সিদ্ধান্ত জানিয়েছেন। গুগল ফর্মের মাধ্যমে ৬৫০ জন শিক্ষার্থীরা ক্লাস-পরীক্ষা বর্জনের পক্ষে সিদ্ধান্ত জানিয়েছেন বলে জানান অর্থনীতি বিভাগের বিভিন্ন ব্যাচের শিক্ষার্থীরা।

সমাজবিজ্ঞান বিভাগের ১৬-১৭ সেশনের শিক্ষার্থীদের অনুরোধে এবং সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনায় রোববার মিডটার্ম পরীক্ষা অনির্দিষ্টকালের জন্য পিছিয়ে দেওয়া হয়েছে বলে জানান ব্যাচের প্রতিনিধি রাকিবুল হাসান।

উইমেন অ্যান্ড জেন্ডার স্টাডিজ বিভাগের শিক্ষার্থী তানজিনা সেঁজুতি বলেন, ‘আমরা আগামীকাল থেকে আর ক্লাসে যাব না। শিক্ষার্থীরা সবাই আবেদনপত্রে স্বাক্ষর করছে। কাল বিভাগের অফিসে আবেদনপত্র জমা দেওয়া হবে।’

এ বিষয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক এ কে এম গোলাম রাব্বানীর সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ‘ক্লাস পরীক্ষা বন্ধের বিষয়ে এখনো সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি। আলোচনা করে সিদ্ধান্ত সবাইকে জানিয়ে দেওয়া হবে।’

Comments

The Daily Star  | English

Dozens injured in midnight mayhem at JU

Police fire tear gas, pellets at quota reform protesters after BCL attack on sit-in; journalists, teacher among ‘critically injured’

1h ago