নেইমারের দাম কমাতে বাধ্য হলো পিএসজি

আগামী মৌসুমে নেইমারকে বেচে দিতে রাজি হয়েছে দলটি। এমনকি কমিয়েছে তার তার মূল্যও। মূলত দলের আরেক তারকা কিলিয়ান এমবাপেকে ধরে রাখতে সৃষ্ট জটিলতা এড়াতে ও ফিফার নিয়মের বেড়াজালে আটকেই নেইমারের দাম কমাতে বাধ্য হয়েছে দলটি।
neymar
নেইমার। ছবি: এএফপি

গত মৌসুমে নেইমারকে ফেরাতে কত কি-ই না করেছে বার্সেলোনা! কিন্তু তাদের একের পর এক প্রস্তাব ফিরিয়ে দিয়েছে প্যারিস সেইন্ট জার্মেই (পিএসজি)। আকাশছোঁয়া দাম হাঁকিয়ে নেইমারকে বাধ্য করেছে প্যারিসের ক্লাবে থেকে যেতে। তবে আগামী মৌসুমে তাকে বেচে দিতে রাজি হয়েছে দলটি। এমনকি কমিয়েছে তার তার মূল্যও। মূলত দলের আরেক তারকা কিলিয়ান এমবাপেকে ধরে রাখতে সৃষ্ট জটিলতা এড়াতে ও ফিফার নিয়মের বেড়াজালে আটকেই নেইমারের দাম কমাতে বাধ্য হয়েছে দলটি।

আগামী গ্রীষ্মে নেইমারের নতুন প্রাইজট্যাগ ১৫০ মিলিয়ন ইউরো। এ মূল্য পরিশোধ করলেই ফের কাতালানদের দলে দেখা যাবে এ ব্রাজিলিয়ানকে। আজ রোববার ক্লাবের স্পোর্টিং ডিরেক্টর লিওনার্দো এ ঘোষণা দিয়েছেন। গত মৌসুমে বার্সেলোনার কাছে ৩০০ মিলিয়ন ইউরোর বেশি অর্থ দাবি করেছিল পিএসজি। ২০১৭ সালের গ্রীষ্মের দল বদলে রেকর্ড ২২২ মিলিয়ন ইউরোর বিনিময়ে বার্সেলোনা থেকে তাকে কিনেছিল ক্লাবটি। সেক্ষেত্রে ৭২ মিলিয়ন কম অর্থের বিনিময়েই এবার তাকে ছাড়তে হচ্ছে।

মূলত ফিফার নিয়মে আটকে গেছে পিএসজি। কারণ ফিফার নিয়ম অনুযায়ী, খেলোয়াড়দের দলবদলের ক্ষেত্রে ‘প্রোটেক্টেড পিরিয়ড’ বলে একটি ধারা রয়েছে। আর এই ‘প্রোটেক্টেড পিরিয়ড’ খেলোয়াড়দের জন্য প্রযোজ্য প্রথম তিন বছর। অর্থাৎ কোনো খেলোয়াড়কে কেনার পর যদি তিন বছরের মধ্যে ওই চুক্তি আবার নবায়ন না করা হয়, তাহলে ওই ক্লাবকে একটা নির্দিষ্ট পরিমাণ ক্ষতিপূরণ দিয়ে দলবদল করতে পারবেন সে খেলোয়াড়। সেক্ষেত্রে এবার চাইলেও উচ্চ মূল্য হাঁকাতে পারত না পিএসজি।

সমস্যা ছিল আরও। নেইমারকে আটকাতে গেলে হারাতে হতে পারে এমবাপেকেও। কারণ পিএসজির সঙ্গে চুক্তিতে স্পষ্ট করে লেখা রয়েছে, ক্লাবের সর্বোচ্চ বেতনের অধিকারী হবেন নেইমার। বেতন-বোনাসসহ সবমিলিয়ে বছরে প্রায় ৩৭ মিলিয়ন ইউরো নেন তিনি। অন্যদিকে, এমবাপে পান সাড়ে ১৭ মিলিয়ন ইউরো। কিন্তু তাকে আরও উচ্চ বেতনে দলে টানতে মুখিয়ে রয়েছে রিয়াল মাদ্রিদসহ বেশ কিছু ক্লাব। এর মধ্যেই তাকে কিনতে কয়েক দফা প্রস্তাব দিয়েছে স্প্যানিশ ক্লাবটি। রিয়ালে যোগ দিলে তাকে ঘিরেই সব পরিকল্পনা হবে। আর বিশ্বের সর্বোচ্চ বেতন পাওয়ার লোভনীয় প্রস্তাব তো রয়েছেই। তা ছাড়া বর্তমানে তারকাখ্যাতিতে নেইমারকে ছাড়িয়ে যাওয়ায় স্বাভাবিকভাবেই ক্লাবের মূল ফোকাসটা চাইবেন এমবাপে।

নেইমার পিএসজিতে থাকলে তাই এমবাপেকে ধরে রাখা প্রায় অসম্ভব। কিন্তু এ তারকাকে কোনোভাবেই ছাড়তে চায় না ক্লাবটি। কদিন আগেই ক্লাব মালিক নাসের আল খেলাইফি তাকে ক্লাবের সর্বোচ্চ বেতনধারী করবেন বলে আশ্বাসও দিয়েছেন। তাই বাধ্য হয়েই নেইমারের দাম কমাতে হলো তাদের। আর তাতে কিছুটা হলেও সুবিধা হলো বার্সেলোনার। কারণ এ ব্রাজিলিয়ান তারকাকে ক্যাম্প ন্যুতে ফেরাতে চান ক্লাবটির সভাপতি হোসে মারিয়া বার্তেমেউ ও অধিনায়ক লিওনেল মেসি।

Comments